বৈদেশিক দেনা পরিশোধের বড় ধাক্কা আসছে: ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য

আগের সংবাদ

ডিএনসিসিতে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের নির্দেশ মেয়র আতিকের

পরের সংবাদ

সুনামগঞ্জ আদালত প্রাঙ্গণে দিনদুপুরে বাদীকে হত্যা

প্রকাশিত: জুলাই ২১, ২০২২ , ৫:০১ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ২১, ২০২২ , ৬:১১ অপরাহ্ণ

সুনামগঞ্জে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গণে মামলার বাদীকে উপর্যপুরি চুরকাঘাতে হত্যা করেছে আসামী পক্ষের লোকজন।

এসময় উপস্থিত জনতা ও আইনজীবীরা হত্যাকারীসহ ৪জনকে ধরে পুলিশে দেয়ার সময় একজন দৌড়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় পুরো আদালত পাড়ায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) দুপুরে সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গনে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মিজানুর রহমান খোকন (৪৫) সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের গলাখাল গ্রামের ফটিক মিয়ার ছেলে।

গ্রেপ্তার তিনজন হলো একই গ্রামের মৃত মহিবুর রহমানের ছেলে ফয়েজ আহমেদ (৩০), মো. আফরোস মিয়ার ছেলে সাজিদ মিয়া (৩০) ও তার সহোদর সেবুল মিয়া (২৫)।

ঘটনার খরব পেয়ে জেলা পুলিশ সুপার (পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত ডিআইজি) মো. মিজানুর রহমান বিপিএম, সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইখতিয়ার উদ্দিন, কোর্ট ইন্সপেক্টরসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নিহতের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুল বাহার জানান, সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের গলাখাল গ্রামের ফটিক মিয়ার ছেলে নিহত খোকন মিয়া ও তার চাচাতো ভাই মৃত মখলিছ মিয়ার ছেলে মাসুক মিয়া (৫৫) এর সাথে একই গ্রামের মৃত লাল মিয়ার ছেলে ফয়েজ মিয়া গংয়ের জমিজমাসহ বিভিন্ন বিষয়ে একাধিক মামলা চলে আসছিল।

বৃহস্পতিবার নিহত খোকনের একটি ননজিআর মামলার হাজিরা দিতে আসে ফয়েজ আহমেদ গং। এসময় আইনজীবী সমিতির সামনে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ফয়েজের নেতৃত্বে ৮-১০ জনের একটি সশস্ত্র দল দাঁড়ালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে খোকনের উপর হামলা করে।

এসময় ফয়েজ আহমেদ তার হাতে থাকা দাঁড়ালো চাকু দিয়ে খোকনের পেটের ডান পাশে উপর্যপুরি আঘাত করে। সাথে সাথে খোকন মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এসময় তার স্বজনসহ আদালত প্রাঙ্গনে থাকা লোকজন গুরতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়।

সুনাগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইখতিয়ার উদ্দিন জানান, ঘটনাস্থল রক্তমাখা চাকু এবং কাপড়চোপর উদ্ধার করে পুলিশ এবং তিন জনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে আইনজীবী ও জনতা। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়