রাশিয়ার হামলার একমাস: বিপর্যস্ত ও দিশেহারা ইউক্রেন

আগের সংবাদ

রমজানে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে মাঠে থাকবে ১০ ভ্রাম্যমাণ আদালত

পরের সংবাদ

মুক্তিযুদ্ধের সব অর্জন একে একে ধ্বংস করে দেয়া হয়: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: মার্চ ২৪, ২০২২ , ১:১০ অপরাহ্ণ আপডেট: মার্চ ২৪, ২০২২ , ১:২১ অপরাহ্ণ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর যে অবদান ছিল স্বাধীনতায় সেই ইতিহাসটাও মুছে ফেলা হয়েছিল। ৭ মার্চের ভাষণ নিষিদ্ধ; কোনো জায়গায় তার নাম থাকবে না; কোথাও ছবি থাকতে পারবে না; জয় বাংলা স্লোগান নিষিদ্ধ; মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, মুক্তিযুদ্ধের অর্জন সব আদর্শ একে একে ধ্বংস করে দেয়া হয়।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) সকালে স্বাধীনতা পুরস্কার-২০২২ প্রদান অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। এবার জাতীয় পর্যায়ে গৌরবজ্জ্বল ও কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ৯ বিশিষ্ট ব্যক্তি ও দুই প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা পুরস্কার দেয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটি জাতি বা প্রজন্মের সামনে যদি আমাদের বিজয়ের ইতিহাস তুলে ধরা না হয়, সে জাতি সামনে এগিয়ে যাবে কীভাবে? তাদের ভেতরে আত্মবিশ্বাস আসবে কী করে? তারা ভবিষ্যতে উন্নত জীবনের স্বপ্ন দেখবে কীভাবে? আমরা যে বিজয়ী জাতি সেই কথাটাই ভুলিয়ে দেয়া হয়েছিল। এটাই ছিল ২১ বছরের অন্ধকার যুগ।

তিনি আরও বলেন, ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে আমরা বঙ্গবন্ধুর পদাঙ্ক অনুসরণ করে কাজ শুরু করি। আমাদের আশা ছিল এমন দিন বাংলাদেশে আসবে একটি মানুষও ভূমিহীন থাকবে না, গৃহহীন থাকবে না, ঠিকানাবিহীন থাকবে না। সেটা আমরা করতে সক্ষম হবো।

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন ঘুণে ধরা সমাজ ভেঙে একটি নতুন সমাজ গড়তে। ঔপনিবেশিক শাসকদের তৈরি করা প্রশাসনিক কাঠামো এবং সেই সঙ্গে ঔপনিবেশিক শাসকদের শোষণ ও বঞ্চনার হাত থেকে দেশকে মুক্তি দিয়ে তৃণমূল পর্যায়ের মানুষকে ক্ষমতায়ণ করা, তাদের গণতান্ত্রিক অধিকার-মৌলিক চাহিদাগুলো পূরণ করা ছিল তার লক্ষ্য।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়