বাংলাদেশ ব্যাংক-অগ্রণী ব্যাংক চুক্তি স্বাক্ষর

আগের সংবাদ

ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া রোহিতরা

পরের সংবাদ

বার্সেলোনায় থাকতে যে ৯ শর্ত দিয়েছিলেন মেসি

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২ , ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২ , ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ

লিওনেল মেসি। বার্সেলোনায় ছিল যার বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ায়। তবে ২০২১ সালে গুঞ্জন ওঠে বার্সা ছাড়ছেন মেসি। হয়েছিলও তাই। সে বছরে বার্সেলোনা ছেড়ে ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মানে (পিএসজি) পাড়ি জমান এই আর্জেন্টাইন। এর আগে ২০২০ সালেও মেসি বার্সা ছাড়তে চেয়েছিলেন। বার্সার তৎকালীন সভাপতি জোসেফ বার্তামেউর সঙ্গে ঝামেলার কারণে বার্সা ছাড়ছেন মেসি এসমনটা ধারণা করেছিল অনেকেই। তবে স্প্যানিশ পত্রিকা এল মুন্দো দিল নতুন তথ্য। তাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০২০ সালের ৪ মে বার্তামেউ মেসির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করার জন্য প্রস্তাব দিয়েছিলেন। তবে মেসি বার্সেলোনায় থাকার জন্য জুড়ে দিয়েছিলেন ৯টি শর্ত।

প্রস্তাবে মেসির চুক্তির মেয়াদ ১ বছর বাড়ানোর কথা হয়েছিল। তবে মেসি যদি প্রতি বছর ৩০ এপ্রিলের মধ্যে ক্লাব না ছাড়েন তাহলে সেটা প্রতিবছরই স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাড়তে থাকবে। মেসির আইনজীবী জর্জ পোকেট বার্তামেউ এক সপ্তাহের মধ্যে ৯টি শর্তসহ বার্সেলোনাকে উত্তর পাঠান। মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার দুই মৌসুম হচ্ছে। আবারো তাকে বার্সেলোনায় ফিরিয়ে আনতে আলোচনা করছে ক্লাবটি। মেসির দেয়া ৯টি শর্তের ৬টি মেনে নিয়েছিল বার্সা। দুটিকে প্রত্যাখ্যান করা হলেও একটিতে শর্ত জুড়ে দিয়েছিলেন তৎকালীন বার্সা সভাপতি। তবে মেসি ও তার পরিবারের আপত্তির কারণে চুক্তি নবায়ন সম্ভব হয়নি।

এল মুন্দোর প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২০ সালের ৪ মে মেসির বাবাকে চুক্তি নবায়নের প্রস্তাবপত্র পাঠান তৎকালীন বার্সা প্রেসিডেন্ট জোসেফ মারিয়া বার্তামেউ। যেখানে বলা হয় চুক্তির মেয়াদ হবে ১ বছর। এরপর প্রতি বছরই এটা বাড়তে থাকবে যদি না ৩০ এপ্রিলের মধ্যে মেসি চলে যাওয়ার কথা বলেন।

বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি নবায়নের জন্য যে ৯টি শর্ত দিয়েছিল মেসি:

