ঘোষিত ঋণ তহবিল সিনেমা হল মালিকদের মাঝে সাড়া জাগিয়েছে

আগের সংবাদ

পাচার হওয়া অর্থ ফেরত আসার আশা অর্থমন্ত্রীর

পরের সংবাদ

রনিল বিক্রমাসিংহের কাঁধে এবার বিপর্যস্ত শ্রীলঙ্কার ভার

প্রকাশিত: মে ১২, ২০২২ , ৭:৩২ অপরাহ্ণ আপডেট: মে ১২, ২০২২ , ৮:৪৪ অপরাহ্ণ

শ্রীলঙ্কায় ষষ্ঠবার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার বিরল রেকর্ড গড়লেন রনিল বিক্রমাসিংহে। বৃহস্পতিবার (১২ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে ডেইলি মিরর।

এতে বলা হয়েছে, বুধবার সন্ধ্যায় প্রেসিডেন্ট রাজাপাকসের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন তিনি। সেখানেই সিদ্ধান্ত হয়েছে শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করবেন রণিল। গত সোমবার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দ রাজাপাকসে পদত্যাগ করলে নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন অনিবার্য হয়ে যায়। তবে কে প্রধানমন্ত্রী হবেন তা নিয়ে বিভক্ত হয়ে পড়ে রাজনৈতিক দলগুলো। সেই অচলাবস্থা ভাঙার চেষ্টা করেন প্রেসিডেন্ট গোটাবাইয়া।

শপথ গ্রহণের পর রনিল বিক্রমাসিংহে রাজধানী কলম্বোর একটি মন্দিরে যাবেন। সেখান থেকে ফিরে তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন শুরু করবেন।

গত সোমবার বিক্ষোভের মুখে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসের বড় ভাই মাহিন্দা রাজাপাকসে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পদত্যাগ করেন। দেশটিতে এতেও বিক্ষোভ প্রশমিত হয়নি। মাহিন্দাসহ বেশ কয়েকজন মন্ত্রী-এমপির বাসভবনে আগুন দেয়া হয়। এরপর গত মঙ্গলবার সপরিবারে একটি নৌঘাঁটিতে আশ্রয় নেন মাহিন্দা। বুধবার ওই নৌঘাঁটিতে বিক্ষোভকারীরা তাকে খোঁজাখুঁজি করতে শুরু করে। পরবর্তী সময়ে গণমাধ্যমে তার শ্রীলঙ্কা ত্যাগের খবর পাওয়া যায়।

রনিল বিক্রমাসিংহে ১৯৯৩ থেকে ১৯৯৪, ২০০১ থেকে ২০০৪, ২০১৫ থেকে ২০১৫ (১০০ দিন), ২০১৫ থেকে ২০১৮ এবং ২০১৮ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত মোট পাঁচবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব এবং ১৯৯৪ থেকে ২০০১ ও ২০০৪ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত দুইবার প্রধান বিরোধী দলের নেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

রনিল বিক্রমাসিংহে কলম্বোর রয়্যাল কলেজে অধ্যয়ন করেন। পরে সিলন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদে ভর্তি হন। স্নাতক সম্পন্ন করার পর শ্রীলঙ্কা ল কলেজ থেকে আইন পরীক্ষায় অংশ নেন। ১৯৭২ সালে অ্যাডভোকেট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন তিনি।

কেলানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের জ্যেষ্ঠ প্রভাষক ড. মৈত্রী বিক্রমাসিংহের সঙ্গে তিনি ১৯৯৪ সালে বিয়ে করেন। তাদের এক মেয়েসন্তান রয়েছে। রনিল বিক্রমাসিংহে ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি) থেকে ২০১৪ সালে রবার্ট ই. উইলহেম ফেলো মনোনীত হন।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়