নিউজ ফ্ল্যাশ

আগের সংবাদ

ম্যাঙ্গো স্পেশাল ট্রেন চালু ২২ মে

পরের সংবাদ

বামদের আর প্রয়োজন বোধ করেনা আ.লীগ সরকার: মেনন

প্রকাশিত: মে ১৭, ২০২২ , ৪:০০ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ১৭, ২০২২ , ৪:০৩ অপরাহ্ণ

আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পরে বামদের খুব একটা প্রয়োজন বোধ করেনি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি, সংসদ সদস্য এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি রাশেদ খান মেনন।

মঙ্গলবার (১৭ মে) বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির ৫০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার পরে বিএনপি জামাতের বিরুদ্ধে আন্দোলনে আমরাই অগ্রণী ভূমিকায় ছিলাম। আওয়ামী লীগ অনেক বড় সংগঠন হওয়া সত্ত্বেও যখন মাঠে নামার সাহস বা দাঁড়াতে পারেনি, তখন আমরা খালেদা জিয়ার অপারেশন ক্লিন হার্টের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছি, আমরা বাংলাভাই এবং জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছি, আর কেউ তখন দাঁড়ায়নি। এরপর আওয়ামী লীগ আমাদের সঙ্গে এসে বললেন, তারাই আসলেন, আসেন একত্রে হই, একসঙ্গে আন্দোলন, একসঙ্গে নির্বাচন এবং একসঙ্গে সরকার গঠন করি, এই ভিত্তিতে আমরা, ১৪ দলের ঐক্য গড়ে তুলি।

ফলশ্রুতিতে ২০০৮ সালে নির্বাচনের মাধ্যমে আমরা জয়ী হলাম। কিন্তু আগে যে বললাম, আমাদের পথ কখনই মসৃণ ছিল না। ফলে আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পরে বামদের খুব একটা প্রয়োজন বোধ করেনি। তারা হঠাৎ করেই দিলীপ বড়ুয়াকে মন্ত্রী বানিয়ে ভাবলো, একজনকেতো দিলাম। কিন্তু আমাদের সঙ্গে যে সমান্তরাল সম্পর্ক থাকা উচিত ছিল, সেটা থাকেনি। আবার যখন যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বিরুদ্ধে বিএনপি জামাত মাঠে নেমে গেল, তখন আমরাই আবার আওয়ামী লীগকে মাঠে নামিয়ে আন্দোলন করেছি। সুতরাং আমাদের আন্দোলনের কখনই অনুকূল পরিবেশ ছিল না, যা কিছু অনুকূল পরিবেশ আমরা অর্জন করেছি, তা লড়াই সংগ্রাম করেই অর্জন করেছি। লড়াই করেই গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছি, বিস্তৃতি করেছি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ হওয়ার পর যখন বঙ্গবন্ধু দেশে ফিরে এসেছিলেন, তখন যারা মস্কোপন্থী ছিলেন, তাদের চীনের বিরোধিতার কারণে, সোভিয়েত ইউনিয়নের সমর্থনের কারণে তারা কিছুটা আনুকূল্য পেলেন। কিন্তু আমরা যারা পিকিংপন্থী হিসেবে পরিচিত ছিলাম, যদিও আমরা মুক্তিযুদ্ধের সময় সেটাকে পরিত্যাগ করেছিলাম, তারা সেই ধরনের কোনো আনুকূল্য পাইনি। ১৯৭২ সালে আমরা তাগিদ অনুভব করি, আমাদের এসব কমিউনিস্ট গ্রুপকে এক হয়ে একটা পার্টিতে আসা উচিত। যার ফলে আমরা বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি লেলিনবাদি নামে যাত্রা শুরু করি।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি বলেন, বঙ্গবন্ধুর সরকারের আমলেও আমাদের বহু কমরেডকে রক্ষীবাহিনীর হাতে নির্যাতিত হতে হয়েছে, জীবন দিতে হয়েছে। এমনও ঘটনা ঘটেছে যে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে কথা বলে, আমাদের কর্মীকে বাঁচাতে হয়েছে। সুতরাং আমরা কোনোদিন অনুকূল পরিবেশ পাইনি। জিয়ার আমলেও ঠিক একই ঘটনা ঘটেছে। ৯৬ সালে আমরা তুলনমূলক কিছুটা ভালো অবস্থায় ছিলাম।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়