করোনাকালেও জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৫.৪৩ শতাংশ, আশাব্যাঞ্জক: রাষ্ট্রপতি

আগের সংবাদ

প্রথম অধিবেশনে সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য হলেন যারা

পরের সংবাদ

মেহেরপুরে চিকিৎসক লাঞ্চনা, ভ্রাম্যমাণ আদালতে জেল

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৬, ২০২২ , ৫:০৯ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৮, ২০২২ , ২:৩৪ অপরাহ্ণ

মেহেরপুর রাবেয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিকের কাছে লাঞ্চিত হয়েছেন মেহেরপুর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে সদ্য যোগদান করা মেডিকেল অফিসার ডা. আবু হাসান মোহাম্মদ ওয়াহেদ (রানা)। কর্তব্যরত অবস্থায় হাসপাতালের ইমার্জেন্সী চিকিৎসকের রুমে ঢুকে ডাক্তারকে লাঞ্চিত করে রাবেয়া মেডিকেল সার্ভিসেস এর মালিক আব্দুল লতিফ। লাঞ্চিত করার ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, রাবেয়া মেডিকেল সার্ভিস এর মালিক আব্দুল লতিফ অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজসহ হুমকি প্রদান করছেন ডা. আবু হাসান মোহাম্মদ ওয়াহেদকে। এর পর থেকে তিনি ভীত সন্ত্রস্ত্র হয়ে পড়েছেন। ভিডিও প্রকাশের পর বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে মেহেরপুরের বিভিন্ন মহলে। পরে ডা. আবু হাসান মোহাম্মদ ওয়াহেদ মেহেরপুর সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ঘটনায় রবিবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুর ১২ টার দিকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাবেয়া মেডিকেল সার্ভিসেস এর মালিক আব্দুল লতিফ ও তার পার্টনার এ্যাপোলো ক্লিনিকের মালিক মুকুল বাশারকে ১০ দিন করে জেল এবং সনো ল্যাব মালিক জে পি আগওয়ালার ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। মেহেরপুরের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সদর উপজেলার সহকারী ভূমি কমিশনার মো: আবু সাঈদ এ আদালত পরিচালনা করেন।

তিনি জানান, ১৯৮২ সালের মেডিকেল প্র্যাক্টিস ও বেসরকারি ক্লিনিক ও ল্যাবরেটরি নিয়ন্ত্রণ অধ্যাদেশ এর ১৩ এর ২ ধারায় দোষী সাব্যস্থ করে রাবেয়া মেডিকেল সার্ভিসেস এর মালিক আব্দুল লতিফ ও তার পার্টনার মুকুল বাশারকে ১০ দিন করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এবং একই আইনের ৫২ ধারায় সনো ল্যাবের ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান হিসেবে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

টিআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়