ফ্লাইট জটিলতা, সাকিবের ফটোসেশন মিস

আগের সংবাদ

ক্ষুদে নায়ক শেহজাদ খান বীর, শাকিব-বুবলীর আদরের ছেলে

পরের সংবাদ

দূর্গোৎসবে শুভেচ্ছা বিনিময়কালে রাষ্ট্রপতি

ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সুসংহত হোক সম্প্রীতি

প্রকাশিত: অক্টোবর ৫, ২০২২ , ৯:৪৪ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৫, ২০২২ , ৯:৪৭ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশসহ বিশ্বের হিন্দু ধর্মাবলম্বী সবাইকে বিজয়ার শুভেচ্ছা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ বলেছেন, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সুসংহত হোক সম্প্রীতি। বুধবার (৫ অক্টোবর) শুভ বিজয়া উপলক্ষে বঙ্গভবনে হিন্দু ধর্মাবলম্বী বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে মত বিনিময়কালে এ কথা বলেন তিনি।

বিনিময়ের শুরুতেই রাষ্ট্রপতি বলেন, আমি গভীর বেদনাও দুঃখ ভারাক্রান্ত হৃদয়ে গত ২৫ সেপ্টেম্বর পঞ্চগড় জেলার করতোয়া নদীতে নৌকাডুবিতে ৭০ জন পুণ্যার্থীর অকাল প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশ করছি এবং আহতদের আশু আরোগ্য কামনা করছি। আমি শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। মহান সৃষ্টিকর্তা নিহতদের আত্মার শান্তি দান করুন।

বিজয়া উৎসব আবহমানকাল থেকে সর্বজনীন উৎসব হিসেবে পালিত হয়ে আসছে মন্তব্য করে আব্দুল হামিদ বলেন, পূজা অর্চনার পাশাপাশি সমাজের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতি ও মেলবন্ধন সৃষ্টিতেও এ উৎসব একটি প্রধান উপলক্ষ্য। এ বছর এমন একটি সময় দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে যখন সারাবিশ্ব করোনার ছোবলে বিপর্যস্ত। তার উপর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বিশ্বব্যাপী অস্থির ও সংঘাতময় পরিস্থিতির জন্ম দিয়েছে। বিশ্ববাসী চরম অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে দিনাতিপাত করছে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বিশ্ব অর্থনীতিতে প্রতিনিয়ত মন্দার ধাক্কা লাগছে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে পরমত সহিষ্ণুতা, পারস্পরিক আস্থা ও বিশ্বাস আর সহযোগিতার কোনো বিকল্প নেই। দুর্গাপূজায় আমরা অবশ্যই আনন্দ উৎসব করব। কিন্তু সাথে সাথে এটাও মনে রাখতে হবে যেন আমাদের প্রতিবেশী, বন্ধুবান্ধব ও আত্মীয়-স্বজন তারাও যেন এই আনন্দ থেকে বঞ্চিত না হয়।

তিনি আরও বলেন, আমরা স্বাধীন দেশের নাগরিক। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান নির্বিশেষে রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। দেশ গঠন ও জাতীয় উন্নয়নেও আমরা ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। এখানে মেজরিটি বা মাইনরিটির কোনো স্থান নেই। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানে বৈষম্যহীনভাবে সকলের সমান অধিকারের নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছে। তাই বাংলাদেশের সকল ধর্মের মানুষ তাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান যথাযথ মর্যাদা ও আনন্দঘন পরিবেশে উদযাপন করবে-এটাই সকলের প্রত্যাশা।

সবাইকে সজাগ থাকতে আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, ছোটো খাটো দুই একটি ঘটনা ছাড়া যতদূর জেনেছি এ বছর বেশ উৎসবমুখর পরিবেশে দূর্গোৎসব পালিত হয়েছে যদিও গতকাল (সোমবার) অনাকাঙ্ক্ষিত বিদ্যুৎ বিভ্রাটের জন্য কিছুটা বিঘ্ন ঘটেছে। আমি আশা করব, সামনের দিনগুলোতে ধর্মীয় সকল উৎসব আরও সুন্দর ও জাঁকজমকপূর্ণভাবে পালিত হবে। তবে এর জন্য সকলকে সজাগ থাকতে হবে কেউ যাতে ব্যক্তি বা গোষ্ঠী স্বার্থ উদ্ধারে ধর্মকে ব্যবহার করে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে না পারে।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বাঙালির চিরকালীন ঐতিহ্য মন্তব্য করে আব্দুল হামিদ বলেন, সম্মিলিতভাবে এ ঐতিহ্যকে এগিয়ে নিতে হবে আমাদের সামগ্রিক অগ্রযাত্রায়। শারদীয় দুর্গোৎসব সত্য-সুন্দরের আলোকে ভাস্বর হয়ে উঠুক; ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার মধ্যে সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যের বন্ধন আরও সুসংহত হোক।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়