মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন শিল্পা শেঠি

আগের সংবাদ

ইউরোপ যাওয়ার পথে অতি ঠাণ্ডায় ৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

পরের সংবাদ

রাজধানীতে স্কুলছাত্রী ধর্ষণে যুবকের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৫, ২০২২ , ৬:০৯ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২৫, ২০২২ , ৬:৪১ অপরাহ্ণ

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে করা মামলায় আরিফ নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ এর বিচারক এ এম জুলফিকার হায়াত মামলাটির রায় ঘোষণায় এ আদেশ দেন।

এছাড়া কারাদণ্ডের পাশাপাশি আসামিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা এবং তা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়। পরে রায় ঘোষণার পর আসামিকে সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়।

এদিকে মামলাটিতে বাকি তিন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদেরকে খালাস দেওয়া হয়েছে। তারা হলেন- ভিকটিমের দুই বান্ধবী ফাতেমা আক্তার শান্তা, আরিফা আক্তার ইতি এবং শান্তার ভাই শিপন।

জানা যায়, ২০১১ সালের ৩ আগস্ট সন্ধ্যায় ভিকটিমের পরিবার ইন্টারনেটে ভিকটিমের সঙ্গে আসামি আরিফের যৌন সম্পর্কের দৃশ্য দেখতে পায়। পরে পরিবারের জিজ্ঞাসাবাদে ভিকটিম জানায়, একই বছরের ৭ জুন সকালে স্কুলে যাওয়ার পথে দুই বান্ধবী তাকে শান্তার বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে তাকে চকলেট খেতে দেয়। চকলেট খাওয়ার পর সে অস্বাভাবিক হয়ে পড়ে এবং তার ঘুম ঘুম ভাব হয়। সকাল ১০টার দিকে আরিফ শান্তাদের বাসায় আসে এবং ভিকটিমকে ধর্ষণ করে। অপর তিন আসামি সেই মুহূর্তের ছবি ধারণ করে। পরে হুমকি-ধামকি দিয়ে ভিকটিমকে বাসা থেকে বের করে দেয়। এরপর ৩১ জুলাই বিকেলে আরিফসহ অপর তিন আসামির সঙ্গে ভিকটিমের কথা কাটাকাটি ও তর্ক-বিতর্ক হয়। এর জের ধরে ইন্টারনেটে ভিডিও প্রকাশ করে আসামিরা।

পরে ধর্ষণের এ ঘটনায় ভিকটিমের বাবা ২০১১ সালের ৬ আগস্ট চারজনকে আসামি করে যাত্রাবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। একই বছরের ১৬ ডিসেম্বর যাত্রাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাজহারুল ইসলাম চারজনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলাটিতে ১৬ জনের মধ্যে ১১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন আদালত। পরে মামলাটির সকল যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য করেন আদালত।

রি-আরএ/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়