এসএমই খাতে অর্থায়নে ব্যাংকগুলোকে আহবান

আগের সংবাদ

শিশু ভূমিষ্ঠ হলেই দিতে হয় চাঁদা, উত্তরায় তৃতীয় লিঙ্গের ৪ জন গ্রেপ্তার

পরের সংবাদ

টেলিটকের সাবেক ব্যবস্থাপকের ১২ বছর কারাদণ্ড

প্রকাশিত: আগস্ট ১৪, ২০২২ , ৮:২১ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০২২ , ৮:২১ অপরাহ্ণ

অর্থপাচার আইনে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপক (চাকুরীচ্যুত) শাহ মো. জোবায়েরকে ১২ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।কারাদেণ্ডের পাশাপাশি তাকে ১১ কোটি ৫০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড করে রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রবিবার (১৪ আগস্ট) ঢাকার বিশেষ দায়রা জজ আদালত-৮ এর বিচারক মো. বদরুল আলম ভূঞা এ রায় ঘোষণা করেন। তবে রায় ঘোষণার সময় আসামি জোবায়ের পলাতক থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

২০১৭ সালের ৩ অক্টোবর দুদকের উপ-পরিচালক নাসির উদ্দিন শাহ মো. জোবায়েরকে আসামি করে গুলশান থানায় মামলা করেন। মামলায় অভিযোগ করা হয়, ২০০৫ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৫ সালের জুন মাস পর্যন্ত বেতন ভাতা বাবদ ৫৯ লাখ ৫৬ হাজার টাকা উপার্জন করেন। অপরদিকে রাজধানীর উত্তরার এইচএসবি শাখায় সঞ্চয়ী হিসাবে বেতন বর্হিভূত দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত ৯ লাখ ২৫ হাজার টাকা জমা করে এফডিআর এ রুপান্তর করেন। এছাড়া প্রাইম ব্যাংকে দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত ৩৬ লাখ ৮৫ হাজার ৬৯৮ দশমিক ৫৯ টাকা জমা করেন। যার মধ্যে ৩১ লাখ ২০ হাজার টাকার এফডিআর ও ৪ লাখ ২৭ হাজার ২৬৫ টাকা ৩৭ টাকা অন্যস্ত্র স্থানান্তর করেন।

তাছাড়াও আসামি ব্র্যাক ব্যাংকে দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত ৪ কোটি ৭৮ লাখ টাকা জমা ও উত্তোলন করেন। বেসিক ব্যাংকে আসামি দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত ২ লাখ ৪০ হাজার টাকা জমা ও উত্তোলন করেন। এভাবে আসামি জোবায়ের বেতন-ভাতাদি বাদে দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত সর্বমোট ৫ কোটি ৭৪ লাখ ৭০ হাজার ৬৮৭ টাকা অর্জন করে এবং অন্যত্র স্থানান্তর করেন। যা মানিলন্ডারি প্রতিরোধ আইনের মধ্যে পড়ে। মামলার বিচার চলাকালে আদালত ১৮ জন সাক্ষীর মধ্যে ১০ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়