  • বার্সেলোনার সঙ্গে মেসির নতুন চুক্তি হবে ৩ বছরের।
  • কর্তিত বেতন সুদসহ ফেরত দিতে হবে : করোনার প্রভাবে ২০২০-২১ মৌসুমে সব ফুটবলারের বেতন ২০ শতাংশ কমিয়েছিল বার্সা। যেখানে ছিলেন লিওনেল মেসি নিজেও। মেসি এর পুরোটাই ফেরত চান। এর পাশাপাশি ২০২১-২২ মৌসুমে ১০ শতাংশ, ২০২২-২৩ মৌসুমে বাকি ১০ শতাংশ। শুধু বেতনের কেটে নেয়া অংশই নয়, এর সঙ্গে ৩ শতাংশ সুদও দিতে হবে।
  • নিজের জন্য ও আরেক ফরওয়ার্ড লুইস সুয়ারেজের পরিবারের জন্য ক্যাম্প ন্যুতে প্রাইভেট বক্স রাখতে হবে।
  • বড়দিনের ছুটিতে আর্জেন্টিনায় আসার জন্য পুরো পরিবারকে যাতায়তের জন্য প্রাইভেট বিমান দিতে হবে।
  • নতুন চুক্তির জন্য আরো ১০ মিলিয়ন ইউরো বোনাস দিতে হবে।
  • ন্যূনতম পর্যায়ে রিলিজ ক্লজ আনতে হবে : ২০১৭ সালে বার্সেলোনার সঙ্গে সর্বশেষ চুক্তি করে মেসি। যার রিলিজ ক্লজ ছিল ৭০ কোটি ইউরোর কাছাকাছি। নতুন চুক্তিতে রিলিজ ক্লজ একেবারে কমিয়ে আনার শর্ত দেন তিনি। ৭০ কোটি ইউরো থেকে মাত্র ১০ হাজার ইউরো প্রস্তাব করেন এই তারকা। অর্থাৎ চুক্তি থাকাবস্থায় তিনি ক্লাব ছাড়তে চাইলে বার্সাকে ১০ হাজার ইউরো দিয়েই যেতে পারবেন যে কোনো ক্লাবে।
  • বেতন বৃদ্ধি করা : স্পেন সরকার করের হার বাড়ানোয় বেতন বাবদ আয় কমে যাচ্ছিল মেসির। এ জন্য তিনি বেতন বৃদ্ধির দাবি করেন, যাতে কর পরিশোধ করেও তার আয় আগের চেয়ে কমে না যায়।
  • ব্যক্তিগত সহকারীর চুক্তি নবায়ন : বার্সেলোনায় থাকাকালীন মেসির ব্যক্তিগত সহকারীর দায়িত্বে ছিলেন পেপে কস্তা। বার্সেলোনা তার বেতন পে-রোলে প্রদান করত। ক্লাবের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে তার কাজ বন্ধ করে দেয়ার কথা ভাবছিল বার্সেলোনা বোর্ড। তবে মেসি শর্ত দেন তার পাশাপাশি কস্তার সঙ্গেও চুক্তি নবায়ন করতে হবে বার্সার।
  • ভাইয়ের জন্য কমিশন : মেসির ভাই রদ্রিগো ফুটবলারদের এজেন্ট হিসেবে বার্সেলোনার সঙ্গে কাজ করতেন। সে সময় আনসু ফাতির এজন্টে ছিলেন তিনি। মেসি শর্ত দিয়েছিলেন তার ভাইয়ের সঙ্গেও চুক্তি নবায়ন করতে হবে বার্সার।

শর্তগুলোর মধ্যে বার্সা সভাপতি রিলিজ ক্লজ কমানো এবং চুক্তি নবায়ন বাবদ এক কোটি ইউরো বোনাসের শর্ত বাদে সব শর্ত মেনে নেন। তবে বেতন বাড়ানোর বিষয়টি নিয়ে শর্তারোপ করেন। ক্লাবের আয় ১১০ কোটি ইউরো পার হওয়ার পর বেতনের বিষয়টি বিবেচনা করবেন তারা। যেহেতু বার্সেলোনার আর্থিক অবস্থা খারাপের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল। এরপরেও বার্সায় আর থাকতে চাননি মেসি ও তার পরিবার। ফলে ওই বছরে আগস্টের শেষ সপ্তাহে ক্লাবের কাছে ক্লাব ছাড়ার কথা জানান মেসি। তবে এক বছর মেয়াদ থাকায় বার্সা প্রেসিডেন্ট তাকে অনুমতি দেননি। যে কারণে ১ বছর পর বার্সা ছেড়ে পিএসজিতে যোগদান করেন তিনি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়