বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে স্ত্রীকে তালাকের চেষ্টা, কারাগারে স্বামী

আগের সংবাদ

প্রশ্ন ফাঁস: মাউশির অফিস সহকারী পদে নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

পরের সংবাদ

এসডিজি অর্জনে সমতলের ক্ষুদ্র জাতিসত্তার মানুষদের অন্তর্ভুক্তির দাবি

প্রকাশিত: মে ১৯, ২০২২ , ১০:২৬ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ১৯, ২০২২ , ১০:২৭ অপরাহ্ণ

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়েছে। এ কথা ঠিক যে, এসডিজি বাস্তবায়নে রোল মডেল হতে হলে আদিবাসীদের সম্পৃক্ত করতে হবে। এ জন্য আদিবাসীসহ প্রান্তিক মানুষদের উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাগুলোকেও এগিয়ে আসতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশ ও ইনডিজিনাস পিপলস ডেভেলপমেন্ট সর্ভিসেস- কর্তৃক যৌথভাবে রাজধানীর ডেইলি স্টার ভবনে কাউকে পেছনে ফেলে নয়, এসডিজি ২০৩০ অর্জনে সমতল ভূমির ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীকে অন্তর্ভূক্তকরণ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর আকমল শরীফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সদস্য ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, ঢাকা বিশ্বদ্যিালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. মেসবাহ কামাল, প্রথম আলোর যুগ্ম-সম্পাদক ও কবি সোহরাব হাসান, ইউএনডিপি বাংলাদেশের প্রজেক্ট ম্যানেজার রব স্টোলম্যান। বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক সূচিতা শারমিন এবং ইনডিজেনাস পিপলস ডেভেলপমেন্ট সার্ভিসেস-এর প্রেসিডেন্ট সঞ্জীব দ্রং। অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তব্য রাখেন ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশের প্রোগ্রাম ম্যানেজার এনামুল হক সরকার।

মূল প্রবন্ধে সঞ্জীব দ্রং বলেন, আদিবাসীদের বিষয়ে পর্যাপ্ত তথ্য ও উপাত্তের অভাব, তাই এই বিষয়ে সরকারি ও বেসরকারি গবেষণা বাড়াতে হবে। তিনি বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নে সমতলের আদিবাসীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা প্রয়োজন। তিনি আদিবাসীদের আর্থিক ও সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি জাতীয় আদিবাসী নীতিমালা প্রণয়নের দাবি জানান।

সূচিতা শারমিন বলেন, আদিবাসীরা সরকারি সেবা সম্পর্কে যথেষ্ট অবগত নয়। সরকারি সেবা সম্পর্কে তাদের ধারণা দিতে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দিতে হবে। তিনি আরো বলেন, আদিবাসীদের উন্নয়ন নিশ্চিত করতে সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সমন্বয় সাধন করতে হবে। সোহরাব হাসান বলেন, আদিবাসীদের উন্নয়নে রাষ্ট্র ও সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে। সর্বোপরি তাদের মূল ধারায় নিয়ে আসতে হবে তাদের নিজস্ব স্বকীয়তা বজায় রেখেই।

তিনি আরও বলেন, সমতলের আদিবাসীদের জন্য আলাদা ভূমি কমিশন গঠন করতে হবে। মেজবাহ কামাল বলেন, আদিবাসীদের আর্থিক উন্নয়নের পাশাপাশি তাদের বাসস্থানের বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে। সাংবিধানিক স্বীকৃতির পাশাপাশি বাজেটে পর্যাপ্ত বরাদ্দের বিষয়ে গুরুত্ব প্রদান করতে হবে। রব স্টোলম্যান বলেন, আদিবাসীদের উন্ন্য়ন ত্বরান্বিত করতে চলমান বিভিন্ন বৈষম্য দূরীকরণে কাজ করতে হবে। তিনি তরুণ সমাজকে গুরুত্ব দিয়ে সহনশীলতা বৃদ্ধির পদক্ষেপ গ্রহণের উপর গুরুত্বারোপ করেন।

ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, আদিবাসীদের ক্ষমতায়নে তাদের অংশগ্রহণ ও মতামতের ভিত্তিতে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা প্রয়োজন।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়