রাজধানীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শ্রমিকের মৃত্যু

আগের সংবাদ

বুঝে-শুনে নিতে হবে উন্নয়ন পরিকল্পনা: প্রধানমন্ত্রী

পরের সংবাদ

জেএমবি সম্পৃক্ততা: খুবির দুই শিক্ষার্থীকে ২০ বছর করে কারাদণ্ড

প্রকাশিত: মে ২২, ২০২২ , ২:৩৫ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ২২, ২০২২ , ২:৩৫ অপরাহ্ণ

জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবির সঙ্গে সম্পৃক্ততার দায়ে খুলনা বিশ্ববিদ্যলয়ের (খুবি) সাবেক দুই শিক্ষার্থীকে বিস্ফোরক আইনে ২০ বছর করে কারাদণ্ড সঙ্গে ১ লাখ টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

রবিবার (২২ মে) দুপুর ১২টার দিকে খুলনার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক এস এম আশিকুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী কাজী সাব্বির আহমেদ।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের সাবেক শিক্ষার্থী নুর মোহাম্মদ অনিক ও পরিসংখ্যান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের সাবেক শিক্ষার্থী মোজাহিদুল ইসলাম রাফি। নুর মোহাম্মদ অনিক মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার মোড়াবাড়ি এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে ও মোজাহিদুল ইসলাম বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার ঘাশুরদুয়ার এলাকার রেজাউল করিমের ছেলে। রায় ঘোষণার সময় তারা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদলত সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ২৪ জানুয়ারি পুলিশ জানতে পারে নগরীর পুরাতন গল্লামারী রোডের হাসনাহেনা নামক বাড়ির নিচ তলায় নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন জেএমবির কয়েকজন অবস্থান করছে। সেখানে তারা সন্ত্রাসী কার্যকালাপের পরিকল্পনা করছে। এমন সংবাদ পেয়ে রাত সোয়া তিনটার দিকে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ রাসায়নি দ্রব্য ও কয়েকটি রিমোর্ট কন্ট্রোল যন্ত্র উদ্ধার করে। পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তার নিষিদ্ধ সংগঠনের সদস্য বলে পরিচয় দেয়।

এ ব্যাপারে ওই রাতে (২৫ জানুয়ারি) সোনাডাঙ্গা থানার এসআই রোহিত কুমার বিশ্বাস বাদী হয়ে তাদের দুজনের নামে বিস্ফোরক আইনে ও সন্ত্রাসবিরোধী আইনে দুটি মামলা করেন। একই বছরের ২২ আগস্ট মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা শাখার পুলিশ পরিদর্শক এনামুল হক তাদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে মামলার অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেন।

মোট ১২ জনের স্বাক্ষের ওপর ভিত্তি করে আদালত এ রায় দিয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সাব্বির আহমেদ বলেন, ‘এই দুইজন আসামির বিরুদ্ধে আরও মামলা রয়েছে। আদালতে তারা কয়েকটি স্থানে বোমা হামলার কথাও স্বীকার করেছে। জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় আদালত অতি অল্প সময়ের মধ্যে রায় ঘোষণা করেছে। এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষ সন্তুষ্ট।’

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়