অ্যাথলেটিক্সে নতুন সভাপতি

আগের সংবাদ

হাটহাজারীতে দিনমজুরের মরদেহ উদ্ধার

পরের সংবাদ

প্লাস্টিকের ভয়াবহতা বোঝাতে পদব্রজে বাংলাদেশে ভারতীয় যুবক

প্রকাশিত: নভেম্বর ৯, ২০২২ , ১:১৭ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০২২ , ১:১৭ অপরাহ্ণ

প্লাস্টিকের ভয়াবহতা বুঝাতে পরিবেশ রক্ষার আহ্বান নিয়ে বিশ্বের ১৫ দেশে যেতে চান ভারতীয় যুবক রোহান আগারওয়াল। ভারতের ২৭টি প্রদেশ ঘুরে এখন বাংলাদেশে অবস্থান করছেন তিনি। দুই বছর আগে এই যাত্রা যখন শুরু করেন তিনি। তখন রোহানের বয়স ছিলো ১৮ বছর।

২০২০ সালের ২৪ আগস্ট ভারতের উত্তর প্রদেশের বারানসিতে গঙ্গার তীর থেকে শুরু হয় তার হাঁটা। সেখান থেকে রাজস্থান, হরিয়ানা, দিল্লি, চণ্ডিগড়, হিমাচল, উত্তরাখণ্ড, মধ্য প্রদেশ, মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, তামিলনাড়ু, পন্ডিচেরি, কর্ণাটক, কেরালা ও গোয়া হয়ে ভারতের মোট ২৭টি রাজ্য পরিভ্রমণ শেষে ৮ অক্টোবর ফেনীর বিলোনিয়া সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে ঢোকেন এই যুবক। তারপর পৌঁছান চট্টগ্রাম হয়ে পার্বত্য চট্টগ্রামে।

বুধবার (৯ নভেম্বর) সকালে রোহান আগারওয়াল খাগড়াছড়ি হয়ে রামগড় পৌছে রামগড় উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ কুমার কারবারী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) খোন্দকার মো. ইখতিয়ার উদ্দিন আরাফাত ও পৌর মেয়র রফিকুল আলম কামাল এর সাথে সৌজন্য স্বাক্ষাত করেন। পরে শতাদিক শিক্ষার্থীদের নিয়ে শহর সমাজসেবার একটি অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির সম্মাননার মাধ্যমে পরিচিত হন রোহান।

সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে রোহান বলেন, নাগপুরে তার পরিবার বসবাস করেন। তার মা-বাবা ও ছোট বোন নিয়েই তার পরিবার। পার্বত্য চট্টগ্রাম, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, নোয়াখালী, কুমিল্লা, ঢাকা, খুলনা ও যশোরে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তার। রোহান বলেন, কক্সবাজার সবচেয়ে বড় সৈকত তিনি এই সৈকতের শুরু থেকে টেকনাফ পায়ে হেঁটেছেন।

পদব্রজে ৮০০ দিনের এই যাত্রায় এ পর্যন্ত ১৫ হাজার কিলোমিটার অতিক্রম করেছেন দাবি করেন রোহান। তিনি জানিয়েছেন, এর পুরোটাই হেঁটে কিংবা অন্য কারও গাড়িতে লিফট নিয়ে চলেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, পৃথিবীটা শুধু মানুষের জন্য নয়। প্রাণী ও উদ্ভিদের জন্যও পৃথিবী। তাই পরিবেশের বিষয়ে অবশ্যই সচেতন হতে হবে। এটা সব মানুষের দায়িত্ব। তিনি বলেন, যে রাজ্যেই গেছি, সেখানকার স্কুল-কলেজে গেছি, বিভিন্ন পাবলিক প্লেসে গেছি। সবাইকে বলেছি, পরিবেশের সুরক্ষার কথা বলেছি। ৯৯ শতাংশ মানুষই ভালো। কেউ কোনোদিন জানতে চায়নি, আমি কোন ধর্মের। মানুষ হিসেবে সবাই ‘হেল্প’ করেছে।

একই সময় ‘হাঁটছি এবং পৃথিবী ঘুরছি, পরিবেশ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করছি’ লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনেও তিনি দাঁড়িয়েছিলেন বলে তিনি জানান।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়