টেকনাফে বিজেবির অভিযানে ২৬ কোটি টাকার মাদকদ্রব্য জব্দ

আগের সংবাদ

শাবি ক্যাম্পাসে বুলবুলের মা, ছেলে হত্যার বিচার দাবি

পরের সংবাদ

সম্পূর্ণ গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হওয়া কঠিন: সিইসি

প্রকাশিত: জুলাই ৩১, ২০২২ , ৩:১০ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ৩১, ২০২২ , ৩:১৫ অপরাহ্ণ

সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, বর্তমান সিস্টেমে যতই যোগ্যতা দক্ষতা দেখাই সম্পূর্ণ গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হওয়া কঠিন। ভোটের পদ্ধতি বদলে নয়, রাজনৈতিক দলগুলোর ঐকমত্যের মাধ্যমেই নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করা সম্ভব বলে মনে করেন সিইসি।

রবিবার (৩১ জুলাই) জাতীয় পার্টির নির্বাচনী সিস্টেম পরিবর্তনের প্রস্তাবনার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আপনারা বলেছেন, সিস্টেম পরিবর্তন করতে হবে। বর্তমান যে সিস্টেম, আপনারা যথার্থই স্বীকার করেছেন, এ সিস্টেমে আমি যতই দক্ষতা, যোগ্যতা দেখাই না কেন, সকলের কাছে একেবারেই গ্রহণযোগ্য নির্বাচন উঠে আসা কঠিন। তবে সব রাজনৈতিক দল এ বিষয়ে আন্তরিকভাবে কমিশনকে সহায়তা করবে, তেমন ভাবাও দুরশা বলে মন্তব্য করেন সিইসি।

সিইসি বলেন, এ কারণে আমরা একটা সিস্টেমের ওপর ডিপেন্ড করতে চাই। আজ আমাকে এত বড় চ্যালেঞ্জ চিন্তাভাবনা করতে হচ্ছে কেন? রাতের ঘুম নষ্ট করতে হচ্ছে কেন? একটা সিস্টেম প্রবর্তন করতে পারেন। আনুপাতিক হারে ভোটের যে সিস্টেমটার প্রস্তাব দিচ্ছেন, আমি কিন্তু পুরোপুরি জানি না- এটা কি আমাদের দেশের জন্য উপযোগী হবে? বা আমাদের পলিটিক্যাল সেন্টিমেন্টের সঙ্গে খাপ খাবে? এটা নিয়ে আপনারা গবেষণা করতে পারেন, ওয়ার্কশপ করতে পারেন।

তিনি বলেন, অবাধ, নিরপেক্ষ, শান্তিপূর্ণ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠানের ওপর জোর দিয়ে সিইসি বলেন, এ লক্ষ্যে আমাদের প্রচেষ্টা আছে, থাকবে। আপনাদেরও সব অংশীজনের সহায়তা, সমর্থন একান্ত প্রয়োজন।

তিনি বলেন, ভোট কারচুপি যাতে না হয়, সে জন্য একটা সিস্টেম চাচ্ছেন, যাতে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি হয়। দলগুলোর সঙ্গে নিজেরা আলোচনা করেন। তাহলে সহমত সৃষ্টি হতে পারে।

রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে ইসির ধারাবাহিক সংলাপের শেষ দিনে সকালে জাতীয় পার্টির প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে বসেন নির্বাচন কমিশনের সদস্যরা।

জাতীয় পার্টির প্রতিনিধি দলটির নেতৃত্ব দেন দলের মহাসচিব মজিবুল হক চুন্নু। তিনি বর্তমান পদ্ধতির বদলে সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতিতে ভোটের প্রস্তাব তোলেন।

চুন্নু বলেন, তিনটা সিস্টেমের নির্বাচন হয়েছে, কোনোটাই বিতর্কের বাইরে না। নির্বাচন সুষ্ঠু করতে হলে সিস্টেমটা চেঞ্জ করতে হবে। বর্তমান সিস্টেমে ফেরেশতা দিয়েও ফেয়ার নির্বাচন করতে পারবেন না বলে আমাদের অনুমান।

বর্তমান পদ্ধতিতে ভোটারদের সরাসরি ভোটে প্রতিটি আসনে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সংসদ গঠিত হয়। সংখ্যানুপাতিক পদ্ধতির প্রবর্তন হলে সংসদে আসন বণ্টন হবে প্রতিটি দলের প্রাপ্ত মোট ভোটের আনুপাতিক হারে।

জাতীয় পার্টির আগে থেকেই দেশের বামপন্থি দল সংখ্যানুপাতিক পদ্ধতিতে নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে।

জাপা মহাসচিবের প্রস্তাবের বিপরীতে সিইসি বলেন, দশ বছর আগেই আপনারা প্রস্তাবটা উপস্থাপন করেছিলেন। এটা নিয়ে তো আপনাদের সরব হতে হবে; কাউকে না কাউকে একটা নেতৃত্ব সুলভ ভূমিকা নিতে হবে।

জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে সংলাপে বলা হয়, ইসি যতই দক্ষতা দেখাক, সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতিতে নির্বাচন না হলে তা গ্রহণযোগ্য হবে না।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়