বিদ্যুৎ খাতে সাড়ে ৫১ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্ব ব্যাংক

আগের সংবাদ

চলতি অর্থবছরে জনকল্যাণে দেশব্যাপী ১০০ কোটির বেশি ব্যয় করেছে রোটারি

পরের সংবাদ

সুনামগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শিশুসহ দুইজনের মৃত্যু, আহত দুই শিশু

প্রকাশিত: জুন ৩০, ২০২২ , ৪:৪০ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ৩০, ২০২২ , ৪:৪২ অপরাহ্ণ

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে মসজিদে মাগরিবের আজান দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শামছুন নূর (৬৫) নামের এক মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। এদিকে তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের মাটিয়াইন গ্রামে বিদ্যুৎপৃষ্টে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের বড়দল পুরানহাঠি গ্রামে আহত হয়েছে আরো দুই শিশু।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, বুধবার মাগরিবের আজান দিতে গিয়ে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার দোহালিয়া ইউনিয়নের জীবনপুর সোনাইনগর জামে মসজিদে আজান দিতে গিয়ে আজান শেষ না হতেই মাইকের তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যান, মুসল্লি শামছুন নূর মিয়া (৬৫)। তিনি উপজেলার দোহালিয়া ইউনিয়নের জীবনপুর সোনাইনগর গ্রামের মৃত রোয়াব উল্লাহর ছেলে। বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য জিয়াউল ইসলাম।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয়রা জানান, দোয়রাবাজার উপজেলার জীবনপুর সোনাইনগর গ্রামের শামছুন নূর পেশায় একজন জেলে। তিনি স্থানীয় জীবনপুর সোনাইনগর জামে মসজিদে পাঁচ ওয়াক্ত নাম পড়তেন এবং ইমাম/মোয়াজ্জিন না থাকলে তিনি আজান দিতেন। চলতি মাস ধরে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি দেখা দেয়ায় ইমাম/মোয়াজ্জিন মসজিদে আসতে না পারায় তিনি প্রতিদিন মসজিদে আজান দিতেন শামছুন নূর। বুধবার মাগরিবের আজান দিতে গিয়ে মসজিদের কারেন্ট সংযোগ দিয়ে মাহক্রোফোন হাতে নিয়ে আজান শুরু করলেই বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মসজিদে ভিতরে পরে মারা যান তিনি। আজান আর শেষ করতে পারেন নি। পরে এলাকাবাসী গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করেন। পরে নিহতের স্বজনদেরকে খবর দিয়ে মরদেহ বাড়িতে পৌঁছে দেন এলাকাবাসী।

এদিকে জেলার তাহিরপুরে বন্যার পানিতে নিচু হয়ে থাকা বিদ্যুৎ লাইনে স্পৃষ্ট হয়ে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। সে উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের মাটিয়াইন গ্রামের মোশাহিদ মিয়ার ছেলে এবং মাটিয়াইন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্র মাহমুদ মিয়া (১০)।

জানা যায়, বুধবার বিকেলে নিহত স্কুলছাত্র মাহমুদ মিয়া ছোট নৌকা দিয়ে হাওরে যাওয়ার সময় নিজ বাড়ীর সামনে বন্যার পানির মধ্যে পল্লী বিদ্যুতের খুটির তারে জড়িয়ে পড়ে। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

একইদিন বিকেলে উপজেলার দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের বড়দল পুরানহাঠি গ্রামে আত্মীয়ের বাড়ি বেড়াতে এসে আটো রাইসমিলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে গুরতর আহত হয়েছে। তারা হলো, উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের মানিকখিলা গ্রামের রফিক মিয়ার ছেলে পারভেজ (১১) ও ভাতিজা জিসান (১০)। পরে স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মির্জা রিয়াদ হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, স্কুলছাত্র মাহমুদ ঘটনাস্থলেই মারা গেছে এবং গুরুতর আহত দুই শিশুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়