নিউজ ফ্ল্যাশ

আগের সংবাদ

বাগদাদে বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের চালু

পরের সংবাদ

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে চায় না চীন

প্রকাশিত: মার্চ ১৫, ২০২২ , ৮:২৮ অপরাহ্ণ আপডেট: মার্চ ১৫, ২০২২ , ৮:৩৩ অপরাহ্ণ

ইউক্রেনে সংঘাত ইস্যুতে রাশিয়ার ওপর আরোপিত পশ্চিমা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তে চায় না চীন। মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসে ম্যানুয়েল আলবারেসের সঙ্গে এক ফোনালাপে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এ কথা বলেছেন। খবর আল–জাজিরার

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনের ওপর হামলা শুরুর পর থেকে রাশিয়ার ওপর যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো নজিরবিহীন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।

ওয়াং ই ফোনালাপের সময় বলেন, রাশিয়া ও ইউক্রেন সংকটে বেইজিং কোনো পক্ষে নয়। কোনো নিষেধাজ্ঞার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হতে চায় না চীন।

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, চীন নীতিগতভাবে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাখ্যান করে থাকে। বৈধ অধিকার ও স্বার্থ রক্ষা করার অধিকার বেইজিংয়ের রয়েছে। তিনি ইউক্রেনের এ সংঘাতকে বছরের পর বছর ধরে ইউরোপীয় নিরাপত্তা নিয়ে দ্বন্দ্ব বেড়ে চলার পরিণতি বলে মন্তব্য করেন।

স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী টুইটারে লিখেছেন, চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ইউক্রেন যুদ্ধের ফল এবং যুদ্ধ বন্ধের উপায় নিয়ে তার কথা হয়েছে।

রাশিয়াকে বিশ্বমঞ্চ থেকে একঘরে করতে মরিয়া পশ্চিমা দেশগুলো। এক্ষেত্রে চীনের সমর্থন আশা করছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নহ পশ্চিমা বিশ্বের অন্যান্য দেশ। এসব দেশ চায় রাশিয়ার উপর থেকে চীন তার সমর্থন প্রত্যাহার করে নিক। এ নিয়ে বেইজিংয়ের ওপর দিন দিন চাপ প্রবল হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এদিকে মার্কিন কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, ইউক্রেনে যুদ্ধের জন্য চীনের কাছে রাশিয়া সামরিক ও অর্থসহায়তা চাচ্ছে। তবে এ কথা উড়িয়ে দিয়েছে বেইজিং। হোসে ম্যানুয়েলের সঙ্গে আলোচনার সময় অবশ্য যুক্তরাষ্ট্রের এ অভিযোগের বিষয়টি আসেনি।

ওয়াশিংটনের বিরুদ্ধে ক্ষতিকর ভুল তথ্য ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছে চীন। দেশটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এসব গুজব ছড়ালে ইউক্রেনে সংঘাত আরও বাড়বে।

এর আগে গতকাল সোমবার চীনের কেন্দ্রীয় পররাষ্ট্রবিষয়ক কমিশনের পরিচালক ইয়াং জেইচি ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জাতীয় নিরাপত্তা পরামর্শক জেক সুলিভানের সঙ্গে ইতালির রাজধানী রোমে দীর্ঘ সময় ধরে বৈঠক হয়েছে। তাঁদের আলোচনার বিষয়বস্তু নিয়ে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। তবে তাইওয়ান নিয়ে দুই দেশের সম্পর্কের অচলাবস্থা নিয়ে তাঁরা আলোচনা করেছেন বলে জানিয়েছে চীন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়