ক্যাপিটল হিলে হামলা: ট্রাম্পের বিরুদ্ধে 'অভ্যুত্থান চেষ্টা'র অভিযোগ

আগের সংবাদ

সীতাকুণ্ডের ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পরের সংবাদ

ঢাবির ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় তুমুল প্রতিযোগিতা: উপাচার্য

প্রকাশিত: জুন ১০, ২০২২ , ১:২৩ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ১০, ২০২২ , ১:২৫ অপরাহ্ণ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটে পাঁচটি অনুষদ এবং পাঁচটি ইনস্টিটিউটে শিক্ষার্থীরা পড়তে আসে। এ বছর সর্বোচ্চ সংখ্যক পরীক্ষার্থী এই ইউনিটে পরীক্ষা দিচ্ছে। সুতরাং সবকিছু মিলিয়ে এই ইউনিটে তুমুল প্রতিযোগিতা বলে উল্লেখ করেছেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো আখতারুজ্জামান।

শুক্রবার (১০ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় কার্জন হল পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

এ সময় উপাচার্য বলেন, এবার ‘ক’ ইউনিটে ১৮৫১টি আসনের বিপরীতে ১ লাখ সাড়ে ১৫ হাজার পরীক্ষা দিচ্ছেন। এর মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ৬৩ হাজার শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছেন এবং ঢাকার বাইরে ৫২ হাজার শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছেন। এখানে অত্যন্ত সুষ্ঠু পরিবেশে পরীক্ষা হচ্ছে।

ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে যে অসাধু অশুভ চক্র মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে তাদের ধরে আইনের আওতায় আনা এবং ডিজিটাল জালিয়াতিসহ অন্যান্য উপায়ে যারা ভর্তি হয়েছে শনাক্ত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

অভিভাবকদের আহবান করে উপাচার্য বলেন, একটি পরিবর্তন আমাদের লাগবে। ভর্তি পরীক্ষার দিন যখন ব্যাপক জনসমাগম হয় তখন আমরা আহবান করি যেন যানবাহন, রিকশা, অন্যান্য গাড়ি কম প্রবেশ করে। এবং পরীক্ষার্থীদের অভিভাবক ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা যেন কম ভিড় করেন। কারণ আমাদের সমন্বয়করা পরীক্ষা ব্যবস্থাপনায় সকল সুযোগ সুবিধা রাখেন। কাজেই শিক্ষার্থীদের সক্ষম করে গড়ে উঠতে দেওয়া আমাদের কর্তব্য। অবিভাবকদের অনুরোধ করব তাদের সবার বয়স এখন ১৮ বছর, তারা এখন দক্ষ, বুদ্ধিমান। তাদেরকে একা ছেড়ে দিন। সমাজ সংস্কৃতি দেশ মানুষের সঙ্গে তাদের নিজেদের মত করে নানাভাবে পরিচয় ঘটুক। তাহলে ভালো গ্রাজুয়েট হিসেবে গড়ে উঠার শক্তি পাবে৷

তিনি আরো বলেন, ভর্তিপরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান মর্যাদা বৃদ্ধির একটি বড় সূচক। ভালো ব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে এটি অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে যে অসাধু অশুভ চক্র মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে তাদের ধরে আইনের আওতায় রেখে আনার যে প্রত্যয় সেটি আমরা করতে পেরেছি এবং ডিজিটাল জালিয়াতি সহ অন্যান্য উপায়ে যারা ভর্তি হয়েছে তাদেরও আমরা শনাক্ত করেছি। আইন শৃঙ্খলা বাহিনী আমাদের এক্ষেত্রে সহযোগিতা করেছে। অশুভ জালিয়াত চক্র যেন মাথা চাড়া দিয়ে না দাড়াতে পারে। এজন্য আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

এ বছর এক হাজার ৮৫১টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছেন ১ লাখ ১৫ হাজার ৭২৬ জন। বেলা ১১টায় পরীক্ষা শুরু হয়ে শেষ হয় সাড়ে ১২টায়।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়