শাহজালালে এবার দুর্ঘটনার শিকার বিমানের ড্রিমলাইনার

আগের সংবাদ

ব্যাটিং ‍বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

পরের সংবাদ

টিপু-প্রীতি হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার জিতু-মারুফ রিমান্ডে

প্রকাশিত: জুন ১৬, ২০২২ , ৯:৪০ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ১৬, ২০২২ , ৯:৪০ অপরাহ্ণ

রাজধানীর শাহজাহানপুরে গুলি করে মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম টিপু ও কলেজ ছাত্রী সামিয়া আফরিন প্রীতি হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার ইশতিয়াক আহমেদ জিতু ও মারুফ খানকে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) বিকেলে জিতুকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করে ডিবি পুলিশ। অন্যদিকে একই মামলার আসামি মারুফ খানকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করে ফের তার সাত দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। শুনানি শেষে ঢাকার অ্যাডিশনার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূর জিতুর তিন দিনের ও মারুফের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আদালতে শাজাহানপুর থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখার কর্মকর্তা ভোরের কাগজকে বিষয়টি জানান।

এদিকে জিতুর রিমান্ড আবেদনে তদন্ত কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, এই আসামিকে গত বুধবার রাজধানীর মগবাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এই আসামি টিপু হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র সরবরাহকারী বলে জানা গেছে। এ ছাড়া এই হত্যাকাণ্ড তার জড়িত থাকার কথা প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার ও অস্ত্রের উৎস সম্পর্কে তথ্য জানার জন্য তাকে নিবিড়ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন।

অন্য আসামি মারুফ খানের বিষয়ে তদন্ত কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, মারুফ খান ও হত্যাকাণ্ডে জড়িত ছিলেন বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। এই মামলার অন্যতম আসামি হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী সুমন সিকদার ওরফে শুটার মুসার মুখোমুখি করা হবে। তাহলে হত্যাকাণ্ডের মূল রহস্য উদ্‌ঘাটন করা সম্ভব হবে। মারুফকে ঘটনার কয়েক দিন পরেই গ্রেপ্তার করা হয়েছিল এবং তাঁকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছিল। গত ১৩ এপ্রিল তাকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়।

গত ২৪ মার্চ রাত সোয়া ১০টার দিকে শাজাহানপুর ইসলামী ব্যাংকের সামনে টিপুর গাড়ি লক্ষ্য করে হেলমেট পরা দুর্বৃত্তরা এলোপাতাড়ি গুলি করে। গুলিতে টিপু, তার গাড়িচালক মুন্না ও রিকশা আরোহী রাজধানীর বদরুন্নেছা সরকারি মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী প্রীতি গুলিবিদ্ধ হন। এ ঘটনায় টিপু ও প্রীতির মৃত্যু হয়। পরদিন শুক্রবার নিহত টিপুর স্ত্রী ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১১, ১২, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ফারহানা ইসলাম ডলি বাদী হয়ে শাহজাহানপুর থানায় মামলা করেন। মামলা নাম্বার ১৮(৩)২২। অভিযোগে তিনি কারো নাম উল্লেখ না করে অজ্ঞতানামা আসামি হিসেবে মামলা দায়ের করেন।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়