বাঁশখালীতে হাজারো শিক্ষার্থীর যাতায়াতে ভোগান্তি দূর করুন

আগের সংবাদ

কর্মসংস্থানবান্ধব বাজেট প্রয়োজন

পরের সংবাদ

যানজটে ক্ষতির আর্থিক মূল্য

প্রকাশিত: মে ২৬, ২০২২ , ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মে ২৬, ২০২২ , ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

অসহনীয় যানজটে অতিষ্ঠ নগরবাসী। যানজটে শুধু ঢাকা-চট্টগ্রামের মতো বড় শহরগুলো নয়, অন্য ছোট ছোট শহরেও ধীরে ধীরে প্রকট আকার ধারণ করছে। অপরিকল্পিত নগরায়ণ, দুর্বল ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা ও নিবন্ধনহীন যানবাহনের কারণে যানজট ক্রমেই জটিল আকার ধারণ করছে। বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) দুর্ঘটনা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাম্প্রতিক এক গবেষণা বলছে, ২০২২ সালে ঢাকার সড়কে প্রতিদিন ৮০ লাখের বেশি কর্মঘণ্টা নষ্ট হয়েছে, যা ২০১৭ সালে ছিল দিনে ৫০ লাখ কর্মঘণ্টা। যানজটের কারণে প্রতিদিন যে কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে তার আর্থিক মূল্য প্রায় ১৪০ কোটি টাকা। যানজটের আরেকটি ক্ষতি হলো রাস্তার আয়ুষ্কাল কমে যাওয়া। ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়ি থেমে থাকলে রাস্তার আয়ুষ্কাল ১৮-৩০ শতাংশ কমে যায়। প্রকৌশলীরা যখন রাস্তা ডিজাইন করেন তখন তারা চলমান লোড বিবেচনা করেন। ঘণ্টার পর ঘণ্টা কয়েক হাজার যানবাহনে ভরা থাকায় রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।
রাজধানী ঢাকার যানজটের প্রধানতম কারণ হলো অপরিকল্পিত নগরায়ণ। ১৯৭৪ সালে ঢাকার জনসংখ্যা ছিল মাত্র ২০ লাখ আর ২০২১ সাল নাগাদ এই মহানগরের জনসংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ কোটি। চীনের বৃহত্তম সাংহাই শহরে দেশের জনসংখ্যার মাত্র ১ দশমিক ৮ শতাংশ বাস করে। প্রতিবেশী ভারতের প্রধান শহরে জনসংখ্যার ২ শতাংশ, ইন্দোনেশিয়ায় ৪ শতাংশ, পাকিস্তানে ৮ দশমিক ৯ শতাংশ এবং ভিয়েতনামে ৮ দশমিক ১ শতাংশ বাস করে। অথচ বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ১১ দশমিক ২ শতাংশই বাস করে ঢাকায়- যা এই অঞ্চলের মধ্যে সর্বোচ্চ। মাত্র ১৬০০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের ঢাকা এত বিপুল লোকসংখ্যার চাপ সইতে পারছে না। ফলে নানাবিধ নাগরিক সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে এবং এর মধ্যে অন্যতম হলো যানজট।
২০১৯ সালের ডিসেম্বরে ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের এক সেমিনারে বলা হয়, যানজটের কারণে ঢাকায় প্রতি বছর আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে আনুমানিক ৩ থেকে ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা স্থানীয় মুদ্রায় ২৫-৪২ হাজার কোটি টাকা। বলার অপেক্ষা রাখে না, সীমিত সড়ক ও যানবাহনের আধিক্যই মাত্রাতিরিক্ত যানজটের অন্যতম কারণ। অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে, যানজটের কারণে রাজধানীতে গাড়ির গতি এবং মানুষের হাঁটার গতি প্রায় সমান। সেমিনারে আরো বলা হয়, সড়ক খাতে বিনিয়োগ, যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ এবং যানজট নিরসনে রাজনৈতিক সদিচ্ছা থাকলে এ ক্ষতির অন্তত ৬০ শতাংশ বা ২২ হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় করা সম্ভব।
দেশের যানজট কমিয়ে আনার জন্য দেশি-বিদেশি সদস্যের সমন্বয়ে একটি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন কমিশন গঠন করা যেতে পারে, যারা যানজটের প্রকৃত কারণ নির্ণয়সহ সমাধানের পরামর্শ দেবেন। যানজটের কারণে মূল্যবান শ্রমঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে, যার প্রভাব পড়ছে দেশের অর্থনীতিতে। দুর্নীতি যেমন অর্থনীতির জন্য ব্যাপক ক্ষতিকর, তেমনিভাবে যানজট কুরে কুরে দেশের অর্থনীতির বিরাট ক্ষতি করে চলছে। যানজট একটি নীরব দানব এবং এর থেকে উত্তরণ দরকার। উপরন্তু যানজটের শিকার হয়ে অনেক মানুষ শারীরিক ও মানসিকভাবেও ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। কাজেই যানজট নিরসনে অবিলম্বে সমন্বিত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের বিকল্প নেই।

মো. জিল্লুর রহমান : গেণ্ডারিয়া, ঢাকা।
[email protected]

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়