শান্তিগঞ্জে বন্যার আরও অবনতি, দুর্ভোগে পানিবন্দি মানুষ

আগের সংবাদ

ভোরের কাগজের বিরুদ্ধে মামলায় বড়লেখা প্রেসক্লাবের নিন্দা

পরের সংবাদ

বিএনপিকে টোপে ফেলতে পারবে না সরকার: খন্দকার মোশাররফ

প্রকাশিত: মে ২১, ২০২২ , ৫:৪৬ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ২১, ২০২২ , ৫:৫০ অপরাহ্ণ

বিএনপিকে এবার আর সরকার টোপে ফেলতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ অতীতেও নির্বাচনকে সামনে রেখে নানা রকমের কাণ্ড কারখানা ও কৌশল করেছে বলে দাবি করেন মোশাররফ। তিনি বলেন, বারবার জনগণকে ধোকা দেওয়া যায়, প্রতারণা করা যায়, বিএনপিকেও বারবার টোপে ফেলা যায়। এইবার আর বিএনপি সেই টোপে যাবে না। জনগণ সেই প্রতারণার শিকার হবে না।

শনিবার (২১ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন আহাম্মেদ পিন্টুর ৭ম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায়র আয়োজন করে সম্মলিত ছাত্র-যুব ফোরাম।

‘খালেদা জিয়াকে পদ্মা সেতুতে তুলে নদীতে ফেলে দেওয়া উচিত’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে মোশাররফ বলেন, আজকে যারা ক্ষমতায় তারা ভালো নেই, ঘুম হয় না তাদের।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন-বাংলাদেশের তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পদ্মা সেতু থেকে টুপ করে ফেলে দেবেন। প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশে কি প্রমাণিত হয়? দেশনেত্রী খালেদা জিয়া জনগণের নেত্রী তাকে পদ্মা থেকে টুপ করে ফেলে দিয়ে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে। আমরা অভিযুক্ত করতে চাই, খালেদা জিয়াকে হত্যার হুমকি তিনি দিয়েছেন।

খালদা জিয়াকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্যের জন্য দেশের জনগণের নিকট অনতিবিলম্বে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান বিএনপির এই নেতা। বলেন, তা না হলে খালেদা জিয়াকে হত্যার হুমকারি হিসেবে, নির্দেশক হিসেবে আজকের প্রধানমন্ত্রীর বিচার এদেশের জনগণ করবে।

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বিএনপির সংলাপে অংশগ্রহণের প্রশ্ন উঠে বলে উল্লেখ করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আমরা যে নির্বাচন চাই সেটা হলো, আগে শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করতে হবে। সংসদ বাতিল করতে হবে। এরপর নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠন করতে হবে। সেই সরকার যে নির্বাচন কমিশন গঠন করবে সেই কমিশনের সঙ্গে আমরা সংলাপ করবে। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে যাওয়ার প্রশ্নই উঠে না। অতত্রব, এই নির্বাচন কমিশন সংলাপের আহ্বান করলে কি আর না করলেই কি, বিএনপি এই ব্যাপারে দুই পয়সার দামও দেয় না।

মোশাররফ বলেন, কিছুদিন আগে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ডয়েচে ভেলে সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন- তিনি আর প্রধানমন্ত্রী হবেন না। ৪ বার তিনি প্রধানমন্ত্রী হয়ে গেছে। অবশ্যই বলেন নাই যে, সেভাবে-সেভাবে হোক হয়ে গেছেন । উনি আসলে বোঝে গেছেন আগামী নির্বাচন পর্যন্ত এই সরকার আর টিকে থাকতে পারবে না।

মোশাররফ আরও বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন-বিএনপি ক্ষমতা গেলে তাদের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন। আমি বলবো- বিএনপি আগামীতে যে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবে, সেই নির্বাচনে বিএনপি ক্ষমতায় আসবে। সেই নির্বাচনে আমাদের সঙ্গে যারা থাকবেন, তাদেরকে নিয়ে সরকার গঠন করবো। সেই সরকারের প্রধানমন্ত্রী হবেন খালেদা জিয়া। আর শেখ হাসিনা ডয়েচে ভেলে বলেছেন-তিনি আর প্রধানমন্ত্রী হবেন না। ওবায়দুল কাদেরকে বলেতে চাই, ভবিষ্যৎতে আপনারা যে দিন ক্ষমতায় আসবেন, সেই দিন আপনাদের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন তা জনগণকে জানান।

বিএনপির লক্ষ্য অর্জন বক্তব্য দিয়ে হবে না বলে মন্তব্য করে মোশাররফ বলেন, আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বলেছেন, রাজপথে থাকতে হবে। সরকারকে হঠাতে প্রোগ্রাম হবে এবং কর্মসূচি আসবে।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়