বাবার কোলে শিশুকে হত্যা: প্রধান আসামিসহ গ্রেপ্তার ৫

আগের সংবাদ

নির্মাণ সামগ্রীর মূল্য বৃদ্ধিতে আবাসন শিল্পে কালো ছায়া

পরের সংবাদ

কাদিজের বিপক্ষে হেরে লিগ শিরোপার স্বপ্ন শেষ বার্সার

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৯, ২০২২ , ১১:৪০ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ১৯, ২০২২ , ১১:৪০ অপরাহ্ণ

সবশেষ ম্যাচে ঘরের মাঠে বড়োসড়ো হোঁচট খেয়েছে বার্সেলোনা। তবে সেইটা ছিল ইউরোপা লিগের ম্যাচ। এবার ক্যাম্প ন্যুতে লিগ ম্যাচেও যে পয়েন্ট হারাবে তা নিশ্চয়ই ভাবতে পারেননি বার্সা কোচ জাভি হার্নান্দেজ। মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) লা লিগায় কাদিজের বিপক্ষে ১-০ গোলে হেরেছে বার্সেলোনা। কাদিজের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন লুকাস পেরেজ। লিগে বার্সেলোনার বিপক্ষে সবশেষ চার ম্যাচেই অপরাজিত রইল কাদিজ। ২টি জয়ের বিপরীতে ২টি ম্যাচে সমতা নিয়ে ফিরেছে ক্লাবটি।

এই ম্যাচ হারে রিয়ালের থেকে এক ম্যাচ কম খেলে তাদের পয়েন্ট এখন ৬০ এবং রিয়ালের পয়েন্ট ৭৫। যদি বার্সা তদের পরের ম্যাচে জিতেও যায় তবুও সমান ম্যাচে তাদের পয়েন্ট হবে ৬৩। পয়েন্টের ব্যবধান দাঁড়ায় ১২। সেক্ষেত্রে রিয়ালের বাকি থাকা ৬টি ম্যাচের মধ্যে ২টিতে জয় পেলেই লিগ শিরোপা জিতে যাবে। এদিকে বার্সার শিরোপার সমীকরণটা বেশ জটিল। বার্সার সব ম্যাচ জয়ের সঙ্গে রিয়ালকে হারাতে হবে অন্তত ৪টি ম্যাচে। যেটি অসম্ভবই বলা চলে। অনেক সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে না পেরে মূল্যবান ৩ পয়েন্ট হারানোতে হতাশাই প্রকাশ করেছেন জাভি।

বার্সেলোনা লা লিগায় সবশেষ বেটিসের বিপক্ষে হেরেছে গত বছরের ডিসেম্বরে। এরপর টানা ১৫ ম্যাচ অপরাজিত থাকা দলটি হোঁচট খেয়েছে দুর্বল এক দলের কাছে। অবনমন থেকে বাঁচার লক্ষ্য নিয়ে ক্যাম্প ন্যুতে আসে কাদিজ। জয় নিয়ে ফেরার কথা হয়তো ভাবতেও পারেনি তারা। তবে আগের ম্যাচে ইউরোপা লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে ফ্রঙ্কফুর্টের বিপক্ষে ৩-২ গোলে হারের পর এই ম্যাচেও বার্সার তেমন উজ্জ্বল পারফরম্যান্স লক্ষ্য করা যায়নি। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ গোলে পিছিয়ে থেকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পর তারা বিদায় নেয় ইউরোপা লিগ থেকেও।

বছরের শুরু থেকে যে বার্সেলোনাকে দেখেছে সবাই, সেই বার্সেলোনাকে যেন প্রথমার্ধে খুঁজেই পাওয়া যায়নি। খেলা ছিল বিবর্ণ। শুরু থেকে বল দখলে আধিপত্য রাখলেও গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না বার্সেলোনা। বরং ২৭তম মিনিটে গোল খেয়েই বসেছিল তারা। সতীর্থের পাস বক্সের মুখে ফাঁকায় বল পেয়েও জালে জড়াতে পারেননি পেরেজ, এতেই প্রথম এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ নষ্ট হয় কাদিজের। এরপর ম্যাচের ৩৯ মিনিটে প্রতিপক্ষের দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বক্সের ভেতর থেকে উসমান দেম্বেলের জোরালো শট নেন। তবে এবার তা ঠেকিয়ে দেন কাদিজের গোলরক্ষক। প্রথমার্ধে গোলের জন্য তারা ৭টি শট নিয়ে লক্ষ্যে রাখতে পারে স্রেফ একটি। আর সেই শট এটিই।

এরপর দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে ক্যম্প ন্যুর দর্শকদের স্তব্ধ করে দেন কাদিজ। ৪৮ মিনিটে সালভির ক্রসে কাছ থেকে রুবেন সবরিনোর হেড পাঞ্চ করে ঠেকান মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। কাদিজ ফরোয়ার্ডের পরের প্রচেষ্টাও হাত দিয়ে আটকে দেন তিনি কিন্তু বিপদমুক্ত করতে পারেননি। বল মাটিতে ড্রপ খাওয়ার আগেই জালে পাঠান পেরেজ। আর এতেই ১-০ গোলে এগিয়ে যায় কাদিজ। ৭৬তম মিনিটে ভালো পজিশনে বল পেয়ে বাইরে মেরে সুযোগ হারান কাদিজের আলেক্স। দুই মিনিট পর কর্নারে বার্সেলোনার লুক ডি ইয়ংয়ের হেড ঠেকান গোলরক্ষক। একটু পর ব্যবধান বাড়ানোর আরেকটি সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয় সফরকারীরা। ডি-বক্সের ভেতর থেকে সবরিনোর শট এক হাতে ক্রসবারের ওপর দিয়ে বাইরে পাঠান টের স্টেগেন। নির্ধারিত সময়ের এক মিনিট বাকি থাকতে সুযোগ আসে দ্বিতীয়ার্ধে বদলি নামা গ্যাবিনিজ স্ট্রাইকার পিয়েরে-এমেরিক অবামেয়াংয়ের সামনে। তবে এবার তার ভলি ঠেকিয়ে দেন কাদিজ গোলরক্ষক।

বার্সেলোনা পুরো ম্যাচে ১৮ শটের ৬টি লক্ষ্যে রাখতে পারলেও জালের দেখা পেল না তারা। মাত্র ২৫ শতাংশ বল দখলে রাখা কাদিজ ৬টি শট নিয়ে লক্ষ্যে রাখতে পারে ৪টি। এ নিয়ে টানা সাত ম্যাচ জয়ের পর কোনো ম্যাচ হারল কাতালানরা। ৩২ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে ১৬ নম্বরে উঠে এসেছে কাদিজ।

অন্যদিকে ইতালিয়ান লিগে রোমার বিপক্ষে ঘরের মাঠে খেলতে নামে নাপোলি। তবে ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলে সমতা নিয়েই শেষ হয়েছে। ১১ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে শুরুতেই দলকে এগিয়ে নেয় ইতালিয়ান স্ট্রাইকার লরেনৎস ইনসিনিয়ে। প্রথমার্ধ শেষে ১-০ তে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় নাপোলি। এরপর বিরতি থেকে ফিরে ৭৮ মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয় রোমা। অতিরিক্ত সময়ের প্রথম মিনিটে টামি আব্রাহামের পাস থেকে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নামা এল সারাওয়ে। এই ম্যাচে সমতার ফলে ৩৩ ম্যাচে ৬৭ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে নাপোলি এবং সমান ম্যাচে ৫৮ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে রয়েছে রোমা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়