বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রি প্রদানের চিন্তা ও সংশয়

আগের সংবাদ

অর্থনীতিতে ফুটবে পদ্মফুল

পরের সংবাদ

হজ কার্যক্রম শুরু : বিমানের সিডিউল যেন ঠিক থাকে

প্রকাশিত: জুন ৫, ২০২২ , ৩:৪৯ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুন ৫, ২০২২ , ৩:৪৯ পূর্বাহ্ণ

গত শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পবিত্র হজ কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন। তিনি বলেছেন, তার সরকার হজযাত্রীদের হয়রানি কমাতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। হজ ব্যবস্থাপনাকে আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর করে এর প্রভূত উন্নয়ন সাধন করা হয়েছে। পাশাপাশি তিনি সৌদি আরবগামী বাংলাদেশি হজযাত্রীদের হজ পালনের পাশাপাশি দেশের মর্যাদা রক্ষা ও জনগণের কল্যাণে দোয়া করার পরামর্শ দিয়েছেন। আমরাও আশা করছি স্বাচ্ছন্দ্যে যাত্রীরা হজ আদায় করতে পারবেন। সব ধরনের হয়রানি থেকে মুক্ত থাকবেন। বিশেষ করে দেখা যায়, প্রতি বছর হজ ফ্লাইটের সিডিউল বিপর্যয়। এতে হজযাত্রীদের হয়রানি বাড়ে। এমন অবস্থা দেখতে চাই না। আজ হজের প্রথম ফ্লাইট যাবে সৌদি আরবের উদ্দেশে। বিশ্বজুড়ে কোভিড-১৯ মহামারির কারণে দুই বছর হজের সুযোগ বন্ধ ছিল। সারা বিশ্ব থেকে প্রতি বছর ২০-২৫ লাখ মানুষ হজে যায়। ২০১৯ সালে প্রায় ১ লাখ ২৭ হাজার বাংলাদেশিকে হজের অনুমতি দেয়া হয়েছিল। এ বছর সৌদি সরকার বিশ্বের ১০ লাখ মানুষকে হজ করতে দেবে। এ বছর প্রায় ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন বাংলাদেশি হজ করতে পারবেন। এর মধ্যে ৪ হাজার সরকারি ব্যবস্থাপনায় এবং বাকিরা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ করবেন বলে ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে এ সংখ্যা অর্ধেকের কম হলেও দীর্ঘ দুই বছর পর হজের সুযোগ হওয়ায় আগ্রহী হজযাত্রীসহ সংশ্লিষ্ট মহলে বেশ উৎসাহ-উদ্দীপনা রয়েছে। এবার থেকে ৬৫ বছরের বেশি বয়সি কেউ হজে যেতে পারবেন না। এটি একটি ভালো সিদ্ধান্ত। কারণ বাংলাদেশিদের মধ্যে শেষ বয়সে হজে যাওয়ার একটা প্রবণতা ছিল; ৭০-৮০ বছর বয়সিদের পক্ষে হজের কষ্টসাধ্য কিছু রীতি বা আচার যথাযথভাবে পালন করা সম্ভব হয় না। অনেকে হজ করতে গিয়ে মারাও যান। বয়সের সীমা বেঁধে দেয়া হলে এসব বাড়তি ঝামেলা কমবে। মুসলমানদের অন্যতম এ ধর্মীয় অনুষ্ঠান বিশাল কর্মযজ্ঞও বটে। এ কর্মযজ্ঞ সফলভাবে সম্পন্ন করা বিরাট চ্যালেঞ্জ। তবে পুরো প্রক্রিয়া সুশৃঙ্খলভাবে হওয়াটাও প্রত্যাশিত। কিন্তু দুঃখজনকভাবে সেটি হচ্ছে না। প্রতি বছরই বিশৃঙ্খলা তৈরি হচ্ছে, হজে গমনেচ্ছুদের ভোগান্তিও বাড়ছে। আগে হজের কার্যক্রম ৭-৮ মাস আগে শুরু হতো। এ বছর হজ এজেন্সিগুলোকে খুব অল্প সময়ের মধ্যে বিশাল কাজ শেষ করতে হবে, যা খুবই চ্যালেঞ্জিং। প্রতি বছর হজের মৌসুমে ফ্লাইট বিপর্যয়, হজ এজেন্সিগুলোর অনিয়ম, সৌদি আরবে বাড়ি ভাড়া, পাসপোর্ট জটিলতাসহ নানা বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম্যও রয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়তে হয় হজযাত্রীদের। অনেকে সব প্রস্তুতি শেষ করেও যেতে ব্যর্থ হন। জানা গেছে, এবারের হজযাত্রী পরিবহন করা হবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের নিজস্ব উড়োজাহাজ দিয়ে। যাওয়া-আসা মিলিয়ে ৬৫টি করে মোট ১৩০টি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। বিমানের সবকটিই ডেডিকেটেড ফ্লাইট হবে। হজ ফ্লাইটে এবার কোনো জটিলতা যাতে না হয়, সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবাই সতর্ক থাকবেন এটাই সবার প্রত্যাশা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়