দুর্যোগে আওয়ামী লীগই মানুষের পাশে থাকে: তথ্যমন্ত্রী

আগের সংবাদ

আরও একবার অস্ত্র হাতে নেবার কবিতা শোনালেন সুবর্ণা

পরের সংবাদ

সিলেটের কালো আকাশে অবশেষে রোদের ঝিলিক

প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২২ , ৯:১৭ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ২১, ২০২২ , ৯:১৭ অপরাহ্ণ

সিলেট জুড়ে কালো আকাশ ভেদ করে জাগল ঝলমলে রোদ। মঙ্গলবার (২১ জুন) সকালে কিছুটা মেঘাছন্ন আকাশ দেখা গেলেও দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হেলিকপ্টার সিলেটের মাটি ছোঁয়ার আগেই রোদ ঝলমলে ওঠে দিন। গত কয়েকদিন এয়ারপোর্টে কোনো বিমান নামেনি। স্যাঁতসেঁতে শ্যাওলা পড়া রানওয়ে। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে সেই রানওয়ে ফিরে পেল উজ্জ্বলতা। প্রধানমমন্ত্রীর হেলিকপ্টার দিয়েই যেন নব উদ্যোমে এর উদ্বোধন হলো। তার আগমন উপলক্ষে সিলেট শহরের রাস্তাঘাটও দ্রুত পরিষ্কার ও চলাচলের উপযোগী করা হয়। জলবন্দি জীবনের পর পরিচ্ছন্ন হয়ে উঠে সিলেটের প্রধান প্রধান সড়ক।

বন্যা উপদ্রুত সিলেট সুনামগঞ্জের মানুষকে সরজমিন দেখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হঠাৎ করেই প্রোগ্রাম ঘোষণা করেন গত পরশুদিন। এত তাড়াতাড়ি সরকার প্রধানের কর্মসূচির সার্বিক নিরাপত্তা বিধানের কাজটা অনেক ঝুঁকিপূর্ণ হলেও নিরাপত্তার কোনো ব্যাঘাত ঘটেনি।

মাজার জিয়ারতের কর্মসূচি প্রথমে না থাকলেও হযরত শাহজালাল (র.) ও হযরত শাহপরানের (র.) মাজার জিয়ারত এবং কোরান তেলাওয়াত করেন প্রধানমন্ত্রী। মাজার উন্নয়নের জন্য ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে এক লাখ টাকা নগদ অনুদানও ঘোষণা করেন।

হযরত শাহজালাল (র.) ও হযরত শাহপরানের (র.) মাজার জিয়ারত এবং কোরান তেলাওয়াত শেষে সেখানে দেশবাসীর জন্য দোয়া করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: পিএমও

হযরত শাহজালাল (র.) মাজারের খাদেম সদরুদ্দিন চৌধুরী বলেন, হযরত শাহজালালের ভক্ত আমাদের প্রধানমন্ত্রী সিলেটে এলে জিয়ারত করবেন- আমরা মনে মনে সব সময় এমন প্রস্তুতি রাখি। তার ওপর আল্লাহর খাস রহমত আছে বলেই আজ কোথাও বৃষ্টি হয়নি। তিনি বাবার একজন আশেকান।

সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল কবীর ইমন বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী প্লাবনকে জয় করার ইতিবাচক মনোভাব নিয়েই সিলেটে এসেছেন। সমগ্র সিলেট জুড়েই আজ রোদের উজ্জ্বলতা এবং বন্যার পানি নামতে শুরু করায় নিঃসন্দেহে প্লাবনপীড়িত মানুষকে শক্তি জোগাবে। সিলেটের মানুষ গত কয়েকদিন পানিবন্দি থাকায় জনজীবনে বিশাল সংকট দেখা দেয়। কিন্তু আজকের কর্মসূচির পর পুরো শহর জুড়ে হঠাৎ করে প্রাণের ছোঁয়া পায়। স্পন্দন উঠে সমগ্র সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলাজুড়েই। উপজেলা উপজেলায় প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে এমপিসহ জনপ্রতিনিধি এবং আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা চ্যালেঞ্জের মনোভাব নিয়ে ত্রাণ তৎপরতা ও পুনর্বাসনের কাজে নেমে পড়েন।

প্রধানমন্ত্রী বন্যাপরবর্তী অবকাঠামো ও পুনর্বাসনের ব্যাপারে দিকনির্দেশনা দেন। এ ছাড়া সিলেট সার্কিট হাউসে দুই জেলার নেতাকর্মী এবং প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়