বলিউডে পা রাখছেন হৃতিকের বোন পশমিনা

আগের সংবাদ

ঢাবি 'খ' ইউনিটের প্রশ্নপত্র সহজ, উচ্ছ্বসিত ভর্তিচ্ছুরা

পরের সংবাদ

স্বচ্ছ প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা নিতে আমরা বদ্ধ পরিকর: ঢাবি উপাচার্য

প্রকাশিত: জুন ৪, ২০২২ , ১২:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ৪, ২০২২ , ১২:৫৮ অপরাহ্ণ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভর্তি পরীক্ষায় একটি স্বচ্ছ প্রতিযোগিতা রয়েছে। স্বচ্ছ প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষাই মূলত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য এবং এটি গ্রহণ করতে প্রশাসন বদ্ধ পরিকর বলে উল্লেখ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

শনিবার (৪ জুন) দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন তিনি।

এ সময় তিনি বলেন, ভর্তি পরীক্ষার এই পর্যায়ে এখানে একটি প্রতিযোগিতা আছে। স্বচ্ছ প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষাই আমাদের সৌন্দর্য ও এটি গ্রহণ করতে আমরা বদ্ধ পরিকর।

তিনি আরও বলেন, ঢাবি ক্যাম্পাস ও ঢাকার মধ্যে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ২৭ হাজার এছাড়াও বিভাগীয় শহরগুলোতে প্রায় ৩১ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছে। এবছর খ ইউনিটে একটি আসনের বিপরীতে প্রায় ৩৩ জন শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতা করছেন। গতকালের ‘গ’ ইউনিটেরও অনুপাত একই রকম ছিল।

বক্তব্য প্রদানকালে তিনি বলেন, আমি বিভাগীয় শহরের বাকি উপাচার্যগুলোর সঙ্গে কথা বলেছি, সেখানে নির্দিষ্ট সময়ে, নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। এখানে দুটো কেন্দ্র পরিদর্শন করেছি। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা পরীক্ষার পরিবেশ, প্রশ্নের মান ও ব্যবস্থাপনাসহ সার্বিক বিষয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

অভিভাবকদের সহোযোগিতা প্রত্যাশা করে উপাচার্য বলেন, ক্যাম্পাসে আগত পরীক্ষার্থীদের চলাচলে যাতে বিঘ্ন না ঘটে সেজন্য পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে অভিভাবকদের না আসার অনুরোধ করেছিলাম। এতদসত্ত্বেও পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে বিপুল সংখ্যক অভিভাবক ক্যাম্পাসে আসেন। এখানে পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকের দায়িত্ব পালন করবে শিক্ষক, পরীক্ষা ব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত সংশ্লিষ্ট স্বেচ্ছাসেবকেরা। এই বিষয়টাতে আমাদের সাংস্কৃতিক উন্নয়ন লাগবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা এখন যঠেষ্ট মেচিউর। তাদের বয়সও ১৮ বছর। তাদেরকে আমাদের ছেড়ে দিতে হবে। এখন ওকে নিজের মতো করে কাজ করতে দিয়ে সক্ষম করে তোলা আমাদের জন্য জরুরি। শিক্ষার্থী সক্ষম হয়ে নিজের মতো করে কাজ করতে পারলে তার গুণগত মান ভবিষ্যতে বৃদ্ধি পাবে। ওরা যখন নিজের মতো করে কাজ করতে শিখবে এটাও তাদের জন্য একটি বড় প্রশিক্ষণ। আর দক্ষ মানবসম্পদ হিসেবে গড়ে উঠতে তাকে এই ধাপটি সাহায্য করবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বিভাগীয় শহরে পরীক্ষা হওয়ায় নিরাপত্তা বিষয়টি কিভাবে দেখা হচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে উপাচার্য বলেন, ব্যবস্থাপনায় যারা আছেন তারা সকল নিয়ম নীতির মধ্যে থেকেই নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সর্বতোভাবে আমাদের সদয় সহযোগিতা করছেন।ঢাকা থেকে বিভাগীয় শহরে যাওয়া ও আসা পর্যন্ত সব ক্ষেত্রে তারা আমাদের সহযোগিতা করেন। কোন ধরনের অশুভ শক্তি,অসাধু চক্রের নানা ধরনের নেতিবাচক কাজের প্রভাব যাতে না পড়ে সেজন্য কিন্তু সব মহলেই সবসময় যথেষ্ট সজাগ ও সতর্ক রয়েছে।

উল্লেখ্য, বেলা ১১টায় ঢাকাসহ দেশের আটটি বিভাগীয় শহরে একযোগে ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়। মোট এক হাজার ৭৮৮টি আসনের বিপরীতে আবেদন জমা দিয়েছেন ৫৮ হাজার ৫৫৪ জন।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়