প্রশ্ন ফাঁস: মাউশির অফিস সহকারী পদে নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

আগের সংবাদ

পর্যটনকে সহজ করতে প্রয়োজন ‘ট্যুরিস্ট গাইড’ অ্যাপ

পরের সংবাদ

ভোরের কাগজের বিরুদ্ধে মামলা: সারাদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ অব্যাহত

প্রকাশিত: মে ২০, ২০২২ , ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মে ২০, ২০২২ , ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

ভোরের কাগজের প্রকাশক সাবের হোসেন চৌধুরী ও সম্পাদক শ্যামল দত্তসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে কুমিল্লার আদালতে মিথ্যা মানহানি মামলা দায়েরের প্রতিবাদে এবং মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে সারাদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অব্যাহত রয়েছে। গত বুধবারের পর বৃহস্ওপতিবারও দেশের বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন সাংবাদিকরা।

উল্লেখ্য, মাদকবিরোধী অভিযানের আগে ২০১৮ সালের ৯ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে শীর্ষ মাদক কারবারি ও এর পৃষ্ঠপোষকদের একটি তালিকা তৈরি করা হয়। এই তালিকায় কুমিল্লা সিটি নির্বাচনের মেয়র প্রার্থী আরফানুল হক রিফাতের নাম রয়েছে। এই তথ্যের ভিত্তিতে গত ১৫ মে ভোরের কাগজে ‘কুমিল্লার শীর্ষ মাদক কারবারি রিফাত এখন নৌকার কাণ্ডারি’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এর জের ধরেই মিথ্যা মানহানি মামলা করেছেন আরফানুল হক রিফাত, যার প্রতিবাদে সরব হয়েছেন সারাদেশের গণমাধ্যমকর্মীরা। এ সম্পর্কে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

সাভার : ভোরের কাগজের প্রকাশক সাবের হোসেন চৌধুরী, সম্পাদক শ্যামল দত্ত, বার্তা সম্পাদক ইখতিয়ার উদ্দিন, সিনিয়র রিপোর্টার রুহুল আমিনসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে কুমিল্লায় ১০ কোটি টাকার মানহানি মামলার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকালে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে সাভার প্রেস ক্লাব। ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে গণমাধ্যমকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশ নেন। ক্র্যাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ভোরের কাগজের সিনিয়র রিপোর্টার কামরুজ্জামান খানের সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন ভোরের কাগজের স্টাফ রিপোর্টার আজিম উদ্দিন। বক্তব্য রাখেন- সাভার প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি জাভেদ মোস্তফা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোবিন্দ আচার্য, আশুলিয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি মোজাফফর হোসেন জয়, শাহিনুর রহমান, আর টিভির স্টাফ রিপোর্টার জিয়াউর রহমান জিয়া, সিংগাইর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও ভোরের কাগজ সিংগাইর প্রতিনিধি মাসুম বাদশা, বিডিনিউজ ও ইনকিলাবের প্রতিনিধি সেলিম আহমেদ, এস এ টিভির রিপোর্টার রুপাকুর রহমান, সাংবাদিক আকাশ, নোমান, ওমর ফারুক, এস এম পারভেজ মুন্না, শামীম, তুহিন, আরিফুর রহমান, সাংবাদিক মিঠুন সরকার, তপু ঘোষাল, অঙ্গন সাহা, লোটন আচার্য, আপেল মাহমুদ, গোলাম সারওয়ার, ফাহাদ ই আজম, উজ্জ্বল হোসেন, ইমতিয়াজ উল ইসলাম জীবন, মোহাম্মদ শাহিন, এম এস রনি, স্বপন পাটোয়ারী, সাভার সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক ও জাগরণী থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক স্মরণ সাহা। এছাড়া অংশ নেন সাভার দলিল লেখক কল্যাণ সমিতির নেতারা, ইউসুফ টাওয়ার দোকান মালিক ও ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক বাবলু চক্রবর্তী বাবু, দিলখুশা সুপার মার্কেটের পরিচালক নজরুল ইসলাম ও স্থানীয় সুশীল সমাজসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ২০১৮ সালের ৯ জানুয়ারি মাদকবিরোধী অভিযানের আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে প্রকাশিত মাদক কারবারির তালিকায় রিফাতের নাম শীর্ষে ছিল। তিনি কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের টেন্ডারবাজির হোতা, বালু খেকো, কুুমিল্লার মাদকের গড ফাদার হিসেবে পরিচিত বলে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় আগেও সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। সিটি নির্বাচনের আগে আইওয়াশ হিসেবেই তিনি ভোরের কাগজের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছেন। কিন্তু মামলা দিয়ে গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করা যাবে না। অবিলম্বে নিঃশর্ত মামলা প্রত্যাহার না করলে দেশজুড়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে সাংবাদিকরা।
রংপুর : গতকাল সকালে রংপুর প্রেস

ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন জেলার সাংবাদিকরা। ভোরের কাগজের জেলা প্রতিনিধি ফেরদৌস আহমেদের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন- প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সদরুল আলম দুলু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বাপ্পী, সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, আবেদুল হাফিজ, মোর্শারফ রাজু, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের মমিনুল ইসলাম রিপন, আসাদুজ্জামান আফজাল, কাউনিয়া প্রতিনিধি গৌতম সরকার ও জেলা প্রতিবেদক হাসান গোর্কিসহ জেলার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা। বক্তারা ভোরের কাগজ প্রকাশক সাবের হোসেন চৌধুরী ও সম্পাদক শ্যামল দত্তসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মানহানি মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

বগুড়া : মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার প্রত্যাহারের দাবিতে বৃহস্পতিবার বগুড়া শহরের প্রাণ কেন্দ্র সাতমাথায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা বগুড়া জেলার উদ্যোগে বেলা সোয়া ১১টায় মানববন্ধন শুরু হয়ে শেষ হয় পৌনে ১টায়। সাংবাদিক সংস্থা কেন্দ্রীয় সহকারী মহাসচিব ও বগুড়া জেলা কমিটির সভাপতি ভোরের কাগজের গাবতলী উপজেলা প্রতিনিধি মুহাম্মাদ আবু মুসার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি বগুড়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শহরের ৩নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আমিনুল ফরিদ, সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক হুমায়ন ইসলাম তুহিন, সাংবাদিক ইউনিয়ন বগুড়ার সভাপতি মির্জা সেলিম রেজা, ভোরের কাগজের জেলা প্রতিনিধি বাদল চৌধুরী, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার রাজশাহী বিভাগীয় সভাপতি মমিনুর রশীদ সাইন, দৈনিক মানবজমিন পত্রিকার ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি প্রতীক ওমর, জেলা জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক সময়ের আলোর জেলা প্রতিনিধি আজিজ আহম্মেদ রুবেল, এশিয়ান টিভি ও ভোরের কাগজের প্রতিনিধি আনারুল ইসলাম লিটন, নগর টিভির জেলা প্রতিনিধি এস এম দৌলত, আনন্দ টিভির স্থানীয় প্রতিনিধি শামীম হোসেন, ৭১বাংলা টিভির স্থানীয় প্রতিনিধি নুরনবী রহমান, ভোরের কাগজের বগুড়া শহর প্রতিনিধি ইউনুছ উদ্দীন, দুপচাঁচিয়া উপজেলা প্রতিনিধি আজিজুল হক, শাজাহানপুর উপজেলা প্রতিনিধি ছানাউল হক খান জাহেদি, শিবগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি পবন কুমার রায়, নন্দিগ্রাম উপজেলা প্রতিনিধি বকুল হোসেন, ব্যবসায়ী শাহ সুলতান, মোফাজ্জল হোসেন, জেলা সাংবাদিক সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, বর্তমান সহসভাপতি রফিকুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক জুলফিকার আলী ভুট্টো, দপ্তর সম্পাদক ফজলুল হক বাবলু, নির্বাহী সদস্য সাইদুর রহমান সাজু, শফিকুল ইসলাম শফিক, আইয়ুব আলী, ইউনুছ উদ্দীন, তাহেরা জামান লিপি, রেজাউল করিম রেজা, আকাশ, রিপন প্রমূখ। এ সময় বক্তারা বলেন, এ ধরনের হয়রানি ও ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা স্বাধীন সাংবাদিকতার পথে বড় ধরনের অন্তরায়। মানববন্ধনে মুক্তিযুদ্ধ ও গণতন্ত্রের পক্ষে আপসহীন পত্রিকা ভোরের কাগজের বিরুদ্ধে এই মিথ্যা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়।

