আগারগাঁওয়ে রেস্টুরেন্টে আগুন, দগ্ধ ২

আগের সংবাদ

লজ্জার হারে ৮৫ বছর আগের দুঃস্বপ্ন ফিরিয়ে আনল ইউনাইটেড

পরের সংবাদ

সুইস রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য রাষ্ট্রকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলেছে: হাইকোর্ট

প্রকাশিত: আগস্ট ১৪, ২০২২ , ১২:৪৭ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০২২ , ৩:২৮ অপরাহ্ণ

# ৬৭ জনের তথ্য চাওয়া হয়
# সর্বশেষ গত ১৭ জুন তথ্য চাওয়া হয়

বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ডের বক্তব্য রাষ্ট্রকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেন হাইকোর্ট। সেই সঙ্গে রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য প্রত্যাহার করা ছাড়া কোনো উপায় নেই বলেছেন আদালত। আদালত বলেন, রাষ্ট্রদূত কীভাবে বললেন বাংলাদেশিদের অর্থ জমার বিষয়ে কোনো তথ্য চাওয়া হয়নি তা আমাদের বোধগম্য নয়।

আদালত রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের আইনজীবীর উদ্দেশে করে বলেন, আপনারা যে তথ্য উপস্থাপন করেছেন তাতে প্রমাণিত রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য সাংঘর্ষিক। রবিবার (১৪ আগস্ট) বাংলাদেশের আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা বিএফআইইউয়ের প্রতিবেদন হাইকোর্টে জমা দেয়ার পর এ বিষয়ে শুনানিতে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

বিএফআইউয়ের প্রতিবেদন বলা হয়, ২০১৩ সালের জুলাইতে এগমন্ড সিকিউর ওয়েব-ইএসডব্লিউ’র সদস্য হওয়ার পর চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত ৬৭ জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে তথ্য চায় বাংলাদেশ। গত ১৭ জুন সুইজারল্যান্ডের আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা এফআইইউয়ের কাছে এ সংক্রান্ত তথ্য চেয়েছিল বিএফআইইউ। কিন্তু একজন ছাড়া অন্যদের বিষয়ে কোনো তথ্য নেই বলে জানায় সুইজারল্যান্ড। আর এ একজনের তথ্য দুদককে দিয়েছে বিএফআইইউ।

অবৈধ উপায়ে বাংলাদেশিরা সুইস ব্যাংকে যেসব অর্থ জমা রেখেছেন বা পাচার করেছেন সেসব বিষয়ে সুইস ব্যাংক থেকে পাচারকারী অর্থের তথ্য কেন চাওয়া হয়নি তা সরকার এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কাছে জানতে চায় হাইকোর্ট। সেই সঙ্গে এ বিষয়ে তাদের কী পদক্ষেপ জানতে চেয়েছেন আদালত। বাংলাদেশ পাচারকৃতদের তথ্য না চাওয়ার বিষয়ে সুইস রাষ্ট্রদূতের বক্তব্যে আমলে নিয়ে গত বৃহস্পতিবার স্বপ্রণোদিত হয়ে দুদক এবং রাষ্ট্রপক্ষের কাছে এই তথ্য জানতে চায় হাইকোর্টে। সে বিষয়ে আজ প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়।

বিশ্বব্যাপী অর্থ পাচার ও সন্ত্রাসীকাজে অর্থায়ন প্রতিরোধ, অনুসন্ধান ও তদন্তের জন্য তথ্য আদান-প্রদানের মাধ্যম হলো এগমন্ড সিকিউর ওয়েব (ইএসডব্লিউ)। এর মাধ্যমে বিএফআইইউ বিদেশি এফআইইউদের সঙ্গে তথ্য আদান-প্রদান করে থাকে।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়