উইম্বলডনে ব্রিটিশ বিপর্যয়

আগের সংবাদ

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে স্বর্ণ দুয়ার উন্মোচন, সংসদে প্রধানমন্ত্রী

পরের সংবাদ

ক্ষতিপূরণ দাবি রোনালদোর

প্রকাশিত: জুন ৩০, ২০২২ , ১০:১৭ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ৩০, ২০২২ , ১০:১৭ অপরাহ্ণ

এক এক করে তিনবার জনপ্রিয় ফুটবল তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিপক্ষে ধর্ষণ মামলা করেছে মায়োরগা। কিন্তু একবারও নিজের পক্ষে রায় পাননি তিনি। লাস ভেগাসে দায়ের করা সর্বশেষ মামলার রায়েও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পক্ষে গিয়েছে রায়। তিনবার রোনালদোকে হয়রানি করায় এবার সেই মায়োরগা ও তার আইনজীবীর বিপক্ষে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে রোনালদো। দীর্ঘসময় ধরে হয়রানি করায় মায়োরগার আইনজীবী লেসলি স্টোভালর কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন রোনালদো। রোনালদোর পক্ষে ক্ষতিপূরণ চেয়ে আদালতে আরজি জানিয়েছেন তার আইনজীবী পিটার ক্রিস্টিয়ানসেন।

ক্ষতিপূরণের এই দাবিতে বলা হয়, রোনালদোর ক্ষতিপূরণের জন্য স্টোভালকে জনসন্মুখে দায়ী করা উচিত। প্রতি ঘণ্টায় ৩৫০ থেকে ৮৫০ ডলার পর্যন্ত আইনজীবী ফি ধরে ক্ষতিপূরণ চেয়েছেন ক্রিস্টিয়ানসেন। লাস ভেগাসে মায়োরগা এবং তার আইনজীবীর করা সে মামলায় প্রায় এক হাজার ২০০ ঘণ্টা কাজের হিসাব ধরে ক্ষতিপূরণের অঙ্ক কষেছে সিআর সেভেনের আইনজীবী। আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এপি তথ্য অনুসারে। মায়োরগার আইনজীবী লেসলি মার্ক স্টোভালের কাছে ছয় লাখ ২৬ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করে যুক্তরাষ্ট্রের ডিস্ট্রিক্ট বিচারকের কাছে আরজি জানিয়েছে ক্রিস্টিয়ানসেন। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় পাঁচ কোটি ৮৯ লাখ টাকা।

সময়টা ২০০৯। লাস ভেগাসের ঘুরতে গিয়ে পর্তুগিজ তারকা ক্রিশ্চিয়ান রোনালদোর সঙ্গে পরিচয় হয়েছে ক্যাথরিনের। সময়ের পরিক্রমায় প্রাথমিক পরিচয় থেকে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে রূপ নেয় তাদের মেলামেশা। শারীরিক সম্পর্ক থেকেও দূরে ছিলেন না এই দুইজন। এরপর ২০১০ সালে এই শারীরিক সম্পর্ককে ধর্ষণ দাবি করে রোনালদোর বিপক্ষে মামলা করার হুমকি দেন ক্যাথরিন। এরপর তিন লাখ ৭৫ হাজার ডলারের বিনিময়ে দুইপক্ষ সমঝোতায় এসেছে। এর সাত বছর পর ২০১৭ সালে আবারো সেই ঘটনা আলোড়ন সৃষ্টি করে। দীর্ঘদিন পর আগের সমঝোতা বাতিল করার জন্য উঠেপড়ে লাগেন মায়োরগাও। ২০০৯ সালের ঘটনায় সমঝোতায় আসতে তাকে বাধ্য করা হয়েছিল বলে দাবি করেছেন তিনি। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ২০১৮ সালে অভিযোগ তুলে রোনালদোর বিপক্ষে মায়োরগা মামলা করেন। এই মামলায় অভিযোগ সন্দেহাতীভাবে প্রমাণিত না হওয়ায় ২০১৯ সালের জুলাইয়ে মামলা তুলে নেয়া হয়েছে। কিন্তু গত বছর আবারো এই বিষয়কে আলোচনায় নিয়ে আসেন মায়োরগা ও তার আইনজীবী। উক্ত মামলায় ধর্ষণের ক্ষতিপূরণ হিসেবে প্রায় সাত কোটি ডলার দাবি করেছেন মায়োরগা। এই মামলায় রায়ও রোনালদোর পক্ষে যায়। গত অক্টোবরে ম্যাজিস্ট্রেট জাজ ড্যানিয়েল অ্যালবরগেটস মামলায় রোনালদোকে নির্দোষ ঘোষণা করেন। একাধিকবার আদালতের দরজায় ঘুরে ঘুরেও দমে যায়নি মায়োরগা। দুইবার ফিরে আসার পর তৃতীয়বার লাস ভেগাসের আরেকটি আদালতে মামলা করেন তারা। কিন্তু তৃতীয়বারে নিজের পক্ষে রায় পেতে ব্যর্থ হন মায়োরগা।

