বিশ্ব অর্থনৈতিক বিপর্যয়ে ভুগছে বাংলাদেশও

আগের সংবাদ

বাংলাদেশে স্বচ্ছ নির্বাচনে সহযোগিতা করবে যুক্তরাষ্ট্র

পরের সংবাদ

গ্রামীণফোনের সিম বিক্রিতে বিটিআরসির নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত: নভেম্বর ৬, ২০২২ , ১০:০৬ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ৬, ২০২২ , ১০:০৬ অপরাহ্ণ

গ্রামীণফোনের নতুন ও পুরোনো সকল ধরনের সিম রেজিস্ট্রেশন/বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

গ্রাহকসেবার মান না বাড়ানোর অভিযোগে দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল অপারেটর কোম্পানিটির ওপর রবিবার (৬ নভেম্বর) দ্বিতীয় দফায় এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে সংস্থাটি।

বিটিআরসি বলছে, প্রথমে অপারেটরটিকে কোনো ধরনের নতুন সিম বিক্রি করতে পারবে না বলে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল। পরে গ্রামীণফোনের অনুরোধে ১৩ লাখ অব্যবহৃত সিম বিক্রির সুযোগ দিয়েছিল কমিশন। কিন্তু আজ সেই সুযোগও রহিত করা হলো। ফলে গ্রামীণফোন নতুন-পুরোনো কোনো সিমই বিক্রি করতে পারবে না।

তথ্যানুসারে, গ্রামীণফোনের বর্তমান গ্রাহক সংখ্যা (চলতি বছরের মে পর্যন্ত) আট কোটি ৪৯ লাখ ৫০ হাজার। এই বিপুলসংখ্যক ব্যবহারকারী থাকা সত্ত্বেও অপারেটরটির বিরুদ্ধে বারবার অভিযোগ এসেছে, তারা বিটিআরসি থেকে যে স্প্রেকট্রাম বরাদ্দ নিয়েছে তা পর্যাপ্ত নয়। এ ছাড়াও ঘন ঘন কল ড্রপ, ফোরজি কভারেজ না বাড়ানো, বিটিআরসির পাওনা নিষ্পত্তি না করাসহ অপারেটরটির বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ করেছে কমিশন।

এ প্রসঙ্গে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমরা চেষ্টা করেও গ্রামীণফোনের সেবার মান ভালো করার কোনো উদ্যোগ নিতে দেখিনি। তারা গ্রাহক বাড়াবে, কিন্তু সেবার মান বাড়াবে না- এটা হতে দেওয়া যাবে না। যতদিন না তারা সেবার মান ভালো করবে এবং তা সন্তোষজনক পর্যায়ে উন্নীত না হবে ততদিন গ্রামীণফোনের সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা থাকবে। গ্রামীণফোনের সিম বিক্রির প্রথম নিষেধাজ্ঞা আসে গত ২৯ জুন।

গ্রামীণফোনকে দেওয়া বিটিআরসির চিঠিতে বলা হয়েছিল, বিটিআরসির পরীক্ষায় গ্রামীণফোনের সেবার মান সন্তোষজনক মনে হয়নি। তাই প্রতিষ্ঠানটির সিম বিক্রি করার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। এরই মধ্যে গত ২৬ অক্টোবর সুপ্রিমকোর্টে নিরবচ্ছিন্ন মোবাইল নেটওয়ার্ক সরবরাহের নির্দেশনা চেয়ে একটি রিট করে ‘ল অ্যান্ড লাইফ ফাউন্ডেশন’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান। গ্রামীণফোন ও বিটিআরসির আবেদনের প্রেক্ষিতে ওই রিট আবেদনটির শুনানি মুলতবি রাখা হয়েছে। এরই মধ্যে বিটিআরসি যে কোনো সিম বিক্রিতে এই নিষেধাজ্ঞা দিল।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়