বরিশাল : কুমিল্লায় মিথ্যা মামলা দায়েরের প্রতিবাদ ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এ দিন বিকালে বরিশাল শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন জেলার সাংবাদিকরা। এ সময় তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী যেখানে মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছন। সেখানে একজন মাদক ব্যবসায়ী কীভাবে একটি স্বনামধন্য পত্রিকার প্রকাশক, সম্পাদক ও রিপোর্টারের বিরুদ্ধে মিথ্যা মানহানী মামলা দায়ের করার সাহস পান।
বরিশাল প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন বলেন, শ্যামল দত্ত সাংবাদিকদের একজন শিক্ষাগুরু। তার মতো একজন প্রথিতযশা সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ীর দায়ের করা মিথ্যা মামলা কোনোভাবেই বরদাশত করা হবে না। আমরা প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি। অবিলম্বে এ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার না করা হলে বরিশাল থেকে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। এছাড়া এ বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্তেরও দাবি জানান তিনি।
মানববন্ধনে বক্তারা আরো বলেন, বস্তনিষ্ঠ সাংবাদিকতার বিরুদ্ধে মানহানি মামলা দায়ের করে সংবাদপত্রের কণ্ঠরোধ করা যাবে না। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের তথ্যের ভিত্তিতে সংবাদ প্রকাশ করায় যিনি এ মামলা দায়ের করেছেন তিনি এর মাধ্যমে প্রমাণ করেছেন তিনি সত্যিকার মাদক ব্যবসায়ী। অবিলম্বে এ ধরনের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান বক্তারা।

ভোরের কাগজ বরিশাল প্রতিনিধি এম কে রানার সঞ্চালনায় এতে উপস্থিত ছিলেন শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের (বিএমএসএফ) বরিশালের সভাপতি ও মোহন টেলিভিশনের বরিশাল ব্যুরো প্রধান শামীম আহসান, শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেস ক্লাবের পাঠাগার সম্পাদক খান রুবেল, ঢাকা পোস্টের বরিশাল ব্যুরো প্রধান সৈয়দ মেহেদি হাসান, বাংলাদেশ টুডের বরিশাল ব্যুরো প্রধান ইঞ্জিনিয়ার জিহাদ রানা, সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি বরিশালের সভাপতি মাসুদ রানা, সাধারণ সম্পাদক আরিফ হোসেন, দৈনিক আজকের তালাশ পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক মারুফ হোসেন, নিউজবাংলার বরিশাল প্রতিনিধি তন্ময় তপু, বাংলাদেশের আলো পত্রিকার বরিশাল ব্যুরো প্রধান এইচ আর হিরা, লন্ডন টাইমস নিউজের বরিশাল প্রতিনিধি এ বি এম তারেক, ভোরের কাগজের বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি শফিক আহম্মেদ, বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি মোহসীন মোল্লা, ভয়েস অব বরিশালের সম্পাদক এইচ এম হেলাল, সুমাইয়া জিসান, মো. মনিরুজ্জামান, ইমরান হোসেন, খান রাসেল, শহিদুল ইসলাম, এম আর শুভ, সিদ্দিক, সাব্বির, লিটন বায়েজীদ, আবু বকর সিদ্দিকসহ অন্য সাংবাদিকরা।

