পদ্মা সেতু উদ্বোধন : নতুন অধ্যায়ে বাংলাদেশ

আগের সংবাদ

সাইকোডেলিক মাদকের চালান ঠেকানোই বড় চ্যালেঞ্জ

পরের সংবাদ

সেন্ট লুসিয়ায় বড় লিডের পথে ক্যারিবিয়ানরা

প্রকাশিত: জুন ২৬, ২০২২ , ১:৫১ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুন ২৬, ২০২২ , ৮:৪১ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনে শনিবার প্রথম সেশনে ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল স্বাগতিকরা। ১৩৩ রানে ৪ উইকেট পতনের পর পঞ্চম উইকেট জুটিতে হাল ধরেন ব্ল্যাকউড এবং কাইল মার্য়াস। এ জুটির দৃঢ়তায় প্রতিরোধ গড়ে ধীরে ধীরে বিপদ কাটিয়ে বড় লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যায় ক্যারিবিয়ানরা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৮৬.২ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৬৫ রান তুলেছে ক্যারিবিয়ানরা। টাইগারদের বিপক্ষে ৩১ রানের লিড পেয়েছে স্বাগতিকরা। ব্ল্যাকউড ১২১ বল থেকে ৪০ রান করে আউট হন। কাইল মার্য়াস ১২৭ বল মোকাবিলা করে ৭১ রানে অপরাজিত রয়েছেন। উইন্ডিজের যে ৫টি উইকেটের পতন ঘটেছে তার ২টি করে তুলে নিয়েছেন খালেদ আহমেদ ও মেহেদী হাসান মিরাজ।অপর উইকেটটি নিয়েছেন শরিফুল ইসলাম।
সেন্ট লুসিয়ায় দ্বিতীয় টেস্টে শুক্রবার প্রথম দিন ভালো যায়নি সাকিব বাহিনীর। ব্যাটিং বিপর্যয়ের কবলে পড়ে দিনের দুই-তৃতীয়াংশের বেশি সময় ব্যাট করতে পারেনি। ব্যাটিংয়ের দিক থেকে উল্লেখযোগ্য ইনিংস খেলেছেন লিটন দাস। ৭০ বলে ৮ চারের সাহায্যে করেন ৫৩ রান। তামিম ইকবালও ভালো শুরু করেছিলেন। কিন্তু হাফসেঞ্চুরির জন্য ৪ রানের আক্ষেপ নিয়ে ফিরতে হয়েছে তাকে। টাইগারদের ২৩৪ রানে গুটিয়ে দিয়ে ব্যাট করতে নেমে শনিবার দ্বিতীয় দিনে প্রথম দিন শুরু থেকে যেখানে ক্যারিবীয় পেসাররা দাপটের সঙ্গে একের পর এক উইকেট তুলে নিয়েছে সেখানে টাইগার পেসাররা প্রথম দিন ১৬ ওভার বল করার সুযোগ পেয়েও পুরোপুরি উইকেটশূন্য ছিল। উল্টো ক্যারিবীয় দুই ব্যাটার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ও ক্যাম্পবেল টাইগার পেসারদের ওপর চড়া হয়ে খেলেছেন। দিনের শেষ সেশনের ব্যাট করতে নেমে ১৬ ওভারে বিনা উইকেটে স্কোরবোর্ডে যোগ করেছে ৬৭ রান। ১৬৭ রানে পিছিয়ে থেকে শনিবার দ্বিতীয় দিন ব্যাট হাতে দাপুটে জবাব দেয়ার পথে এগিয়ে যাচ্ছিল স্বাগতিকরা। স্কোরবোর্ডে আরো ৩৩ রান যোগ করতেই ক্যারিবীয় শিবিরে প্রথম আঘাত হানে তরুণ পেসার শরিফুল ইসলাম। ইনিংসের ২৬তম ওভারের শেষ বলে শরিফুলের সুইংয়ে পরাস্ত হলে ক্যাম্পবেলের ব্যাটের কানায় লেগে বল চলে যায় উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহানের গ্লাভসে। সাজঘরে ফেরার আগে ৬ চারের সাহায্যে ব্যক্তিগত ৪৫ রান করেন জন ক্যাম্পবেল। এরপর হাফ সেঞ্চুরিয়ান ব্র্যাথওয়েটকে সাজঘরের পথ ধরান স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। এরপর ক্যারিবিয়ান শিবিরে জোড়া আঘাত হানেন পেসার খালেদ আহমেদ। রেমন রেইফার এবং এনক্রুমাহ বোনারকে আউট করে টাইগার শিবিরে স্বস্তি ফিরিয়ে আনেন। ওয়ান ডাউনে নামা রেমন রেইফারও বোল্ড হন খালেদ আহমেদের বলে। ৩৯তম ওভারের দ্বিতীয় বলটি ছিল অফ স্ট্যাম্পের ওপর শট লেন্থের ডেলিভারির। স্টিয়ার করতে চেয়েছিলেন রেইফার। কিন্তু বল ভেতরের কানায় লেগে গিয়ে আঘাত হানে সোজা স্ট্যাম্পে। সাকিবের প্রথম ইনিংসে আউট হওয়ার মতই ২২ রান করে আউট হন রেমন রেইফার।
একই ওভারের শেষ বলে বোল্ড হন এনক্রুমাহ বোনারও। কোনো রানই করতে পারেননি তিনি। খালেদের গতিময় বলটি পা দিয়েও ঠেকাতে পারেননি বোনার। বোল্ড হয়ে গেলেন। ১৩২ রানে পড়ে চতুর্থ উইকেট। পঞ্চম উইকেটে টাইগারদের হতাশায় ডুবান কাইল মার্য়াস এবং ব্ল্যাকউড। ব্ল্যাকউডের বিদায়ের পর দ্য সিলভাকে নিয়ে র্জুটি গড়েন মার্য়াস। ৩৯ বল মোকাবেলা করে ৬ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন দা সিলভা।

ভোকা/এসপি/এস এস

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়