নবীনগরে ছাত্রীকে অপহরণ চেষ্টার অভিযোগে শিক্ষক গ্রেপ্তার

আগের সংবাদ

১০ হাজার কোটি টাকায় পদ্মা সেতু করতে চেয়েছিলেন জিয়া: গয়েশ্বর

পরের সংবাদ

এক মেয়াদী চ্যালেঞ্জ রেখে বিদায় নিলেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর

প্রকাশিত: জুলাই ৩, ২০২২ , ৮:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: জুলাই ৩, ২০২২ , ৮:৫৮ অপরাহ্ণ

এক মেয়াদী চ্যালেঞ্জ রেখে বিদায় নিচ্ছি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের বিদায়ী গভর্নর ফজলে কবির। এ সময় তিনি বলেন, করনার সময় যে চ্যালেঞ্জ ছিল তার একটা নির্দিষ্ট মেয়াদ ছিল সবাই ধারণা করেছিল টিকা কার্যক্রম শেষ হলে চ্যালেঞ্জ শেষ হয়ে যাবে কিন্তু বর্তমানে যে চ্যালেঞ্জ তার কোন সীমা নেই আমি আশা করি আমার যোগ্য উত্তরসূরী যিনি গভর্নর হিসেবে আসছেন তিনি মূল্যস্ফীতি ও ডলার রেটের এ চ্যালেঞ্জ শক্ত হাতে মোকাবেলা করবেন।

রবিবার (৩ জুলাই) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং হলে কর্মকর্তা কর্মচারীদের আয়োজিত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাচিত সবগুলো সংগঠন যৌথভাবে এ সংবর্ধনার আয়োজন করে। এতে সম্মানীয় অতিথি হিসেবে গভর্নর ফজলে কবিরের সহধর্মিণী ও সাবেক সচিব মাহমুুদা শারমীন বেনু উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব শেখ মুহাম্মদ সলীম উল্লাহ ও বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নরগন। সভাপতিত্ব করেন সংবর্ধনা আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক এইচ এম দেলোয়ার হোসাইন।

বিদায়ী বক্তব্যে অনেকটা আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন গভর্নর তিনি বলেন ৬ বছর ৩ মাস পার হয়ে গেল মনে হচ্ছে এই তো সেদিন হঠাৎ করে অর্থমন্ত্রী বললেন সো ইউ আর দা গভর্নর আমি বললাম গভর্নর তিনি বললেন হ্যাঁ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর তিনি বলেন আমি গভর্নর হওয়ার পর যখন দেশে ফিরছিলাম বিমানবন্দরে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলেন আপনার প্রথম কাজ কি হবে আমি বলেছিলাম কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ইমেজ পুনরুদ্ধার করা কর্মকর্তাদের মনবল চাঙ্গা করা পরবর্তী গভর্নরের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন গণমাধ্যম ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলো যাই বলুক না কেন আপনারা বাংলাদেশ ব্যাংক যেভাবে চলছে সেভাবেই চালাবেন তিনি বলেন আমাদের ভূষিত মুদ্রানীতি বিষয়ে অনেকে মন্তব্য করছেন কিন্তু আমি মনে করি এটি ঠিক আছে আপনারা এভাবেই চলবেন বিদায় মুহূর্তে গভর্নর বলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের পারফরম্যান্স অসাধারণ অন্য কোন দেশে এমনটা পাওয়া যায় না এখানে অনেক মেধাবী এর সমন্বয়ে আছে দেশের অন্য কোন সরকারি প্রতিষ্ঠানে এমনটা দেখা যায় না যা আমি বাংলাদেশ ব্যাংকে এসে পেয়েছি।

ফজলে কোভিদ বলেন, এখানের কর্মকর্তা কাজ এনজয় করেন সবাই সবাইকে উৎসাহ দেয় তাদের স্বীকৃতি দেয় আমিও সবাইকে উৎসাহ ও স্বীকৃতি দিতাম যার কাজ তাকে স্বীকৃতি দিতাম তিনি বলেন আমাদের সকলের প্রচেষ্টায় যে অর্জন তা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অর্জন সবাই যার যার দায়িত্ব যথাযথ পালন করবেন বলে আশা প্রকাশ করেন বিদায়ী গভর্নর তিনি বলেন নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনের মধ্যে দেশপ্রেম নিহিত রয়েছে আবেগ তাড়িত হয়ে গভর্নর বলেন আমি দেশের অর্থনীতির জন্য যা করতে পেরেছি বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে তার চেয়ে অনেক বেশি পেয়েছি আর তা হল সম্মান যুক্ত ভালোবাসা আমি সরকারের কাছ থেকেও অনেক সম্মান পেয়েছি এর মধ্যে মুজিব বর্ষ পদ্মা সেতুর স্মারক নটে আমার স্বাক্ষর রয়েছে এটি অনেক সম্মানের।

শেখ মুহাম্মদ সলীম উল্লাহ বলেন, চাকরি জীবনে প্রশাসক হিসেবে গভর্নর ফজলে কবির যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন তার সংমিশ্রণে তিনি দক্ষতার সঙ্গে আর্থিক খাতের নেতৃত্ব দিয়েছেন । অত্যন্ত স্বাচ্ছন্দের সাথে আমি তার সাথে কাজ করেছি। ব্যাক্তি ও কর্ম জীবনে তিনি সবার জন্য অনুকরণীয় ব্যাক্তিত্ব ছিলেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাগন গভর্নরের সাথে তাদের কর্মজীবনের নানা দিক নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। এ সময় তারা গভর্নরের নানা অর্জন ও অবদানের বিষয় তুলে ধরেন। বিশেষ করে রিজার্ভ চুরির ঘটনার পর বাংলাদেশ ব্যাংককে আস্থা ও ইমেজ সংকট থেকে পুনরুদ্ধারে তার দক্ষতার কথা বক্তারা বিশেষভাবে উল্লেখ করেন। এ ছাড়া তার পরবর্তী জীবনের সাফল্য কামনা করে বক্তব্য রাখেন বক্তারা।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়