রাশিয়ার জন্য দুটি পথ খোলা

আগের সংবাদ

রাতের নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

নিজ প্রতিষ্ঠানে ৮ ফুটবলারকে সংবর্ধনা

প্রকাশিত: অক্টোবর ১, ২০২২ , ৮:২১ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১, ২০২২ , ৮:২১ অপরাহ্ণ

গারো পাহাড়ের পাদদেশের প্রত্যন্ত গ্রাম কলসিন্দুর থেকে হিমালয় জয় করা ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার কলসিন্দুরের আট ফুটবল কন্যার রাজসিক প্রত্যাবর্তন হয়েছে নিজ এলাকায়। সাফজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের কলসিন্দুরের আট সদস্যকে ২নং গামারিতলা ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন খান এক জমকালো সংবর্ধনা প্রদান করেছেন।

শনিবার (১ অক্টোবর) বিকেলে সাফজয়ী কলসিন্দুরের আট কৃতি খেলোয়াড়দের শুরু থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে বেড়ে ওঠা সেই কলসিন্দুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কলসিন্দুর সরকারি উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় খেলার মাঠে এই সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। সংবর্ধনা পাওয়া সাফজয়ী আট ফুটবলার হলেন- সানজিদা আক্তার, শিউলি আজিম, মার্জিয়া আক্তার, মারিয়া মান্দা, তহুরা বেগম, সাজেদা আক্তার, শামসুন্নাহার সিনিয়র ও শামসুন্নাহার জুনিয়র। জমকালো এমন সংবর্ধনা পেয়ে উচ্ছ্বসিত নারী ফুটবলাররা।

একই অনুষ্ঠানে কলসিন্দুর সরকারি উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকেও সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। আজ থেকে প্রায় একযুগ আগে এ মাঠে খেলোয়াড় তৈরির কারিগর মফিজ উদ্দিন এর কোচিং ও সার্বিক তত্ত্বাবধানে খেলা খেলেই এই মেয়েরা ধুকতে থাকা ফুটবল অঙ্গনে আলো ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছিল।

সাফজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের কলসিন্দুরের আট সদস্যকে ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার ২নং গামারিতলা ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ জমকালো সংবর্ধনা প্রদান। ছবি: ভোরের কাগজ

এখান থেকেই খেলে সানজিদা, মারিয়া, তহুরারা বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টে প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যায়ে তিনবার চ্যাম্পিয়ন এবং উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজ পর্যায়ে গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় চারবার চ্যাম্পিয়ন ও একবার রানার্সআপ হয়েছিলেন। এছাড়াও এই মেয়েরা ডিএফএ শিরোপা অর্জন করেছিলেন। বর্তমানে সাফ চ্যাম্পিয়নশীপ- ২০২২ এ দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশকে শ্রেষ্ঠত্বের আসনে আসীন করে আজকে এই মাঠেই গণ সংবর্ধনায় ভাসছে তারা।

সাজেদা আক্তার বলেন, ‘আমরা আগেও বিভিন্ন খেলায় জয়লাভ করেছি। কিন্তু নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এবং যে মাঠে আমরা খেলা শুরু করেছিলাম সেই মাঠে আপনাদের এতো ভালোবাসা পেয়ে আমরা খুবই খুশি, খুবই গর্বিত, আপনারা দোয়া করবেন আমরা যেন জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে পারি। এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রথম আলো পত্রিকার সহযোগী সম্পাদক ও কিশোর আলোর সম্পাদক আনিসুল হক।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান ডেভিড রানা চিসিম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফৌজিয়া নাজনীন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল ফজল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা খাতুন, কলসিন্দুর সরকারি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ রতন মিয়া, সহকারী অধ্যাপক মালা রাণী সরকার, কলসিন্দুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিনতি রাণী শিল, রনসিংহপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মেয়েদের প্রথম কোচ মফিজ উদ্দিন, বর্তমান কোচ জুয়েল মিয়া প্রমুখ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান ডেভিড রানা চিসিম বলেন, যদি আমাকে ধোবাউড়া উপজেলার এচিভমেন্ট সম্পর্কে কেউ জানতে চাই, তাহলে আমি উত্তর করবো সানজিদা আক্তার, মারিয়া মান্দা, শামসুন্নাহার সিনিয়র, শামসুন্নাহার জুনিয়র, শিউলি আজিম, মার্জিয়া আক্তার, তহুরা খাতুন, সাজেদা আক্তার আমাদের ধোবাউড়াবাসীর বড় এচিভমেন্ট।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়