তিনবারের তিনবারই জয় হয়েছে বিশ্ব নন্দিত ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। ভুয়া নথিপত্র ব্যবহার ও অভিযোগের পক্ষে সুনির্দিষ্ট প্রমাণ না থাকায় মামলা থেকে রোনালদোকে অব্যাহতি দিয়েছে মার্কিন আদালত। এই নারীর দায়ের করা মামলায় প্রায় তিন বছর লড়াই করে ধর্ষণের অভিযোগ থেকে পুরোপুরি মুক্ত হয়েছেন তিনি। কেননা মায়োরগা যেন রোনালদোর বিপক্ষে আর কোনো মামলা করতে না পারে সে বিষয়ে রায় দিয়েছে মার্কিন আদালত।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের এক প্রতিবেদন অনুসারে লিখিত রায়ে লাস ভেগাসের ফেডারেল বিচারক জেনিফার ডরসি বলেছেন, অত্যন্ত ব্যক্তিগত প্রকৃতির গুরুতর অভিযোগের নিষ্পত্তি করার সুযোগ মায়োরগা নিজেই হারিয়েছেন।

অন্যায়ভাবে অর্জিত তথ্যের প্রভাবে তার দাবি ও তার স্মৃতি এবং ঘটনার প্রেক্ষাপট প্রভাবিত হয়েছে। বিষয়টি বিবেচনা করলে অন্য কোনো রায় দেয়া অপর্যাপ্ত হতো। মামলার শুরু থেকে যে অন্যায় করা হয়েছে, সেটা ছড়িয়ে পড়া আটকাতে এবং আইনি প্রক্রিয়ার বিশুদ্ধতা রক্ষা করতে হলে এটা বাতিল করা ছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না।

ডরসি আরও বলেছেন, এভাবে চুরি হওয়া সে নথিগুলো বারবার পড়ার কারণে সে ঘটনা নিয়ে মায়োরগার যে চিন্তা, সেটা প্রভাবিত হয়েছে। মায়োরগার মামলায় এ নথির প্রভাবও দেখা গেছে। তিনি মনে করেন, খারাপ উদ্দেশ্য নিয়েই এভাবে বারবার আদালতকে ভুলপথে পরিচালিত করার চেষ্টা করেছেন স্টোভাল। এ কারণে এই আইনজীবীকে শাস্তি দেয়ার জন্য মামলাটি ছুড়ে ফেলা হয়েছে এবং এ মামলা নিয়ে যেন আপিল না করা যায়, সে ব্যবস্থাও নিয়েছেন। ডরসি স্বীকার করেছেন, এটা অনেক কঠিন শাস্তি, কিন্তু স্টোভালের অন্যায় আচরণে রোনালদো বারবার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিলেন। মামলা থেকে রোনালদোকে অব্যাহতি দেওয়ার পাশাপাশি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ফরোয়ার্ডের সঙ্গে বাজে আচরণ করায় ক্যাথরিনের আইনজীবী লেজক মার্ক স্টোভালকেও শাস্তির মুখোমুখি করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন ডরসি।

বর্তমানে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জার্সিতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলছেন এই পর্তুগিজ তারকা। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সর্বশেষ আসরে রেড ডেভিলদের জার্সিতে ৩০ ম্যাচে ১৮ গোল করেছেন তিনি। আর সতীর্থদের দিয়ে গোল করিয়েছেন মাত্র তিনবার। একই মৌসুমে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সাত ম্যাচে ছয় গোল করেছেন এই বিশ্বসেরা ফুটবলার।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়