কথাসাহিত্যের রাজপুত্র ছিলেন হাসান আজিজুল হক

আগের সংবাদ

রিভা-রাজিয়ার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২০ ডিসেম্বর

পরের সংবাদ

ক্ষমা চাইলেন পিরোজপুরের পিপি

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৫, ২০২২ , ৫:৩১ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১৫, ২০২২ , ৫:৩১ অপরাহ্ণ

পিরোজপুরের চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে হুমকি ও তার সঙ্গে পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) খান মো. আলাউদ্দিনের অসৌজন্যমূলক আচরণের ঘটনা বিচার বিভাগের জন্য কলঙ্ক বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিল সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) এই মন্তব্য করেন। এর আগে আদালতের নির্দেশে হাজির হয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার আবেদন করেন পিপি খান মো. আলাউদ্দিন। পরে আদালত তাকে সতর্ক করে ক্ষমা প্রদান দেন।

আদালতে পিপির পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ফিদা এম কামাল, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা, সমিতির সম্পাদক আব্দুন নূর দুলাল, আইনজীবী নাহিদ সুলতানা যুথি, রবিউল আলম বুদু ও আবুল হোসেন।

শুনানিকালে আদালত পিরোজপুরের পিপিকে উদ্দেশ করে বলেন, আপনি কোনো সাধারণ আইনজীবী নন। আপনি পিরোজপুরের পিপি, আইনজীবী নেতা। আপনারা যদি বিচারককে, আদালতকে সম্মান না করেন তাহলে তো সাধারণ মানুষ সম্মান করবে না। আর যদি আদালতের প্রতি, বিচার বিভাগের প্রতি মানুষের আস্থা উঠে যায়, তাহলে তো কেউ বাঁচবেন না। আমরা যদি আপনার আচরণ অনুমোদন করি তাহলে সাধারণ মানুষের মাঝে কী মেসেজ যাবে? বিচারকের সঙ্গে আপনার এই আচরণের কারণে যে ক্ষতি হয়েছে, তার খেসারত দিতে হবে। আপনার আচরণের কথা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এতে বিচার বিভাগের অনেক ক্ষতি হয়ে গেছে। আপনারও তো অনেক ক্ষতি হয়ে গেছে। এটা তো আপনার জীবনের বড় দুর্ঘটনা। একজন বিচারকের সঙ্গে পিপি যে আচরণ করেছেন তা রাষ্ট্রের জন্য কলঙ্ক। বিচার বিভাগের জন্য কলঙ্ক। এ ধরনের আচরণ মেনে নেওয়া যায় না।

আদালত আরও বলেন, আদালত শক্তি প্রদর্শনের জায়গা নয়। এখানে যত বিনয়ী হবেন তত বড় হতে পারবেন। এখন যদি আপনাকে আমরা ৬ মাসের জন্য আইন পেশা থেকে বিরত থাকার আদেশ দিই তখন কী হবে?

এ পর্যায়ে উপস্থিত সিনিয়র আইনজীবীরা আদালতকে বলেন, আমরা তার পক্ষ হয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চাচ্ছি। ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা আর ঘটবে না। তখন আদালত পিপিকে এজলাসের ডায়াসের সামনে ডাকেন।

এ সময় পিপি আদালতকে বলেন, আমি নিঃশর্ত ক্ষমা চাচ্ছি। ভবিষ্যতে আর এ ধরনের আচরণ করব না। পরে আদালত তাকে সতর্ক করে ক্ষমা প্রদান দেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়