সেদিনের দুঃসহ স্মৃতি ভুলতে পারছে না মালাইকা

আগের সংবাদ

নিউমার্কেট ব্যবসায়ীদের আচরণ মার্জিত হওয়া উচিত

পরের সংবাদ

ঈদযাত্রায় দুর্ভোগের শঙ্কা : সড়ক-মহাসড়ক দ্রুত সংস্কার কাজ শেষ করুন

প্রকাশিত: এপ্রিল ২৩, ২০২২ , ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ২৩, ২০২২ , ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ

প্রতি বছরই ঈদের আগে ঘরমুখো মানুষের জন্য বড় উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়ায় সড়ক-মহাসড়কের হাল। ঈদের সময় ভাঙাচোরা সড়ক-মহাসড়ক, যান চলাচলে বিশৃঙ্খলার কারণে পথের ভোগান্তিতে অনেকের ঈদের আনন্দ ফিকে হয়ে যায়। এবারো ঈদযাত্রা শুরুর আগে দেশের বেশকিছু এলাকায় সড়ক-মহাসড়কে বেহালদশার খবর দুশ্চিন্তা তৈরি করছে। গত কয়েক দিন ধরে গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানাচ্ছে, দেশের প্রায় প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ রুটের সড়ক-মহাসড়কজুড়ে রয়েছে গর্ত আর খানাখন্দ। কোনো কোনো রাস্তায় চলছে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড। ইতোমধ্যে এসব রাস্তা মেরামতের নির্দেশও দেয়া হয়েছে। তবে সময় স্বল্পতার কারণে মেরামত যথাসময়ে সম্ভব নয়, বলছেন সংশ্লিষ্টরা। প্রতিবারের মতো এবারো ঈদযাত্রায় যানজট, দুর্ঘটনাসহ নানা ভোগান্তির আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে বলেই সহজে অনুমেয়। ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-টাঙ্গাইল, ঢাকা-খুলনা, ঢাকা-বরিশাল, ঢাকা-সিলেট, বগুড়া-রংপুর, হাটিকুমরুল-বগুড়াসহ বেশিরভাগ মহাসড়ক ঝুঁকিপূর্ণ বলে ইতোমধ্যে গণমাধ্যমের খবরে উঠে এসেছে। এসব সড়কের খানাখন্দ ও গর্ত দ্রুত মেরামত না করলে ধীরে ধীরে তা আরো বড় হয়ে ঈদের সময় অতিরিক্ত গাড়ির চাপে ভয়াবহ রূপ নিতে পারে। জানা গেছে, দেশে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন ৮৭৬টি মহাসড়ক আছে। এর মধ্যে ৯৬টি জাতীয়, ১২৬টি আঞ্চলিক এবং ৬৫৪টি জেলা মহাসড়ক রয়েছে। এবার ঈদ আসতে এখনো অনেক সময় বাকি থাকলেও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কসহ অন্যান্য সড়কে যানজট সৃষ্টি হওয়ায় সবার মধ্যে আগেভাগেই ভোগান্তির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ঈদ ও বর্ষাকে সামনে রেখে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক ও মহাসড়কগুলো দ্রুত মেরামত করে যান চলাচলের জন্য সচল রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। তবে অতীত অভিজ্ঞতার কারণে মানুষ আশ্বস্ত হতে পারছে না। বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিমপার সংযোগ মহাসড়ক প্রশস্তকরণ প্রকল্পের কাজ এখনো শেষ হয়নি। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উন্নয়নকাজ চলছে ঢিমেতালে। প্রতিশ্রæতি আর আশ্বাস অনুযায়ী সংস্কারকাজ এগোচ্ছে না। ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রাপথের ভোগান্তি লাঘবে সড়ক-মহাসড়কের নাজুক পয়েন্টগুলো দ্রুততম সময়ে মেরামত করতে কর্তৃপক্ষের উদ্যোগী হতে হবে। মহাসড়ক উন্নয়ন কাজের জন্য যেন যান চলাচল বিঘিœত না হয়, তাও খেয়াল রাখতে হবে। রাস্তাঘাটের নাজুক অবস্থার সঙ্গে যানচালকদের বিশৃঙ্খল ও বেপরোয়া যান চালনা যানজটের সঙ্গে সঙ্গে দুর্ঘটনারও কারণ হয়। ঈদ মৌসুমে মহাসড়কে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ অত্যধিক বেড়ে যায়। এ সুযোগে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের জন্য ফিটনেসবিহীন গাড়ি নামানো হয় রাস্তায়। এসব গাড়িও দুর্ঘটনার জন্য দায়ী। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উচিত, যত দ্রুত সম্ভব দেশের বেহাল সড়ক-মহাসড়কগুলোকে যান চলাচলের উপযোগী করে তোলা, অন্তত বেহাল সড়কের কারণে যেন কোনো দুর্ঘটনা না ঘটে, সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখা জরুরি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়