মনের ভেতর থেকে দূষণ দূর করা জরুরি

আগের সংবাদ

হতাশার গভীর খাদে ডুববে বিএনপি-জামায়াত

পরের সংবাদ

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন

জাতিরাষ্ট্র গঠনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে বাঙালির ত্যাগ

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৮, ২০২২ , ৯:৪৫ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১৮, ২০২২ , ৯:৫৩ অপরাহ্ণ

বাঙালি জাতি রাষ্ট্র গঠনে ১৯৪৭ সাল থেকে এদেশবাসীর যে ত্যাগ তা ইতিহাসে অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। ভাষা ও স্বাধীকার প্রতিষ্ঠায় বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দেওয়ার ইতিহাস শুধু আমাদেরই আছে। স্বাধীকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় শিক্ষা ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় বাঙালীর ত্যাগ পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল।

১৯৭১ সালে অতিসামান্য চাওয়া পাওয়াকে সামনে রেখে স্বাধীন বাংলাদেশের পথচলা শুরু হলেও স্বাধীনতার ৫১ বছর পেরিয়ে আজও জাতি রাষ্ট্র গঠনে সত্যিকার অর্থে আমরা অগ্রসর হতে পারিনি। শোষণ, বঞ্চনা, বৈষম্যের পাশাপাশি সাম্প্রদায়িক নিপীড়ন, লুন্ঠন, মানব পাচার, অর্থপাচার ও সাম্প্রদায়িকতাবাদীদের প্রভাব রাষ্ট্রে তৃণমূলে দৃঢ় অবস্থান নিয়েছে।

রুগ্নকরণ গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার দূর্বলতার সুযোগে সমাজ ও রাষ্ট্রে মাফিয়া প্রভাবিত রাজনীতি ৩০ লক্ষ শহীদানের অর্জিত স্বাধীনতাকে ক্রমেই বিপন্ন করে তুলছে। জাতীর জীবনে এখন চরম হতাশা বেকারত্ব, অনিয়ম ও অনিশ্চয়তা বিদ্যমান।

ইতোমধ্যে দেশে নতুন করে জঙ্গিবাদী ধর্মান্ধ শক্তিসমুহের সংগঠিত হওয়ার ঘটনা সভ্যতা, মানবতা, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ও স্থিতিশীলতার বিরুদ্ধে গভীর চক্রান্ত বলে আমরা মনে করি। দেশে ক্ষমতার পালাবদলের চক্রকে ঘিরে অপশক্তির সংঘাত ও পাল্টাপাল্টির সীমাবদ্ধতায় আবদ্ধ। হতাশাগ্রস্ত জাতি ও রাষ্ট্রের পূনর্গঠনে এই মূহেুর্তে অসাম্প্রদায়িক চেতনা ও দেশপ্রেমিক শক্তির নিষ্ক্রিয়তা বিরাজমান।

এই সময়ে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন দেশের বিবেকবান মানুষ, গণতন্ত্রমনা সকল রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ছাত্র-যুবক, কৃষক, নারী, মানবাধিকার সংগঠন সমূহের প্রতি আহ্বান জানাই আসুন মুক্তি যুদ্ধের মহান চেতনায় ঐক্যবদ্ধ জাগরণ গড়ে তুলি।

শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) বিকালে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির ঢাকাস্থ নেতৃবৃন্দের সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌসের সভাপতিত্বে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় জাতীয় টেনিস কমপ্লেক্সে আয়োজিত সভায় এ সময় সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ।

আলোচনায় অন্যদের মধ্যে অংশ নেন প্রেসিডিয়াম সদস্য এমএ সামাদ, এডভোকেট এস এম এ সবুর, ড. সৈয়দ আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী, ড. সেলু বাসিত, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একে আজাদ, এডভোকেট পারভেজ হাসেম, জহিরুল ইসলাম জহির, অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সবুজ, সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য সামসুল আলম জুলফিকার, অলক দাশগুপ্ত, সাজেদুল আলম রিমন, বিপ্লব চাকমা, হান্নান চৌধুরী, জুবায়ের আলম, আবিদ হোসন অপু, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হারুনার রশিদ ভূঁইয়া, আব্দুল ওয়াহেদ, মোঃ আজিজুর রহমান আজিজ, মিজানুর রহমান মজুমদার, আমান উল্ল্যাহ আমান, উম্মে জাহেদা ইতি, জাহিদ।

এমকেএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়