আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদকে দুই কোটি টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

আগের সংবাদ

দ্বিতীয় ও বুস্টার ডোজে মিলবে ফাইজারের টিকা

পরের সংবাদ

সেই চিকিৎসকের আরো অবৈধ সেবা প্রতিষ্ঠানের খোঁজ

প্রকাশিত: আগস্ট ১৪, ২০২২ , ১০:০৪ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০২২ , ১০:০৫ অপরাহ্ণ

বাতিল হতে পারে বিএমডিসির সনদ

সাংবাদিক হাসান মিসবাহর উপর হামলাকারি চিকিৎসক ডা. এম এইচ উসমানীর আরো কয়েকটি অবৈধ স্বাস্থ্য সেবা প্রতিষ্ঠানের সন্ধান পাওয়া গেছে। মেয়াদ উত্তীর্ণ লাইসেন্স দিয়ে চলছে ডা. উসমানীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান লাইফ কেয়ার মেডিকেল সেন্টার ও রিভার সাইড হাসপাতালের কার্যক্রম। এখানেই শেষ নয় ভিজিটিং কার্ড বা নামফলকে ডা. উসমানি যেসব ডিগ্রি ব্যবহার করছেন সেসবেরও নেই বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) অনুমোদন। তার ব্যবহৃত ডিগ্রির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে বিএমডিসি বোর্ড। আইন বহির্ভুত ডিগ্রি ব্যবহারের দায়ে বাতিল হতে পারে তার রেজিস্ট্রেশন। নিষিদ্ধ হতে পারে চিকিৎসা সেবা দেয়া থেকেও। এমনটাই জানিয়েছেন বিএমডিসির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্টার ডা. আরমান হোসেন।

এছাড়া বিএমডিসির নিবন্ধন না থাকার পরও নিয়মিত রোগী দেখছেন ডা. উসমানির স্ত্রী ডা. শারমিন জাহান ছন্দাও। তিনি পশ্চিম হাজারীবাগে লাইফ এন্ড কেয়ার হাসপাতাল লিমিটেডে স্ত্রী ও প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন হিসেবে রোগী দেখে আসছিলেন।

প্রসঙ্গত; গত ৯ আগস্ট রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে এসপিএ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে বিএমডিসি’র সনদ ছাড়াই রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে এমন খবরের ভিত্তিতে পেশাগত দায়িত্ব পালন কালে হাসান মিসবাহর ওপর হামলা চালায় ওই হাসপাতালের সংশ্লিষ্টরা। এসময় তার ক্যামেরাম্যান ও গাড়ি চালককেও মারধর করে ক্যামেরা ও গাড়ী ভাঙচুর করা হয়। বর্তমানে হাসান মিসবাহ রাজধানী একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এই ঘটনায় মামলা দায়ের করেন হাসান মিসবাহ। এর প্রেক্ষিতে ক্লিনিকের মালিক ডা. এম এইচ উসমানীসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রতিষ্ঠানটির লাইসেন্স না থাকায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর তা বন্ধ করে দিয়েছে।

এদিকে সাংবাদিককে হত্যা চেষ্টা মামলায় ৪ আসামীর জামিন আবেদন খারিজ করে গতকাল রবিবার তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সংগঠনের কার্যনির্বাহী সদস্য মিসবাহর উপর এমন সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় শুরু থেকেই প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরাম (বিএইচআরএফ)। ডা. উসমানির বিএমডিসির নিবন্ধন বাতিলের দাবি সংগঠনটির। এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। শনিবার এক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, এ বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং অনাকাঙ্খিত। হাসান মিসবাহর সর্বোচ্চ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা ও প্রয়োজনে আর্থিক সহয়তা দিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন তিনি। এছাড়া স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি সরকারের অন্যান্য মন্ত্রণালয় ও সংস্থাকে বিষয়টিকে গুরুত্বের সাথে নেয়ার অনুরোধ করেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়