এবি ব্যাংকের অর্থ আত্মসাৎকারীদের গ্রেপ্তারে পদক্ষেপ জানতে চান হাইকোর্ট

আগের সংবাদ

তামাকজাত দ্রব্যে কার্যকর করারোপ না করায় ১৮ সংগঠনের মানববন্ধন

পরের সংবাদ

বরখাস্ত হলেন সাবেক শিক্ষামন্ত্রীর এপিএস

প্রকাশিত: জুন ১৪, ২০২২ , ৪:৪২ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ১৪, ২০২২ , ৪:৪২ অপরাহ্ণ

সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সহকারি একান্ত সচিব মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহযোগী অধ্যাপক মন্মথ রঞ্জন বাড়ৈ (মনি) অবশেষে চাকরি হারিয়েছেন। কর্মস্থলে যোগদান না করে সরকারের অনুমতি ছাড়া দীর্ঘকাল দেশের বাইরে থাকায় তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা হিসেবে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। সোমবার (১৩ জুন) শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের এ কর্মকর্তাকে বরখাস্তকরণ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বিনা অনুমতিতে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা অনুযায়ী ‘অসদাচরণ ও পলায়ন’-এর অভিযোগে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মমলা করে কারণ দর্শানো নোটিশ দেয়া হয়। পরে এর জবাব না দেয়ায় বিষয়টি তদন্তের সিদ্ধান্ত হয়। এতে প্রাথমিকভাবে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হয় এবং দ্বিতীয়বার কারণ দর্শনার নোটিশ দেয়া হয়। কিন্তু প্রাপক দেশে নেই মর্মে জবাব আসে ডাক বিভাগের খামে। এ পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। অবিলম্বে এ আদেশ কার্যকর হবে।

এর আগে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব আবু বকর ছিদ্দীক বলেন, প্রজাতন্ত্রের কোনো কর্মচারীর অননুমোদিতভাবে বিদেশে থাকার সুযোগ নেই। এ ব্যাপারে প্রশাসনিক সব ধাপ অনুসরণ করে তাকে বরখাস্ত করা হচ্ছে।

মন্মথ বাড়ৈর সহকর্মীরা জানান, মন্মথ রঞ্জন বাড়ৈ ২০১৮ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। আওয়ামী লীগ সরকারের তৃতীয় মেয়াদে ডা. দীপু মনি শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ার পর তিনি দেশ ছাড়েন। ২০০৯ সালে নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষামন্ত্রী হওয়ার পর টানা ৮ বছর তার এপিএস ছিলেন মন্মথ রঞ্জন বাড়ৈ। ওই সময় শিক্ষাখাতের বদলি ও পদায়নসহ সবকিছুই তার নিয়ন্ত্রণে ছিল। নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে তাকে সে পদ থেকে নুরুল ইসলাম নাহিদই সরিয়ে দেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ২৫ মার্চ মন্মথ রঞ্জন বাড়ৈকে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরিদর্শক (কলেজ) থেকে সরিয়ে খুলনার বিএল কলেজে বদলি করা হয়। কিন্তু তিনি সে কলেজে যোগদান করেননি। তার বেশ আগেই তিনি বিদেশে চলে যান। কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়াই তিনি কর্মস্থলে দীর্ঘকাল অনুপস্থিত থাকায় ওই বছরের ১২ এপ্রিলের মধ্যে কর্মস্থলে যোগদানের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়। এরপরও তিনি কর্মস্থলে অনুপস্থিত।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়