শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিগগিরই দু’দিন ছুটির কথা ভাবা হচ্ছে: শিক্ষামন্ত্রী

আগের সংবাদ

ফেনীতে বিএনপি-ছাত্রলীগ সংঘর্ষে আহত ১০

পরের সংবাদ

প্রেমিকের বিয়ের খবরে প্রেমিকার বিষপান

প্রকাশিত: আগস্ট ১২, ২০২২ , ৫:১০ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১২, ২০২২ , ৫:১০ অপরাহ্ণ

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলায় প্রেমিকের বিয়ের খবরে প্রেমিকার বিষপানে আত্মহত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। তবে নিহতের পরিবারের দাবি, প্রেমিক ওই মেয়েকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করেছে।

এ ঘটনায় শুক্রবার (১২ আগস্ট) দুপুর আড়াইটা দিকে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার জপসা ইউনিয়নের শেখপুরাকান্দি নিহতের পরিবার সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

এ সময় নিহতর মা আমেনা বেগম, বাবা নিজাম খান, মামা বোরহান উদ্দিন মাদবর, সামাদ মাদবর, মামাত বোন সাদিয়া আক্তার, সামিয়া আক্তার, মামি ফরিদা বেগম, সাহানাজ বেগম উপস্থিত ছিলেন।

নিহত নুসরাত জাহান (১৫) নড়িয়া উপজেলার জপসার লক্ষ্মীপুর গ্রামের নিজাম খানের মেয়ে। নড়িয়া মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল অ্যান্ড কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের দশম শ্রেণির ছাত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে নিহতের মা আমেনা বেগম ও মামা বোরহান উদ্দিন মাদবর বলেন, নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর কাঠপট্টি গৌড়াইল এলাকার ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন হাওলাদারের ছেলে আল আমিন হাওলাদার (২৪) এলাকার বখাটে। স্কুলে যাওয়ার পথে নুসরাত জাহানকে উত্ত্যক্ত করতো আল আমিন। একপর্যায়ে নুসরাতকে মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে প্রেম করাতে বাধ্য করায়। বিয়ের আশ্বাসে একবছর যাবত প্রেমে জড়ায় নুসরাত।

কিন্তু নুসরাতকে বিয়ে না করে ঢাকার কেরানীগঞ্জ এলাকার এক মেয়েকে মঙ্গলবার বিয়ে করে আল আমিন। আগেরদিন সোমবার রাত ৯টার দিকে বিয়ের খবর শুনে ক্ষোভে দুঃখে লক্ষ্মীপুর নিজের কক্ষে বিষপান করে। পরিবার তাকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। রাত তিনটার দিকে নুসরাত মারা যায়। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। মঙ্গলবার নুসরাতের মামা বোরহান উদ্দিন মাদবর বাদী হয়ে নড়িয়া থানায় আলআমিনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

এদিকে, আল আমিনের বাবা দেলোয়ার হোসেন হাওলাদার বলেন, আমার ছেলে আলআমিনের সঙ্গে নুসরাতের সম্পর্ক ছিল। বিষয়টি জানার পরে নুসরাতের বাড়িতে আমি বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে যাই। কিন্তু রাজি হয়নি তারা। তাই ছেলেকে অন্যত্র বিয়ে করাই।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম বলেন, এই ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। মামলার আসামি আলআমিন পালিয়ে বেড়াচ্ছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

টিএপি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়