বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা!

আগের সংবাদ

সেপ্টেম্বরে কমেছে প্রবাসী আয়

পরের সংবাদ

আফিফের ব্যাটিং নৈপুণ্যে লড়াকু পুঁজি বাংলাদেশের

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২ , ১০:৩২ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২ , ১০:৩৬ অপরাহ্ণ

দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ১৫৯ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ। নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৫৮ রান সংগ্রহ করে টাইগাররা। জিততে হলে আরব আমিরাতকে করতে হবে ১৫৯ রান।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৭ রান সংগ্রহ করেন আফিফ হোসেন। এছাড়া মেহেদ হাসান মিরাজ ১২, লিটন দাস ১৩, ইয়াসির আলী ৪, মোসাদ্দেক হোসেন ৩, আফিফ হোসেন ৭৭ এবং নুরুল হাসান সোহান ৩৫ রান সংগ্রহ করেন। আরব আমিরাতের হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ তিন উইকেট শিকার করেন সাবির আলী। দুই উইকেট নেন কার্তিক মায়াপ্পান। একটি করে উইকেট শিকার করেন জুনাইদ সিদ্দিকি, জাওয়ার ফরিদ, বাসিল হামিদ।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করতে পরেনি সফরকারীরা। দলীয় ৪৭ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। তখন দলের হাল ধরেন আফিফ হোসেন। দলের বিপদে ব্যাট হাতে গর্জে ওঠেন তিনি। এর আগে দলীয় ১১ রানে ওপেনার সাব্বির রহমান আউট হন। তিনি রানের খাতা খোলার আগে সাজঘরে ফিরেন। এরপর ক্রিজে আসেন অভিজ্ঞ টাইগার ব্যাটসম্যান লিটন দাস। তিনি আরেক ওপেনার মেহেদি হাসান মিরাজকে ভালই সঙ্গ দিচ্ছিলেন। কিন্তু দ্রুত রান তুলতে গিয়ে দলীয় ২৬ রানে আউট হন লিটন।

৮ বলে ৩ টি চার মেরে ১৩ রানে সাজঘরে ফিরেন তিনি। এরপর মিরাজও তাড়াহুড়ো করে রান তুলতে গিয়ে আউট হন। ১৪ বলে ১২ রান করেন তিনি। দলীয় ৪৭ রানে সাজঘরে ফিরেন ইয়াসির আলী। তিনি ব্যক্তিগত ৪ রানে বোল্ড হন। ৪ উইকেট হারানোর পর মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও আফিফ মিলে ২৩ বলে ৩০ রানের জুটি গড়েন। কিন্তু কার্তিক মায়াপ্পানের করা একাদশ ওভারের শেষ বলে এগিয়ে এসে ব্যাট চালাতে গিয়ে স্ট্যাম্পড হন মোসাদ্দেক। তিনি ৮ বলে ৩ রান করেন।

ত্রিদেশীয় সিরিজের আগে নিজেদের ঝালাই করে নিতে আরব আমিরাত সফর করছে টাইগাররা। সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন নুরুল হাসান সোহান। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ খেলতে আগে থেকেই অনাপত্তিপত্র নেয়া আছে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের। সাকিব দলের সঙ্গে সরাসরি নিউজিল্যান্ডে যোগ দেবেন। আরব আমিরাতের বিপক্ষে দলে ফিরছেন নুরুল হাসান, লিটন দাস, ইয়াসির আলী। চোটের কারণে তারা তিনজন এশিয়া কাপে খেলতে পারেননি। এর আগে জিম্বাবুয়ে সফরে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়েছিলেন লিটন।

ইয়াসিরের চোট অবশ্য তারও আগের, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর থেকেই ফিরে এসেছিলেন তিনি। বিশ্বকাপ দলে আছেন দুজনই। তাছাড়া এশিয়া কাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে সাব্বির-মিরাজকে ওপেন করিয়েছিল বাংলাদেশ। আরব আমিরাতের বিপক্ষেও বিকল্প হয়নি। কিন্তু আরব আমিরাতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে সাব্বির নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। পুল করতে গিয়ে ধরা পড়েন বাউন্ডারি লাইনের কাছে। আউট হন শূন্য রানে। এরপর ক্রিজে এসেই এক বল পর লিটন দারুণ চার হাঁকান। পরের ওভারে দুই চার মেরে আশা দেখাচ্ছিলে তিনি। কিন্তু এরপরেই স্লগসুইপ করতে গিয়ে ধরা পড়েন জুনায়েদের হাতে। এরপর সম্ভাবনা দেখিয়ে আউট হন মিরাজ।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়