নোয়াখালী (সুবর্ণচর) : একই দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় নোয়াখালীতে। বেলা সাড়ে ১১টায় নোয়াখালী প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত এ কর্মসূচি থেকে ভোরের কাগজের প্রকাশক, সম্পাদক, বার্তা সম্পাদক, রিপোর্টারের বিরুদ্ধে করা মিথ্যা মানহানী মামলা প্রত্যাহারসহ আওয়ামী লীগ থেকে আরফানুল হক রিফাতের মনোনয়ন বাতিলের দাবি জানানো হয়। ভোরের কাগজের জেলা প্রতিনিধি মোহাম্মদ সোহেলের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন- নোয়াখালী প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি বখতিয়ার শিকদার, আলমগীর ইউসুফ, সহসভাপতি মনিরুজ্জামান চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়া মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেন ইনকিলাব ব্যুরো প্রধান আনোয়ারুল হক, সচিত্র নোয়াখালীর সম্পাদক আমিরুল ইসলাম হারুন, সফল বার্তার লিয়াকত আলী খান, দৈনিক দিশারীর সম্পাদক আকাশ মো. জসিম, চলতি ধারার সম্পাদক এম বি আলম, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের প্রতিনিধি আবু নাছের মঞ্জু, প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক মাহবুবুর রহমান, দৈনিক দেশ রূপান্তরের নোয়াখালী প্রতিনিধি জামাল হোসেন বিশাদ, নিউজ টুয়েন্টিফোরের প্রতিনিধি আকবর হোসেন সোহাগ, যমুনা টেলিভিশনের প্রতিনিধি মুনতাসিম বিল্লাহ সবুজ, চ্যানেল আইয়ের প্রতিনিধি আলাউদ্দিন শিবলু, দৈনিক আমার সংবাদের প্রতিনিধি ইমাম উদ্দিন আজাদ, নতুন দিনের প্রতিনিধি এ আর আজাদ সোহেল, একুশে টেলিভিশনের প্রতিনিধি আরেফিন শাকিল, দেশ টিভির প্রতিনিধি খায়রুল আনাম রিফাত, ডেইলি অবজারভারের প্রতিনিধি মুলতানুর রহমান মান্না, প্রতিদিনের সংবাদের প্রতিনিধি জুয়েল রানা লিটন, আজকালপত্রের সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমানসহ জেলায় কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেক্টনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা।

ভোলা : বস্তুনিষ্ঠ তথ্যের ভিত্তিতে সংবাদ প্রকাশের পর মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের একমাত্র গণমাধ্যম দৈনিক ভোরের কাগজের বিরুদ্ধে মিথ্যা মানহানি মামলা দায়ের করায় বৃহস্পতিবার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন ভোলার সাংবাদিক নেতারা। তারা অবিলম্বে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান। নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ভোলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এম হাবিবুর রহমান, দৈনিক আজকের ভোলার সম্পাদক মো. সওকাত হোসেন, দৈনিক ভোলার বাণীর সম্পাদক এম মাকসুদুর রহমান, প্রবীণ সাংবাদিক ও বিটিভির জেলা প্রতিনিধি এম এ তাহের, প্রেস ক্লাবের সাবেক সম্পাদক সামসুল আলম মিঠু, সাবেক সহসভাপতি এম ওমর ফারুক, এটিএন বাংলার জেলা প্রতিনিধি আহাদ চৌধুরী তুহিন, এস এ টিভির জেলা প্রতিনিধি ও দৈনিক নয়া দিগন্তের জেলা প্রতিনিধি শাহাদাত হোসেন শাহীন, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি নজরুল হক অনু, জনকণ্ঠের প্রতিনিধি হাসিব রহমান, প্রথম আলোর প্রতিনিধি নেয়ামত উল্লাহ, আজকের পত্রিকার প্রতিনিধি শিমুল চৌধুরী প্রমুখ।

