বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র আবুল কালাম আজাদ

আগের সংবাদ

গাজীপুরে ঝুটের গুদামে আগুন

পরের সংবাদ

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শুভ্র হত্যা মামলার রায় ১০ অক্টোবর

প্রকাশিত: অক্টোবর ৬, ২০২২ , ১০:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৬, ২০২২ , ১১:০৭ অপরাহ্ণ

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান শুভ্র হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করবে ট্রাইব্যুনাল। আগামী ১০ অক্টোবর এ মামলায় গৌরীপুর পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের বহিস্কৃত সভাপতি সৈয়দ রফিকুল ইসলামসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করা হবে।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) ঢাকার দুই নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মনির কামাল মামলাটির যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে রায়ের এ দিন ঠিক করেন।

মামলার অপর আসামি হলেন, গৌরীপুর উপজেলা বিএনপির একাংশের যুগ্ম-আহ্বায়ক ও ১ নম্বর মইলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদ (৩৯), সৈয়দ তৌফিকুল ইসলাম (৪১), সৈয়দ মাজাহারুল ইসলাম জুয়েল (৩৮), মাসুদ পারভেজ কার্জন (২৭), গৌরীপুর পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাকিব আহমেদ রেজা (২৮), উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য মোজাম্মেল হক (৩০), খাইরুল ইসলাম (৩০), ছাত্রদল কর্মী রিফাত (২৫), মো. আবু হানিফা (৩০), উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম (২৮), যুবদল কর্মী মজিবুর রহমান (৩০), ছাত্রদল কর্মী শরীয়তউল্লাহ ওরফে সুমন (৩৩) ও যুবদল কর্মী রাসেল মিয়া (৩২), কামাল মিয়া (৩৫), মাঈন উদ্দিন (২০), শরীফুল ইসলাম (২২), রুহুল আমিন (২৮) ও শাজাহান মিয়াকে (২৫)।

মামলার ১৯ আসামির মধ্যে ১৭ জন জামিনে এবং ছাত্রদল কর্মী শরীয়তউল্লাহ সুমন ও খাইরুল ইসলাম কারাগারে ছিল। আজ যুক্তিতর্ক শেষে বাকি ১৭ আসামিকেও কারাগারে প্রেরণ করে আদালত।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর মাহবুবুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, মামলাটিতে রাষ্ট্রপক্ষে আমরা ১৭ জনের সাক্ষ্য দিয়েছি। আসামি পক্ষ ৮ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়েছে। আশা করি আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে।

মাসুদুর হত্যার ঘটনায় মেয়রসহ মোট ১৪ জনকে আসামি করা হয়েছিল। মামলার তদন্তে আরও পাঁচজনকে এ মামলার আসামি করা হয়েছে। এ পাঁচজন হলেন কামাল মিয়া (৩৫), মাঈন উদ্দিন (২০), শরীফুল ইসলাম (২২), রুহুল আমিন (২৮) ও শাজাহান মিয়া (২৫)।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ১৭ অক্টোবর রাতে পৌর শহরের পানমহালে একদল সন্ত্রাসী শুভ্রকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় শুভ্রর ছোট ভাই আবিদুর রহমান বাদী হয়ে ১৯ অক্টোবর গৌরীপুর থানায় উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও মইলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদ ও পৌরসভার মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলামসহ নাম উল্লেখ ১৪ জন ও অজ্ঞাত ৭-৮ জনকে বিরুদ্ধে মামলা করেন। গত বছর পাঁচ মে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ মামলার তদন্ত শেষে ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদ, মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম সহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

মাসুদুরের পরিবারের অভিযোগ, মাসুদুর গত জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত গৌরীপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন। এ কারণে তৎকালীন পৌর মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম এ হত্যায় ইন্ধন দিয়েছেন।

এনজে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়