বন্যাদুর্গত এলাকায় বিজিবির ত্রাণসামগ্রী বিতরণ

আগের সংবাদ

নেইমারদের মাঠে হবে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল দ্বৈরথ

পরের সংবাদ

আবাহনীর কাছে পাত্তা পেল না মোহামেডান

প্রকাশিত: জুন ২২, ২০২২ , ৭:৪৫ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ২২, ২০২২ , ৭:৪৫ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশের ফুটবল মাঠে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিলের মতো তুমুল জনপ্রিয় দুই দল ঢাকা আবাহনী ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ঐতিহ্যবাহী মোহামেডানের সাদা-কালো জার্সিধারীদের সঙ্গে আবাহনীর আকাশি-নীল জার্সিধারীরা মুখোমুখি হলে মাঠ এবং গ্যালারি উভয় জায়গাতেই চরম উত্তেজনা বিরাজ করে। দুই দলের সমর্থকদের মধ্যকার সংঘর্ষও কম হয়নি। একসময় সাদা-কালো শিবিরের জনপ্রিয় নাম ছিল শফিকুল ইসলাম মানিক। বিশেষ করে মোহামেডানের কোচ হিসেবেই সমধিক পরিচিত ছিলেন তিনি। ২০১১ সাল পর্যন্ত মোহামেডানে কোচিং করিয়েছেন তিনি।

এরপর দীর্ঘ ১১ বছর মোহামেডান ছাড়া অন্যান্য ফুটবল ক্লাবের কোচিংয়ের দায়িত্ব পালন করেছেন। তবে চলমান প্রিমিয়ার লিগে দীর্ঘদিনের দূরত্বকে ভুলে গিয়ে আবারো সাদা-কালো শিবিরের দায়িত্ব তুলে নিয়েছেন নিজের কাধে। তবে কাকতালীয়ভাবে ২০১১ সালে সুপার কাপের ফাইনালে আবাহনীর সঙ্গে হেরেই বিদায় নিয়েছিলেন তিনি। এবার সেই আবাহনীর সঙ্গেই সাদা-কালো জার্সিধারীদের শিবিরে প্রত্যাবর্তন হল মোহামেডানের ঘরের ছেলে মানিকের। তবে প্রত্যাবর্তনটা মোটেও সুখকর হয়নি তার। সেই আবাহনীর বিপক্ষে ৬ গোলের ম্যাচে ৪-২ ব্যবধানে হেরেছে সাদা-কালো জার্সিধারীরা। আকাশি-নীল জার্সিধারীদের হয়ে জোড়া গোল করেছেন ডোরিয়েল্টন।

এছাড়া একটি করে গোল করেছেন দানিয়েল কলিন্দ্রেস ও মোহাম্মদ ইমন মাহমুদ। মোহামেডানের হয়ে একটি করে গোল করেন সুলেমান দিয়াবাতে ও শাহরিয়ার ইমন। কুমিল্লার ভাষা সৈনিক শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে বুধবার দুপুর থেকে ভারী বৃষ্টি হয়েছে। তবে ম্যাচ চলাকালীন বৃষ্টির পরিমান অনেকটাই কম ছিল। বৃষ্টির কারণে পুরো মাঠ কর্দমাক্ত হয়ে গেলেও থেমে থাকেনি উভয় দলের ফুটবল গতি। দুই দলই শুরু থেকেই গোলের জন্য আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলেছে। যার সুবাদে ম্যাচের প্রথমার্ধেই হয়েছে ৬ গোল। ম্যাচজুড়ে মোহামেডান থেকে আবাহনী সবদিক থেকেই এগিয়ে ছিল। গোলের জন্য সুযোগ তৈরি করা ও গোল করার দিক থেকেও সফল ছিল আকাশি-নীল জার্সিধারীরা। ম্যাচের ৮ মিনিটে কর্ণার থেকে সরাসরি গোল করেন আবাহনীর কোস্টারিকার ফুটবলার দানিয়েল কলিন্দ্রেস।

