সরিষাবাড়ীতে সড়ক দুর্ঘটনায় ইজিবাইক চালকের মৃত্যু

আগের সংবাদ

র‌্যাবের নতুন ডিজি এম খুরশীদ হোসেন

পরের সংবাদ

চিনি ও পাম তেলের দাম কমলো

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২ , ৬:০৫ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২ , ৮:০৬ অপরাহ্ণ

খোলা ও প্যাকেটজাত চিনি এবং পাম তেলের দাম বেঁধে দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এখন থেকে প্রতি কেজি প্যাকেটজাত চিনি সর্বোচ্চ ৮৯ টাকা, খোলা চিনি প্রতি কেজি ৮৪ এবং পাম তেলের লিটার ১৩৩ টাকায় বিক্রি হবে। এ হিসেবে চিনির দাম কেজি প্রতি ৬ টাকা কমেছে এবং পাম তেল লিটারে কমেছে ১২টাকা।

এক বিজ্ঞপ্তিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

এ দুইটি নিত্যপণ্যের মিলগেট, পরিবেশক ও সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে মন্ত্রণালয়। সরকার নির্ধারিত এ দাম আগামী রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) থেকে কার্যকর করা হবে।

এতে বলা হয়েছে, এখন থেকে ১ লিটার পাম সুপার খোলা তেলের মিলগেট দাম হবে ১২৮ টাকা, পরিবেশক মূল্য ১৩০ ও খুচরা পর্যায়ে ১৩৩ টাকায় বিক্রি করতে হবে।

১ কেজি পরিশোধিত চিনির মিলগেট মূল্য হবে ৭৯ টাকা, পরিবেশক পর্যায়ে ৮১ টাকা ও সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য হবে ৮৪ টাকা। এছাড়া প্যাকেটজাত ১ কেজি পরিশোধিত চিনির মিলগেট দাম হবে ৮২ টাকা, পরিবেশক মূল্য ৮৪ টাকা ও সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য হবে ৮৯ টাকা।

বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ১৯৫৬ অনুসারে এ দাম নির্ধারণ করা হয়েছে।

এদিকে খাদ্যপণ্যের দাম নাগালের মধ্যে রাখতে প্রয়োজনে আমদানি করার পক্ষপাতী বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, আমরা শুধু সয়াবিন তেল ও চিনির দাম বেঁধে দিতে পারি। বাকি পণ্যের দাম কৃষি মন্ত্রণালয় ঠিক করবে। এ বিষয়ে আইনি ক্ষমতা তাদের দেয়া হয়েছে।

গত ৩০ আগস্ট বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য, সরবরাহ ও বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত সভায় কয়েকটি নিত্যপণ্যের দাম নির্ধারণ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছিল।

তখন জানানো হয়েছিল, ১৫ দিনের মধ্যে ট্যারিফ কমিশন এসব পণ্যের দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাজার পরিস্থিতি মূল্যায়ন করে একটা যৌক্তিক মূল্য ঘোষণা করবে।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়