নাজমুল হুদার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য ১৫ সেপ্টেম্বর

আগের সংবাদ

বিচারপ্রার্থীদের দুর্ভোগ লাঘবে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে ‘ন্যায়কুঞ্জ’

পরের সংবাদ

প্রেমের কলহে রাজধানীর হোটেলে চিকিৎসককে হত্যা

প্রকাশিত: আগস্ট ১১, ২০২২ , ২:৩৯ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১১, ২০২২ , ৩:২১ অপরাহ্ণ

রাজধানীর পান্থপথে একটি আবাসিক হোটেলে জান্নাতুল নাইম সিদ্দিকা (২৭) নামে এক চিকিৎসক খুনের পেছনে প্রেমের কলহ কাজ করতে পারে। বিশেষ করে, নিহত জান্নাতুলের পরিবার তার প্রেমিক রেজাউল করিম রেজার সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি ছিল না। এটি নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝামেলা হতো। হয়তো এই কলহের জন্যেই পরিকল্পিতভাবে আবাসিক হোটেলে নিয়ে জান্নাতুলকে হত্যা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) দুপুরে নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির ডিসি (মিডিয়া) মো. ফারুক হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, খুনি যেহেতু চিহ্নিত, তাকে গ্রেপ্তার করা গেলেই খুনের রহস্য স্পষ্ট হওয়া যাবে। তবে প্রাথমিক তদন্তে আমরা জানতে পেরেছি, জান্নাতুলের পরিবার ওই ছেলের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি হচ্ছিল না। এটি নিয়ে তাদের প্রেমের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না। এর আগেও স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে তারা একাধিক আবাসিক হোটেলে থেকেছেন বলেও জানিয়েছেন ডিসি।

আরও পড়ুন : রাজধানীর হোটেলে নারী চিকিৎসককে খুন

গত বুধবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করে কলাবাগান থানা পুলিশ। এরপর ময়নাতদন্তে জন্য মধ্যরাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়। সুরতহাল প্রতিবেদনে কলাবাগান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নার্গিস আক্তার উল্লেখ করেন, তার থুতনি, ঠোঁট ও গলায় সাড়ে আট ইঞ্চি, বাম কাঁধে দেড় ইঞ্চি, দুই বৃদ্ধাঙ্গুলিতে, বুকের মাঝখানে, পেটে ছয়টা কাঁটা জখম রয়েছে। এছাড়া, তার পিঠে একটি, বাম পায়ের হাঁটুর ওপর ও হাঁটুর নিচে কাঁটা জখম রয়েছে।

তিনি অন্তঃসত্ত্বা কিংবা ধর্ষণ হয়েছেন কিনা তাও ময়নাতদন্তের মাধ্যমে ফরেনসিক বিভাগের চিকিৎসকদের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে।

এদিকে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে নিহত জান্নাতুলের বাবা অবসরপ্রাপ্ত চিকিৎসক মো. শফিকুল আলম বলেন, তাদের গ্রামের বাড়ি নরসিংদির মনোহরদি উপজেলার চন্দনবাড়ি গ্রামে। রাজারবাগ ২ নম্বর মোমেনবাগ, দোলনচাঁপা ভবনে থাকেন। মগবাজার কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ থেকে সদ্য এমবিবিএস পাস করেন জান্নাতুল। এরপর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গাইনি বিষয়ে একটি কোর্সে অধ্যয়নরত ছিলেন।

তিনি বলেন, বুধবার সকাল আটটার দিকে জান্নাতুল বাসা থেকে বের হন ক্লাসের কথা বলেন। ১০টার দিকে বাসায় ফিরবেন বলে জানান। তবে বাসায় না ফেরায় ১১টার দিকে তার ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হই।

অভিযুক্ত রেজাউল করিম রেজার পরিচয় সম্বন্ধে তিনি বলেন, একদিন তার সঙ্গে বন্ধু হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি কক্সবাজার। গাজীপুর জয়দেবপুর একটি বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত। এর বেশি কিছু আর শুনিনি।

মেয়ের নির্মম হত্যার বিচার চেয়ে জান্নাতুলের বাবা আরও বলেন, জানের বদলে জান চাই আমি। তার কঠিন শাস্তি চাই। ফাঁসি চাই।

কলাবাগান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, বুধবার সন্ধ্যার পর পান্থপথে ফ্যামিলি সার্ভিস অ্যাপার্টমেন্ট নামের আবাসিক হোটেলটির ৩০৫ নম্বর রুমে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে রেজাউল করিম রেজা নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে উঠেছিলেন জান্নাতুল। এরপর রেজাউল জান্নাতুলকে গলা কেটে হত্যা করে পালিয়ে যান বলে ধারণা করা হচ্ছে। রেজাউলকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়