বর্ণাঢ্য আয়োজনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপিত

আগের সংবাদ

জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদা আরো কমবে

পরের সংবাদ

কয়েকশ বছরের পুরনো শিবমন্দিরে ভাঙচুর

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৯, ২০২২ , ৯:২৬ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১৯, ২০২২ , ৯:২৬ পূর্বাহ্ণ

কয়েকশ বছরের পুরাতন শিবমন্দিরে শিব লিঙ্গ ভাঙচুর করেছে দুষ্কৃতকারীরা। সেই সঙ্গে মন্দিরে থাকা প্রণামী বাক্স ভেঙে টাকা-পয়সাও লুট করে নিয়েছে।

শুক্রবার ভোর রাতে লালমনিরহাটের গোকুন্ডা ইউনিয়নের তিস্তা বাজার এলাকার সার্বজনীন শিব মন্দিরে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা ৭টা) এই ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, প্রতিদিনই স্থানীয় বাসিন্দা থেকে শুরু করে দূর-দূরান্ত থেকে ভক্তরা কয়েকশ বছর পুরাতন এই মন্দিরে আসতেন। প্রতিদিনের মতো গতকাল সকাল ছয়টায় মন্দিরে পূজা করতে আসেন পুরোহিত তপন চন্দ্র। মন্দিরে ঢুকতে গিয়ে তিনি প্রণামী বাক্স ভাঙা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। ভেতরে গিয়ে দেখেন শিবলিঙ্গটি ভাঙা অবস্থায় রয়েছে। সঙ্গে সঙ্গেই বিষয়টি মন্দির কমিটির সদস্যদের জানান। কমিটির সদস্যরা বিষয়টি থানায় জানান। এরপর ঘটনাটি জানাজানি হলে আশপাশের সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মন্দিরে এসে জড়ো হন।

তিস্তা বাজার শিব মন্দির কমিটির সভাপতি সুরেশ প্রসাদ গুপ্ত সাংবাদিকদের জানান, শিব মন্দিরটি কয়েকশ বছরের পুরনো। গত এক বছর ধরে প্রণামী বাক্স খোলা হয়নি। ফলে কত টাকা ছিল, তা বলা সম্ভব নয়। অতীতে কখনোই মন্দিরে হামলা কিংবা লুটপাটের ঘটনা ঘটেনি। কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা আমরা জানি না। সিসিটিভি ফুটেজে ভাঙচুরের ছবি রয়েছে। আমরা চাই, অতি দ্রুত দোষীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেয়া হোক।

লালমনিরহাট পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি হীরালাল রায় বলেন, এটি অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। কে বা কারা এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে আমরা জানি না। তবে যারাই এই ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়ে থাকুক না কেন, তাদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

সম্প্রতি তিস্তা এলাকায় মাদককারবারী ও সেবনকারীর সংখ্যা বেড়ে গেছে। হয়তো এ চক্রের সদস্যরা মন্দিরের দানবাক্স লুট করতে গিয়ে শিবলিঙ্গটি ভাঙচুর করেছে বলে মন্দির কমিটির সদস্যরা সন্দেহ করছেন।

এ নিয়ে জানতে চাইলে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, কয়েক জন দুর্বৃত্ত গত রাত সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৪টার মধ্য মন্দিরে ঢুকে শিবলিঙ্গ ভাঙচুর করে ও দানবাক্স থেকে সাড়ে ৩ থেকে ৪ হাজার টাকা নিয়ে যায়। বিষয়টি জানা মাত্র ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। মন্দিরটি রাস্তার পাশে এবং নিরাপত্তার ঘাটতি থাকার কারণে দুর্বৃত্তরা এ ঘটনা ঘটানোর সাহস পেয়েছে। আমরা ইতোমধ্যে কয়েকটি সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। ফুটেজগুলো বিশ্লেষণ করে দোষীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনব।

এমকেএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়