ডলার সংকট কৃত্রিম মনে করেন মার্কেন্টাইল ব্যাংক চেয়ারম্যান

আগের সংবাদ

করোনায় সহিংসতার শিকার কিশোর-কিশোরীরা: গবেষণা

পরের সংবাদ

কবি চন্দ্রাবতী স্মরণ

বাংলা কবিতার ইতিহাসে অনন্য নাম কবি চন্দ্রাবতী

প্রকাশিত: জুন ১, ২০২২ , ৮:৪৬ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ১, ২০২২ , ৮:৪৬ অপরাহ্ণ

অখণ্ড বাংলা সাহিত্যের একজন উজ্জ্বলতম প্রতিভা কবি চন্দ্রাবতী। যিনি কিশোরগঞ্জের ভূমিপটে মিশে আছেন। ষোড়শ শতকের ‘মনসামঙ্গল’ রচয়িতা কবি দ্বিজ বংশীদাসের কন্যা চন্দ্রাবতী। যিনি বাংলা ভাষার প্রথম নারী কবি।

এই কবির রচিত রামায়ণ বাংলা সাহিত্যের এক অমূল্য সম্পদ। নারীর দৃষ্টিকোণ থেকে রামায়ণ রচনার মাধ্যমে পিতৃতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার মূলে প্রথম কুঠারাঘাত করেন তিনি।

এছাড়া চন্দ্রাবতীর বিস্ময়কর কাব্যপ্রতিভার পরিচয় মেলে দস্যু কেনারাম এবং মলুয়া পালাসহ তার রচিত অজস্র লোকসংগীতের ছত্রে ছত্রে।

বুধবার (১ জুন) বিকেলে বাংলা একাডেমি এই কবির স্মরণে এক অনলাইন আলোচনার আয়োজন করেছে। এতে বক্তারা বলেন, কবি চন্দ্রাবতী বাংলা কবিতার ইতিহাসে এক অনন্য নাম। বাঙালি নারী সাহিত্যচর্চায় সুঅতীতকাল থেকে কতটা নিমগ্ন ছিল, চন্দ্রাবতীর উত্থান ও বিকাশ তার প্রমাণ। প্রতিকূল পরিবেশ ও প্রতিবেশ অগ্রাহ্য করে বাংলার ভাটি অঞ্চলে নীরবে-নিভৃতে চন্দ্রাবতী উজানের কাব্যকথা বয়ান করে গেছেন।

বক্তারা বলেন, বাঙালি নারী এখনও সমাজে ও সাহিত্য ক্ষেত্রে যেসব বৈরিতার মুখোমুখি হচ্ছে তা মোকাবেলায় কবি চন্দ্রাবতীর জীবন ও সৃষ্টি আমাদের অনুপ্রেরণার উৎস হিসেবে কাজ করতে পারে। একই সঙ্গে আমাদের সাহিত্যের উৎস মুখের সামগ্রিকতা অনুধাবনে চন্দ্রাবতীর সাহিত্যকর্ম নিয়ে বিস্তৃত পরিসরে গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে।

বাংলা একাডেমির সভাপতি কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সাবিহা পারভীন। আলোচনায় অংশ নেন অধ্যাপক সৈয়দ মোহাম্মদ শাহেদ, ড. আমিনুর রহমান সুলতান এবং কবি মতিন রায়হান।

সূচনা বক্তব্য দেন একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। ধন্যবাদ জানান একাডেমির পরিচালক নূরুন্নাহার খানম। সঞ্চালনা করেন একাডেমির কর্মকর্তা ড. মাহবুবা রহমান।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়