মেসি-নেইমারদের শাস্তি দিতে নাইটক্লাবে ঘুরছেন কোচ

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব পদক পাচ্ছেন ৫ বিশিষ্ট নারী

প্রকাশিত: আগস্ট ৬, ২০২২ , ৩:৫২ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ৬, ২০২২ , ৩:৫২ অপরাহ্ণ

বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বিশিষ্ট ৫ নারীকে এ বছর বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব পদক-২০২২ দেয়া হবে। এই পদক নারীদের অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ‘ক’ শ্রেণীভুক্ত সর্বোচ্চ জাতীয় পদক। এ বছর সরকার, রাজনীতি ক্ষেত্রে সিলেট জেলার সৈয়দা জেবুন্নেছা হক, অর্থনীতি ক্ষেত্রে কুমিল্লা জেলার সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ, শিক্ষা ক্ষেত্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপচার্য (প্রো-ভিসি) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ, সমাজসেবা ক্ষেত্রে কিশোরগঞ্জ জেলার মোছা. আছিয়া আলম এবং স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ ক্ষেত্রে গোপালগঞ্জ জেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা আশালতা বৈদ্যকে (যুদ্ধকালীন কমান্ডার) এই পদক দিচ্ছে সরকার। এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য অবহিত করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। সকালে রাজধানীতে বাংলাদেশ শিশু একাডেমির সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এই সংবাদ সম্মেলনে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন এবং বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব পদক বিতরনের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী সোমবার (৮ আগস্ট) সকাল ১০টায় গণভবন থেকে অনলাইনে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন এবং বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব পদক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা ও অনলাইনে আরও সংযুক্ত থাকবে গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক।

এদিকে, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় বঙ্গমাতার জন্মদিনে অস্বচ্ছল নারীদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে সেলাই মেশিন ও আর্থিক অনুদান দিয়ে আসছে। এবারও সাম্প্রতিক বন্যাকবলিত পাঁচটি জেলাসহ সারাদেশে অসচ্ছ্বল ও অসহায় নারীদের প্রায় পাঁচ হাজার সেলাই মেশিন এবং ৫০ লাখ টাকা দেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। এদিন বঙ্গমাতার উপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা ‘শেখ ফজিলাতুন নেছা আমার মা’ শীর্ষক গ্রন্থের মোড়কও উন্মোচন করবেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব দেশপ্রেম, রাজনৈতিক দুরদর্শিতা, সাহসকিতা, ত্যাগ ও অনুপ্রেরণার উৎস। মহান স্বাধীনতা অর্জনে এ মহীয়সী নারীর রয়েছে গৌরাবজ্জ্বল ভূমিকা। লোকচক্ষুর অন্তরালে থেকে তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধ এবং স্বাধীনতার দেশ পুনর্গঠনে রেখে গেছেন অনন্য ভূমিকা। তিনি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ গড়ার কাজে আত্মনিয়োগ করেন এবং স্বাধীন বাংলাদেশে নারীদের কর্মসংস্থানসহ নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নের প্রকৃত পথ প্রদর্শক। তিনি নারীদের অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে দক্ষতা এবং সক্ষমতা বৃদ্ধি ও কুটির শিল্পসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেন।

সংবাদ সম্মেলনে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. হাসানুজ্জামান কল্লোল, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান চেমন আরা তৈয়ব, শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান লাকী ইনাম, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়