জেমস আমার ছবি তুলতে চান, জেনে খুব খুশি হলাম: নির্মলেন্দু গুণ

আগের সংবাদ

মে দিবসে শোষণমুক্তির সংগ্রাম এগিয়ে নেয়ার আহ্বান সিপিবি’র

পরের সংবাদ

বৃথা গেল কোহলির হাফসেঞ্চুরি

প্রকাশিত: এপ্রিল ৩০, ২০২২ , ৯:৫৯ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ৩০, ২০২২ , ৯:৫৯ অপরাহ্ণ

ভারতের জনপ্রিয় ঘরোয়া টুর্নামেন্ট আইপিএলে অবশেষে রানে ফিরলেন বিরাট কোহলি। শনিবার (৩০ এপ্রিল) গুজরাট টাইটান্সের বিপক্ষে প্রথম হাফসেঞ্চুরি করেন তিনি। কিন্তু দল হারের পর বৃথা গেল কোহলির হাফসেঞ্চুরি। এদিন ৬ উইকেট হারিয়ে স্কোর বোর্ডে ১৭০ রান তোলে কোহলি-গ্লেন ম্যাক্সওয়েলরা। জবাবে ৬ উইকেটে হার্দিক পান্ডিয়ার গুজরাট জিতেছে। ব্যাঙ্গালুরুর দেয়া ১৭১ রানের জবাবে শুরুটা ভালো করতে পারেনি গুজরাট। দলীয় ৭৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে দলটি। ঋদ্ধিমান সাহা ২৯, শুভমান গিল ৩১ ও সাই সুদর্শন ২০ রান করে সাজঘরে ফিরেন। এরপর দলীয় ৯৫ রানে অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া ব্যক্তিগত ৩ রানে আউট হন। ম্যাচ দেখে মনে হচ্ছিল তাদের হার সময়ের ব্যাপার। কিন্তু ডেভিড মিলার-রাহুল তেওয়াতিয়া দলকে জিতিয়ে তবেই মাঠ ছাড়েন। দুজনে মিলে ছোট ঝড় তোলেন। মিলার ৩৯ ও তেওয়াতিয়া ৪৩ রানে অপরাজিত ছিলেন।

এছাড়া এবার সমালোচনা পাশ কাটিয়ে রানে ফিরেন কোহলি। এই আসরে ৯ ম্যাচ খেলেও পাননি এক ফিফটির দেখা। সর্বশেষ পাঁচটি ইনিংসে আউট হন ৯, ০, ০, ১২ ও ১ রান করেন। এক সময় যার ব্যাটে বইত রানের জোয়ার, সেই কোহলি চলতি আইপিএলে ভুগছিল রান খরায়। ব্যাট হাতে গর্জে উঠতে পারছিলেন না তিনি। কিন্তু শনিবার গুজরাট টাইটান্সের বিপক্ষে ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত দেন কোহলি। ভক্তদের হতাশ করেননি। কিন্তু তার ছন্দে ফেরার দিন জয় তুলে নিতে ব্যর্থ হয় ব্যাঙ্গালুরু।

এদিকে মুম্বাইয়ের ব্রাবোর্ন স্টেডিয়ামে গতকাল টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নেন ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। কিন্তু ইনিংস উদ্বোধনে নেমে তিনি নিজেই সুবিধা করতে পারেননি। শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন ডু প্লেসি। শুরুর সেই ধাক্কা সামলে দলের হাল ধরেন কোহলি ও রজত পাতিদার। ইনিংস শুরু করতে নেমে প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে মোহাম্মদ শামিকে চার মেরে রানের খাতা খোলেন কোহলি। পরের বলে মারেন আরেকটি। পরে আলজারি জোসেফকে মারেন টানা দুই চার। লকি ফার্গুসনের লো ফুল টস লংঅন দিয়ে ওড়ানোর পরের বলে চার হাঁকান ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্ট দিয়ে। কোহলি ও পাতিদার মিলে ৭৪ বলে ৯৯ রানের জুটি গড়েন। দলীয় ১১০ রানের মাথায় পাতিদার হাফসেঞ্চুরি করে আউট হলে ভাঙে এই জুটি। ৩২ বলে ৫ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় ৫২ রান করেন পাতিদার। অন্যপ্রান্তে দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে এগিয়ে গিয়ে ত্রয়োদশ ওভারে ৪৫ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন কোহলি। আইপিএলে সবশেষ ১৫ ইনিংসে যা তার প্রথম। ফিফটির দেখা পাওয়া এই ব্যাটিং সেনসেশন ছিলেন কিছুটা ধীরগতির। ম্যাচ দেখে মনে হচ্ছিল শেষ পর্যন্ত টিকে থেকে কোহলি শতকও হাঁকিয়ে ফেলবেন। কিন্তু ৫৩ বলে ৬ চার আর ১ ছক্কায় ৫৮ রান করে মোহাম্মদ শামির বলে বোল্ড হন কোহলি। এরপর ব্যাট হাতে ছোটখাটো ঝড় তুলেন ম্যাক্সওয়েল। ১৮ বলে তার ৩ চার আর ২ ছক্কায় ৩৩ রানের ইনিংস খেলেন অজি অলরাউন্ডার। শেষদিকে মহিপাল লমরর ৮ বলে ১৬ করে দলকে এনে দিয়েছিল লড়াকু সংগ্রহ।

গুজরাটের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল ছিল প্রদীপ সাঙ্গন। ৪ ওভারে ১৯ রান খরচায় ২টি উইকেট শিকার করেন তিনি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়