বিজিবি সদস্যের উপস্থিতিতে নীলগাই হত্যা করা হয়নি, দাবি বিজিবি’র

আগের সংবাদ

কুমিল্লা সিটিতে নৌকার মনোনয়ন পেলেন আরফানুল হক রিফাত

পরের সংবাদ

‘কলকাতায় বঙ্গবন্ধু’ তথ্যচিত্র নির্মাণে ব্যস্ত গৌতম, মুক্তি জুনে

প্রকাশিত: মে ১৩, ২০২২ , ৬:৫৬ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ১৩, ২০২২ , ৬:৫৬ অপরাহ্ণ

‘কলকাতায় বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক তথ্যচিত্র নির্মাণে ব্যস্ত সময় পার করছেন স্বনামধন্য চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের (ভারত চ্যাপ্টার) যৌথ প্রযোজনায় এই তথ্যচিত্র নির্মিত হচ্ছে। আগামী জুনে এটি মুক্তি পাবে। শুক্রবার বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পরিচালক গৌতম ঘোষ নিজেই জানান এসব কথা। এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমসহ বেশ কয়েকজন এমপি, ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত এবং ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, এ ধরনের ছবি স্বাধীনতার পর তৈরি করলে ভালো হত। ১৯৭৫ সালে এক অন্ধকার নেমে আসার কারণে এ বিষয়ে আগানো যায়নি। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম বলেন, কলকাতার পর্বটি বাদ দিলে বঙ্গবন্ধুর জীবন সম্পর্কে জানা অপূর্ণ থেকে যায়।

গৌতম ঘোষ নিজের অভিজ্ঞতার কথা বর্ণনা করতে গিয়ে বলেন, কলকাতা ইসলামিয়া কলেজে পড়তেন বঙ্গবন্ধু। আমি যখন ইসলামিয়া কলেজের বারান্দায় ক্যামেরা চালাই তখন মনে হয় ক্যামেরা নয়, বঙ্গবন্ধুই হেঁটে বেড়াচ্ছেন। কলকাতার মওলানা আজাদ কলেজে পড়া, বেকার হোস্টেলে থাকা, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আন্দোলনে জড়িয়ে পড়া, আলিমুদ্দিন স্ট্রিটে রাত কাটানো, পার্ক সার্কাসে বঙ্গবন্ধুর ঘুরে বেড়ানো এসবই থাকছে ৩০ মিনিট দীর্ঘ এই তথ্যচিত্রটিতে। এছাড়া ব্রিগেডের ময়দানে বঙ্গবন্ধুর আগুন ঝরানো ভাষণসহ কলকতায় বঙ্গবন্ধুকে দেখেছেন, তার সঙ্গে মিশেছেন এমন জীবিত কয়েকজনের সাক্ষাৎকারও থাকছে তথ্যচিত্রে।

বঙ্গবন্ধুর প্রিয় কলকাতা শহরের অলিগলি থেকে তুলে এনে ক্যামেরাবন্দি করছেন গৌতম ঘোষ। বঙ্গবন্ধুর জীবনে কলকাতা শহরের বড় ভূমিকা রয়েছে বলে মন্তব্য করেন গৌতম ঘোষ। তিনি জানান, এ তথ্যচিত্র সম্পূর্ণভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরের ওপরই নির্মিত হবে। কাজটি করতে কেমন লেগেছে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কলকাতায় বঙ্গবন্ধু’ তথ্যচিত্রটি নির্মাণের সময় একটি আবেগ কাজ করেছে। যখন আমি ক্যামেরা চালিয়েছি তখন মনে হয়েছে বঙ্গবন্ধু ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

তিনি আরও জানান, ‘কলকাতায় বঙ্গবন্ধু’ নির্মাণে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী ও শেখ হাসিনার লেখা বই সবচেয়ে অথেনটিক হিসেবে মনে করি। এ তথ্যচিত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথা চিত্রায়িত করতে সম্মত। বঙ্গবন্ধুর জীবনের ব্যাপ্তি এত বড় যে কলকাতার পর্বটি দেখলেই বোঝা যাবে তার সাহসিকতা।

ভারতের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ জানান, গত এপ্রিলের প্রথমদিকে শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিবিজড়িত মওলানা আজাদ কলেজে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘কলকাতায় বঙ্গবন্ধু’ তথ্যচিত্রের শুটিং শুরু করেন তিনি। দীর্ঘ গবেষণায় তৈরি চিত্রনাট্যটির আলোকে তথ্যচিত্র নির্মাণের বিষয়ে একটি ত্রিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর করেছেন কলকাতায় বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হাসান, চলচ্চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ এবং ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের সহ-সভাপতি সত্যম রায় চৌধুরী। তথ্যচিত্রটি নির্মাণ করতে কত বাজেট বরাদ্দ হয়েছে জানতে চাইলে গৌতম ঘোষ বলেন, বাজেটের বিষয়টি আমি বলতে চাইছি না। তখন পাশ থেকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, বাজেট তেমন বেশি না। বলার মতো কিছু না।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শাহরিয়ার আলম বলেন, গত ১৯ মার্চে এই তথ্যচিত্র নির্মাণ সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারক কলকাতায় বাংলাদেশ উপ হাইকমিশনে স্বাক্ষরিত হয়। প্রায় ৩০ মিনিটের এই তথ্যচিত্রটি কলকাতা এবং বাংলাদেশে শুটিং শেষে আগামী জুন এর মধ্যে নির্মাণকাজ শেষ করার লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করা হয়েছে। গত ৪ এপ্রিল বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত কলকাতার মওলানা আজাদ কলেজ (যেটি পূর্বে ইসলামিয়া কলেজ নামে পরিচিত ছিল) সেখানে এই তথ্যচিত্র নির্মাণের প্রাথমিক কাজ শুরু হয়। বঙ্গবন্ধু কখনো চিকিৎসার প্রয়োজনে, কখনো অধ্যয়নের জন্য, কখনও রাজনৈতিক নেতা হিসেবে বহুবার কলকাতায় আসা যাওয়া করেছেন, যে অভিজ্ঞতা তাকে একজন অসামান্য রাজনৈতিক নেতা হিসেবে গড়ে তুলতে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছে। কাজেই কলকাতাকেন্দ্রিক বঙ্গবন্ধুর এই অজানা বা কমজানা বিষয়গুলোকে জনসম্মুখে নিয়ে আসার জন্যই আমাদের এই প্রয়াস, কারণ কলকাতা পর্বকে বাদ দিলে বঙ্গবন্ধুকে পূর্ণাঙ্গরূপে বিশ্লেষণ করার ক্ষেত্রে অপূর্ণতা থেকে যাবে। চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ আগামী এক সপ্তাহ ঢাকা এবং টুঙ্গিপাড়ার বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে এই তথ্যচিত্র নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় শুটিংয়ের কাজ সম্পাদন করবেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও তার একটি সাক্ষাৎকার রয়েছে।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়