সাংবাদিক নেতারা বলেন, দেশের শীর্ষ দৈনিক ভোরের কাগজ বস্তুনিষ্ঠ তথ্যের ভিত্তিতে ‘কুমিল্লার শীর্ষ মাদক কারবারি রিফাত এখন নৌকার কাণ্ডারি’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করেছে। এ সংবাদ প্রকাশ করায় ভোরের কাগজের প্রকাশক সাবের হোসেন চৌধুরী ও সম্পাদক শ্যামল দত্ত, বার্তা সম্পাদক ইখতিয়ার উদ্দিন, সিনিয়র রিপোর্টার রুহুল আমিন ও কুমিল্লা প্রতিনিধি ফিরোজ মিয়াকে আসামি করে ১০ কোটি টাকার মানহানি মামলা করেছেন রিফাত, যা স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য মারাত্মক হুমকি। যেখানে সরকার মাদক নির্মূলে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে, সেখানে শীর্ষ মাদকসেবী ও কারবারি আরফানুল হক রিফাত কীভাবে ভোরের কাগজের বিরুদ্ধে মামলা করেন? সাংবাদিক নেতারা অবিলম্বে এ মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।
বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) : কুমিল্লার আদালতে দায়ের করা হয়রানিমূলক মানহানী মামলার প্রতিবাদ ও প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাঞ্ছারামপুর প্রেস ক্লাব। গতকাল বেলা ১২টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ নেন যুগান্তরের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার স্টাফ রিপোর্টার সাব্বির আহাম্মেদ সুবির, ইত্তেফাক ও মাই টিভির প্রতিনিধি এম এ আউয়াল, সমকালের আমজাদ হোসেন সজল, কালের কণ্ঠের চাঁন মিয়া সরকার, যুগান্তরের জেলা প্রতিনিধি শাহআলম সিকদার, বাংলাদেশ প্রতিদিনের আতাউর রহমান সনেট, চ্যানেল এসের আলমগীর হোসেন, দৈনিক মানবকণ্ঠের ফারুক আহাম্মেদ, ভোরের কাগজের রফিকুল ইসলাম, একাত্তর টিভির বাহারুল ইসলাম, দেশ সেবার নাছির উদ্দিন, সরেজমিন বার্তার জসিম উদ্দিন, বাংলা টিভির ফয়সাল আহাম্মেদ, এশিয়ান টিভির রিফাত আবির, নওরোজের রাকিবুল ইসলাম রিয়ান, নয়া শতাব্দীর বশির আল মামুন প্রমুখ। এ সময় বক্তারা বলেন, ভোরের কাগজে বস্তুনিষ্ঠ তথ্যের ভিত্তিতে আরফানুল হক রিফাতের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। শুধু হয়রানির উদ্দেশ্যেই এ মামলা দায়ের করা হয়েছে। মিথ্যা হয়রানিমূলক মামলাটি অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। এ ধরনের ঘটনায় নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের নেই।

ঝিকরগাছা (যশোর) : ভোরের কাগজের প্রকাশক সাবের হোসেন চৌধুরী ও সম্পাদক শ্যামল দত্তসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে কুমিল্লার আদালতে মিথ্যা মানহানি মামলা দায়ের করায় তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ঝিকরগাছা প্রেস ক্লাবের নেতারা। বিবৃতিদাতারা হলেন, প্রেস ক্লাবের সভাপতি এমামুল হাসান সবুজ, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ইমরান রশীদ, সিনিয়র সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম, সহসভাপতি ও ভোরের কাগজের ঝিকরগাছা প্রতিনিধি আতাউর রহমান জসি, আবুল কাশেম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামারুজ্জামান কামাল, মো. তরিকুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহিনুর রহমান শাহিন, দপ্তর সম্পাদক আলমগীর হোসেন, কোষাধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ, কার্যকরী সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুল, এম আর মাসুদ, ইলিয়াস উদ্দীন, একরামুল হক খোকন, সাধারণ সদস্য মাধবী ইয়াসমিন রুমা, আমিনুর রহমান, জুলফিকার আলী ভুট্টো, আবু সাঈদ মিলন প্রমুখ। বিবৃতিতে বক্তারা বলেন, অবিলম্বে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করা না হলে, সারাদেশের কলম সৈনিকদের সঙ্গে নিয়ে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়