‘শরণার্থী’ ডেভিসকে নিয়েই কানাডার দল ঘোষণা

আগের সংবাদ

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদের শপথগ্রহণ

পরের সংবাদ

দূষিত বাতাসের শহরের তালিকায় শীর্ষ তিনে ঢাকা

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৪, ২০২২ , ১২:১৯ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১৪, ২০২২ , ১২:১৯ অপরাহ্ণ

শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে নির্মাণ কাজ শুরু ও রাস্তার ধুলা ও অন্যান্য উৎস থেকে দূষিত কণার ব্যাপক নিঃসরণের কারণে ঢাকা শহরের বাতাসের গুণমান দ্রুত খারাপ হতে শুরু করেছে। এর ফলে বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত বাতাসের শহরের তালিকায় শীর্ষ স্থানে উঠে এসেছে ঢাকা।

সোমবার (১৪ নভেম্বর) সকাল ১১টায় ঢাকার এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) স্কোর রেকর্ড করা হয়েছে ১৭৯, যা বাতাসের মান ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলে নির্দেশ করছে। এর আগে গত শনিবার (১২ নভেম্বর) সকাল সোয়া ৯টায় ঢাকার এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) স্কোর ১৯৫ রেকর্ড করা হয়েছে।

সকাল নয়টার প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বের অন্যতম দূষিত বাতাসের শহর ঢাকা। এ–সংক্রান্ত করা তালিকায় রাজধানী ঢাকা ছিল ১ নম্বরে। ঢাকার এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) স্কোর রেকর্ড করা হয়েছে ১৯৫, যা বাতাসের মান অনুযায়ী ‘অস্বাস্থ্যকর’। এ তালিকায় ১৮৮ একিউআই স্কোর নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতা; ১৮৩ স্কোর নিয়ে তৃতীয় ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি। এরপর চতুর্থ স্থানে থাকা বসনিয়ার রাজধানী সারায়েভো এবং পঞ্চম স্থানে থাকা চীনের সেনইয়াং শহরের স্কোর ১৭০। ষষ্ঠ স্থানের ক্রোয়েশিয়ার জাগরেবের স্কোর ১৬৬। ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বাইয়ের স্কোরও ১৬৬, তালিকায় অবস্থান ৭।

পরে সকাল ১১টায় প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে সুইজারল্যান্ডভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘আইকিউএয়ার’। এতে বলা হয়, ২১৩ একিউআই স্কোর নিয়ে প্রথম অবস্থানে ভারতের নয়াদিল্লি; আর ১৮৭ স্কোর নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারতের কলকাতা শহর। আর ঢাকার অবস্থান তৃতীয় আর একিউআই স্কোর ১৭৯।

প্রসঙ্গত, একিউআই স্কোর ১০০ থেকে ২০০ পর্যন্ত ‘অস্বাস্থ্যকর’ হিসেবে বিবেচিত হয় বিশেষ করে সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য। এই অঞ্চলের বাতাসে থাকা সব ধরনের কঠিন এবং তরল কণার সমষ্টি, যার বেশিরভাগই বিপজ্জনক। মানব স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক বিভিন্ন ধরনের রোগ যেমন-প্রাণঘাতী ক্যান্সার এবং হৃদযন্ত্রের সমস্যা তৈরি করে।

একইভাবে একিউআই স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে স্বাস্থ্য সতর্কতাসহ তা জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচিত হয়। এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ এবং অসুস্থ রোগীদের বাড়ির ভেতরে এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে।

এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, জনবহুল ঢাকা দীর্ঘদিন ধরেই দূষিত বাতাস নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে। তবে মধ্য জুন থেকে বৃষ্টিপাত শুরুর পর বাতাস পরিষ্কার হতে আরম্ভ করে। আর জুন থেকে অক্টোবর পর্যন্ত বর্ষার মৌসুমে বাতাসের মান মোটামুটি গ্রহণযোগ্য থাকে। সারা বিশ্বে প্রতি বছর প্রায় ৭০ লাখের মতো মানুষ বায়ু দূষণের কারণে মারা যান।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়