গুলাম নবী আজাদের রাজনৈতিক দলের নাম ঘোষণা

আগের সংবাদ

নিস্তব্ধ ঘুমধুম তুমব্রু সীমান্ত, স্বস্তি মানুষের মনে

পরের সংবাদ

২০১৭ সালের পদদলিত

মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন শাহরুখ খান

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২ , ৯:২১ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২ , ৯:২৩ অপরাহ্ণ

ভারতে গুজরাট হাইকোর্টের রায় বহাল রেখে শাহরুখ খানকে মুক্তি দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। সেই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে দায়ের করা ভাদোদরা রেলওয়ে স্টেশনে ২০১৭ সালের পদদলিত হওয়ার ঘটনা সম্পর্কিত মামলাটি বাতিল করেছে আদালত। সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি অজয় ​​রাস্তোগি এবং বিচারপতি সিটি রবিকুমারের একটি বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন। এর আগে আদালতে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন কংগ্রেস নেতা জিতেন্দ্র সোলাঙ্কি।

এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, শাহরুখ খানের বিরুদ্ধে দায়ের করা অভিযোগকারীর আবেদন খারিজ করে দেয়। অভিযোগকারী গুজরাট হাইকোর্টের একটি আদেশকে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। কিন্তু গুজরাটের হাইকোর্টের দেওয়া আদেশে হস্তক্ষেপ করতে রাজি হোননি ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।

এর আগে ২০১৭ সালে শাহরুখের চলচ্চিত্র রইসের প্রচার করার সময় ভাদোদরা রেলওয়ে স্টেশনে পদদলিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছিল। সে ঘটনায় শাহরুখ খানের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হলে চলতি বছরের ২৭ এপ্রিল গুজরাট হাইকোর্ট তা বাতিল করার আদেশ দেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, অভিযোগকারী জিতেন্দ্র মধুভাই সোলাঙ্কি ভাদোদরার ফার্স্ট ক্লাস জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে শাহরুখ খানের বিরুদ্ধে একটি ব্যক্তিগত অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। তার দাবি, ভাদোদরা রেলওয়ে স্টেশনে শাহরুখ খানের উপস্থিতির কারণে সেখানে অনেক মানুষ জড়ো হয়েছিল। ভিড়ের দিকে লক্ষ্য করে শাহরুখ টি-শার্ট এবং স্মাইলি বল ছুঁড়ে মারায় পদদলিত হওয়ার ঘটনা ঘটে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে শাহরুখ খান তার চলচ্চিত্র রইসের প্রচারের জন্য মুম্বাই থেকে ট্রেনে দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হন। পথে বেশ কয়েকটি স্টেশনে তাঁর ট্রেন থামে, যেখানে শাহরুখ ছবিটির প্রচার করেন। ট্রেনটি গুজরাটের ভাদোদরায়ও থামে এবং শাহরুখকে এক ঝলক দেখার জন্য সেখানে ভিড় জড়ো হয়। সরেজমিনে দেখা যায়, সেখানে পদদলিত হয়ে ফরিদ খান নামের এক ব্যক্তি প্রাণ হারান। এ সময় এতে কয়েকজন আহতও হন। ফরিদ এক আত্মীয়কে স্টেশনে নামাতে আসলেও সে মারা যায়।

সেদিন স্টেশনে আসা হাজার হাজার ভক্ত শাহরুখকে দেখতে চেয়েছিলেন। ভিড় নিয়ন্ত্রণের বাইরে যেতে শুরু করলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। এর পর পদদলিত হয়ে ফরিদ খান মৃত্যুর কবলে ঢলে পড়েন। প্রথম স্টেশনেই অচেতন ফরিদ খানকে চেতনায় আনার চেষ্টা করলেও ফরিদ খানের জ্ঞান ফেরেনি। এরপর দ্রুত তাকে প্ল্যাটফর্ম থেকে বের করে হাসপাতালে পাঠানো হলেও সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেছিলেন।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়