সাফজয়ী কৃষ্ণার লাগেজ থেকে হারিয়েছে আড়াই লাখ টাকা

আগের সংবাদ

প্রাইভেটকারে যানজট বাড়লেও নিয়ন্ত্রণে নেই উদ্যোগ

পরের সংবাদ

‘ইভিএম কেনা জাতির সঙ্গে মসকরা’

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২ , ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২ , ১০:৪৩ পূর্বাহ্ণ

নির্বাচন কমিশনের আরো ২ লাখ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কেনার প্রকল্পকে ‘জাতির সঙ্গে মসকরা’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, যেখানে নির্বাচন কমিশনকে প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দল বলেছে তারা ইভিএম চায় না, সেখানে ইসি ১৫০টি আসনের জন্য আরো ইভিএম মেশিন কিনতে ৮ হাজার ৭১১ কোটি টাকা চেয়েছে। এটা মগের মুলুক। কারণ এ দেশে কোনো জবাবদিহি করতে হয় না।

গতকাল বুধবার গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। মির্জা ফখরুল বলেন, কয়েকদিন আগে ক্যাবিনেট সেক্রেটারি প্ল্যানিং কমিশনের মিটিংয়ে খুব স্পষ্ট করে বলেছেন, এখানে যে বেশিরভাগ প্রকল্প তৈরি করা হয়, সেই প্রকল্প তৈরি করা হয় চুরির জন্য এবং দেখা যায় যে বাস্তবতার সঙ্গে বিশাল ফারাক। এখানে কোনো পর্যালোচনা পর্যন্তও করা হয় না। এখানে মধ্যরাতে ঋণ চুক্তি করা হয়।

তিনি বলেন, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত পুলিশ বিএনপিসহ বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করার নামে হয়রানি করছে এবং দেশে বিরাজমান পরিস্থিতিকে আরো আতঙ্কগ্রস্ত করে তুলেছে। বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ রাজনৈতিক কর্মীদের একজনের কাছ থেকে অন্যজনের তথ্য সংগ্রহেও লিপ্ত রয়েছে। বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনগুলোর কমিটির তালিকাও তারা সংগ্রহ করছে।

পুলিশের এ ধরনের কর্মকাণ্ড সংবিধান, ফৌজদারি কার্যবিধি, পুলিশ আইন বা পুলিশবিধি কিংবা অন্য কোনো আইন দ্বারা কোনোভাবে সমর্থনযোগ্য নয় বলে মন্তব্য করেন ফখরুল। তার ভাষ্য, এটা একদিকে যেমন নাগরিকের গোপনীয়তার অধিকার ক্ষুণ্ন করছে, অন্যদিকে তেমনি নাগরিকের আইনি অধিকার ভোগ করা এবং তার ব্যক্তি স্বাধীনতার ওপর নগ্ন হস্তক্ষেপ বলে প্রতীয়মান হয়, যা সংবিধানের ৩১, ৩২ ও ৪৩ অনুচ্ছেদের স্পষ্ট লঙ্ঘন।

ফখরুল বলেন, পুলিশ বিএনপিসহ ভিন্ন মতাবলম্বীদের দমনের উদ্দেশে তাদের গণহারে শুধু নাম-ঠিকানা নয়, তাদের পেশা, সন্তান-সম্পত্তির বিবরণসহ যাবতীয় বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করছে, ?যা দেশের বিরাজমান আতঙ্কের পরিস্থিতিকে আরো ভয়াবহ করে তুলেছে। জেলা-উপজেলা পর্যায়ের আন্দোলনে নেতাকর্মীদের উপস্থিতি বৃদ্ধি পাওয়ায় পুলিশ এমন কর্মকাণ্ড শুরু করেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়