দুই মিনিট পর লিড দ্বিগুণ করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়াড ডোরিয়েল্টন। নুরুল নাইম ফয়সালের পাস থেকে বলকে নিজের নিয়ন্ত্রনে নিয়ে বক্সে ঢুকে দুই ডিফেন্ডারের মধ্য দিয়ে নিখুঁত শটে বলকে জালে জড়ান তিনি। দুই গোলের ব্যবধানে পিছিয়ে পড়ার ৬ মিনিটের মধ্যেই ম্যাচে ঘুরে দাড়ানোর জানান দিয়েছে মোহামেডানের ফুটবলাররা। ১৮তম মিনিটে মোহাম্মদ আলমগীরের ক্রসকে নিয়ন্ত্রনে নিয়ে গোল ব্যবধান কমান সুলেমান দিয়াবাতে। মাত্র ১৮ মিনিটের মধ্যেই তিন গোল হয়ে যাওয়ার পর পরবর্তী ২২ মিনিট বেশ কয়েকবার আক্রমণে উঠলেও গোল করতে ব্যর্থ হয়েছে দুই দল। তবে প্রথমার্ধের শেষদিকে আবারো তিন গোলের দেখা পেয়েছে গ্যালারি ভর্তি উচ্ছ্বসিত ফুটবলপ্রেমীরা।

৪০তম মিনিটে চোট পেয়ে খোড়াতে খোড়াতে মাঠ ছেড়েছেন আবাহনীর ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার রাফায়েল অগাস্তো। তার বদলি হিসেবে নেমে তিন মিনিট পরই গোল পেয়েছেন ইমন মাহমুদ। ডান প্রান্ত থেকে কলিন্দ্রেসের শটকে মোহামেডানের গোলরক্ষক ফিস্ট করে প্রতিহত করার পর ফিরতি বল পেয়ে বলকে জালে জড়ান ইমন। এরপর যোগ করা সময়ে আরো দুই গোল হয়। যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিয়ে অনিক হোসেনের লম্বা পাস থেকে দারুণভাবে নিয়ন্ত্রনে নিয়ে দুইজনকে কাটিয়ে বাঁ পায়ের শটে স্কোরলাইনকে ৩-২ করেন মোহামেডানের শাহরিয়ার ইমন। তবে ইনজুরি সময়ের শেষ মিনিটে আবারো লিডকে দ্বিগুন করেন ডোরিয়েল্টন। কলিন্দ্রেসের কর্নার থেকে ব্যাক হেডের সাহায্যে গোল ব্যবধানকে ৪-২ করেন তিনি।

বিরতির পর বাকি ৪৫ মিনিটে আর কোনো গোল হয়নি। শেষ দশ মিনিট আবাহনী ১০ জনের দল নিয়ে খেললেও কোনো গোল করতে পারেনি মোহামেডান। তবে একদশ শেষ মিনিটে মোহামেডানের শাহেদ হোসেন বলকে জালে জড়ালেও অফসাইডের কারণে গোল পায়নি। এই ম্যাচের জয়ের সুবাদে ১৬ ম্যাচে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ঢাকা আবাহনী। শীর্ষে থাকা বসুন্ধরা কিংস থেকে ৬ পয়েন্টের ব্যবধানে পিছিয়ে আছে আকাশি-নীল জার্সিধারীরা।

বুধবার দিনের অন্য ম্যাচে রাজশাহীর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে উত্তর বারিধারাকে ৩-২ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ। আমিরউদ্দিন শরিফি পুলিশকে এগিয়ে নেওয়ার পর দানিলো কুইপ্পা ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। ৫২তম মিনিটে আমিরউদ্দিন ব্যবধান আরও বাড়ান। তিন গোল হজম করার পরও পুলিশ এফসিকে স্বস্তিতে থাকতে দেয়নি উত্তর বারিধারা ক্লাব। ৬৯তম মিনিট ইউসুফ বাম্বার গোলে ব্যবধান কমিয়ে আনে তারা। এরপর দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সমসয়ে ইভজেনি কোচনেভের গোলে পুলিফ এফসির কপালে চিন্তান ভাঁফ ফেলে দিয়েছে। উত্তর বারিধারা ক্লাব আর একটি গোল করলেই পূর্ণ পয়েন্ট হারাতো বাংলাদেশ পুলিশ এফসি। তবে ম্যাচে ঘুরে দাড়াতে পারলেও শেষ পর্যন্ত পয়েন্ট হারাতে হয়েছে উত্তর বারিধারার। এই জয়ের সুবাদে ১৬ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম স্থানে আছে বাংলাদেশ পুলিশ এফসি। সামন ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে আছে উত্তর বারিধারা ক্লাব।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়