তাজিয়া মিছিল উপলক্ষে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

আগের সংবাদ

স্মৃতি-সত্তায় প্রাণোচ্ছল শেখ কামাল

পরের সংবাদ

বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা বন্ধ করতে হবে

প্রকাশিত: আগস্ট ৫, ২০২২ , ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ৫, ২০২২ , ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ

ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ও রিকশায় ছেয়ে গেছে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের অলিগলি। একেকটা অটোরিকশায় ৪টি করে ব্যাটারি থাকে। সারাদিন চালানোর পর এগুলো সারারাত ধরে চার্জে রাখা হয়। এই অটোরিকশাগুলো বিদ্যুৎ বিধ্বংসী। এতে প্রচুর বিদ্যুতের অপচয় হচ্ছে। পাশাপাশি এগুলোতে প্রচুর দুর্ঘটনাও ঘটছে। দেশে বিদ্যুৎ সংকটে এসব রিকশার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় এসেছে। জানা গেছে, সারাদেশে ব্যাটারিচালিত রিকশার সংখ্যা প্রায় ৪০ লাখ। এর মধ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রামে এর সংখ্যা সর্বাধিক। রাজধানীতে প্রায় দুই লাখ রিকশা চলাচল করছে। এসব রিকশা পরিবেশবান্ধব নয়। এছাড়া অবৈধ সংযোগ নিয়ে ব্যাটারি রিচার্জ করে বিদ্যুৎ বিল ফাঁকি দেয়ার কারণে সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে। সাধারণত একটি রিকশা চালানোর জন্য ৪-৫টি ১২ ভোল্টের ব্যাটারি প্রয়োজন। আর প্রতি সেট ব্যাটারি চার্জের জন্য গড়ে ৯০০-১১০০ ওয়াট হিসাবে ৫-৬ ইউনিট (দিনে বা রাতে কমপক্ষে ৫-৬ ঘণ্টা) বিদ্যুৎ খরচ হয়। কিন্তু ৮০ ভাগ গ্যারেজ চুরি করে ও লুকিয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার করে এসব ব্যাটারি রিচার্জ করায় সরকার বিদ্যুতের রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ২০২১ সালের ১৫ ডিসেম্বর সারাদেশে ব্যাটারিচালিত থ্রি হুইলার বন্ধের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। তাছাড়া ব্যাটারিচালিত ৩ চাকার যানবাহন আমদানি ও বিক্রির ওপরেও নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত। এর আগে দেশে মোটরচালিত সব রিকশা থেকে ব্যাটারি ও অন্যান্য মেশিনারি যন্ত্রপাতি সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও পুলিশের নিষ্ক্রিয়তায় এসব রিকশা চলাচল করছে অনেকটা নির্বিঘেœ। মাঝে মধ্যে ব্যাটারিচালিত অবৈধ অটোরিকশা বন্ধে রাজধানীতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। তবে সেটা নামমাত্র। অভিযোগ রয়েছে- পুলিশ, ট্রাফিক বা হাইওয়ে পুলিশের দায়িত্বে অবহেলার কারণে এসব যানবাহন গলি থেকে শুরু করে সড়ক-মহাসড়কে চলছে। সড়ক-মহাসড়ককে ৩ চাকার বাহন মুক্ত রাখতে হলে কঠোর নজরদারির দরকার। এসব বন্ধ করার কথা এলে শ্রমজীবী মানুষের রুটিরুজির কথা আসবে। মনে রাখতে হবে মানুষের জীবিকা আগে না, জীবন আগে। ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা বন্ধ হলে আমাদের জাতীয় সম্পদ বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে, সড়কে দুর্ঘটনা কমবে। সারাদেশে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধ করে গণপরিবহনের সংখ্যা বাড়ানো যেতে পারে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়